‘যে কংগ্রেসকে উৎখাত করেছিলেন মুলায়ম, সেই কংগ্রেসকে সঞ্জীবনী দিয়ে ফিরিয়ে আনলেন অখিলেশ’

‘যে কংগ্রেসকে উৎখাত করেছিলেন মুলায়ম, সেই কংগ্রেসকে সঞ্জীবনী দিয়ে ফিরিয়ে আনলেন অখিলেশ’

এবার কি বাণপ্রস্থে নেতাজি? প্রশ্ন তুলে দিল প্রতীক-দ্বন্দ্বে ছেলের কাছে হার। এর সঙ্গে সমাজবাদী পার্টিতে মুলায়মের জমানা শেষ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল ৷

  • Share this:

#লখনউ: নতুন বছর পড়তেই গোটা উত্তরপ্রদেশ সরগরম হয়ে উঠেছে বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে ৷  ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে উত্তরপ্রদেশের সাত দফার নির্বাচনী লড়াই। তার আগে বেশ কয়েকদিন ধরেই  ‘সাইকেল’ নিয়ে বাবা-ছেলের মধ্যে রাজনৈতিক সংঘাত চলছিল জোরকদমে ৷ তবে আপাতত সেই সংঘাত শেষ ৷ নির্বাচন কমিশনের সিদ্ধান্তে ‘সাইকেল’ চিহ্ন গিয়েছে অখিলেশের হাতেই ! কিন্তু, দলীয় প্রতীক সাইকেল হারিয়ে ছেলে অখিলেশের সঙ্গে লড়াইয়ে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছেনআজমগড় লোকসভা কেন্দ্রের বেতাজ বাদশা। এবার কি বাণপ্রস্থে নেতাজি? প্রশ্ন তুলে দিল প্রতীক-দ্বন্দ্বে ছেলের কাছে হার। এর সঙ্গে সমাজবাদী পার্টিতে মুলায়মের জমানা শেষ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল ৷

অখিলেশ পার্টির সুপ্রিমোর হওয়ার পরই শুরু হয়েছে নতুন পরম্পরা যা কংগ্রেসের জন্য লাভবান প্রমানিত হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে ৷ ২৭ বছর আগে কংগ্রেসকে উত্তরপ্রদেশ থেকে উৎখাত করে ক্ষমতায় এসেছিল মুলায়মের সমাজবাদী পার্টি ৷ কিন্তু সেই কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বেঁধে উত্তরপ্রদেশে তাদের ফিরে আসার জমি তৈরি করে দিচ্ছে ছেলে অখিলেশ ৷ এই প্রথম উত্তরপ্রদেশে সপা কোনও রাষ্ট্রীয় দলের সঙ্গে জোট বেঁধে নির্বাচনী লড়াইয়ে নামচ্ছে ৷ এতে সপা-র কতটা লাভবান হবে সেই বিষয়ে প্রশ্নচিহ্ন রয়ে গেলেও এতে কংগ্রেসের যে সবচেয়ে বেশি উপকৃত হবে তা অনেকটাই স্পষ্ট ৷

সূত্রের খবর, সোনিয়া গান্ধি ও অখিলেশের আলোচনার পর ১০৫ আসনে রফা করে সপা ৷ বিধানসভা নির্বাচনে সমাজবাদী পার্টি কংগ্রেসকে ১০০টি আসন ছাড়তে সম্মত হল ৷ এরই সঙ্গে UP নির্বাচনে চুড়ান্ত হল সমাজবাদী পার্টি ও কংগ্রেস জোট ৷ কংগ্রেসের জন্য এই পরিস্থিতি বেশ পজিটিভ কারণ কংগ্রেসের পাখির চোখ এখন ২০১৯ সালের লোকসভার নির্বাচনের উপর ৷ বাকি রাজ্যে কংগ্রেসের যা অবস্থা তাতে নির্বাচনে একা লড়াই করার পরিস্থিতিতে নেই তারা ৷ বিহারেও জোট করে সাফল্য পেয়েছে কংগ্রেস ৷ ৪১টি সিটের মধ্যে ২৭টি জয়ী হয়েছিল কংগ্রেস ৷ যেখানে ২০১০ সালে তারা জয়ী হয়েছিল মাত্র চারটি সিটে ৷

অখিলেশ যাদবের সঙ্গে জোট করে ৭০ থেকে ৮০টি সিটে জয়ী হওয়ার লক্ষ রয়েছে কংগ্রেসের ৷ এতে ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে তাদের ভোট সংখ্যা বাড়াতে সাহায্য করবে ৷ এই কারণেই তাদের প্রথম লিস্টে পুরনো সাংসদদের টিকিট দেওয়া হয়েছে ৷

অখিলেশের দাবি, ৩০০ আসনে জিতে ক্ষমতায় ফিরবে সমাজবাদী পার্টি ৷ সেখানে কংগ্রেসের টার্গেট বিধানসভা ভোটে জেতা ৷ শেষ নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশে যথেষ্ট ভালো ফল করেছিল কংগ্রেস ৷

First published: 03:40:08 PM Jan 23, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर