ভোটে নিজে প্রার্থী নির্বাচনের শর্ত অখিলেশের, জাতীয় সভাপতির পদ থেকে না সরার শর্ত মুলায়মের

ভোটে নিজে প্রার্থী নির্বাচনের শর্ত অখিলেশের, জাতীয় সভাপতির পদ থেকে না সরার শর্ত মুলায়মের

সাইকেল কার দখলে তা ঠিক না হলেও যাদব পরিবারে আপাতত সন্ধি। তবে দু’পক্ষই বেশকিছু শর্ত চাপিয়ে সমঝোতায় রাজি হয়েছে।

  • Share this:

#লখনউ: সাইকেল কার দখলে তা ঠিক না হলেও যাদব পরিবারে আপাতত সন্ধি। তবে দু’পক্ষই বেশকিছু শর্ত চাপিয়ে সমঝোতায় রাজি হয়েছে। দলীয় প্রার্থী নির্বাচনের লাগাম নিজের হাতে রাখার শর্ত মুলায়মকে দিয়েছেন অখিলেশ। উলটোদিকে জাতীয় সভাপতির পদ থেকে তিনি যে সরছেন না তা অখিলেশকে জানিয়ে দিয়েছেন মুলায়ম।

ফেব্রুয়ারিতে ভোট। কিন্তু, যাদবকুলে টানাপোড়েন চলছিলই। মুখে সন্ধির কথা বললেও, সোমবারও, সাইকেল প্রতীকের দাবিতে দিল্লিতে নির্বাচন কমিশনের দফতরে যান মুলায়ম। সঙ্গে ছিলেন দুই বিশ্বস্ত সহচর শিবপাল যাদব ও অমর সিং। চব্বিশ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই মঙ্গলবার ফের নাটকীয় পরিবর্তন। যুদ্ধের জল গড়াল সন্ধির দিকেই। এদিন সকালে, নিজের বাড়ি থেকে বেরিয়ে হাঁটতে হাঁটতেই মুলায়মের বাড়িতে যান অখিলেশ। বাবা-ছেলের ঘণ্টা দেড়েকের বৈঠকও হয়। সূত্রের খবর, শর্তসাপেক্ষে বরফ গলার ইঙ্গিত মিলেছে।

অখিলেশ মুলায়মকে শর্ত দেন, ভোটে দলীয় প্রার্থী নির্বাচনের ভার থাকবে তাঁর ওপরেই ৷ অখিলেশ আরও শর্ত দেন, তাঁকেই জাতীয় সভাপতির পদ দিতে হবে

কিন্তু, মুলায়মের শর্ত, জাতীয় সভাপতির পদ থেকে তাঁকে সরানো যাবে না ৷

একইসঙ্গে তাঁর শর্ত, রামগোপাল যাদবের মতো সাসপেন্ডেড সপা নেতাদেরও এখনই দলে ফেরানো হবে না ৷

অখিলেশই যে বিধানসভা ভোটে সপা-র মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী, বিভেদের মধ্যেও সোমবারই তা ঘোষণা করেন মুলায়ম। এরপর, মঙ্গলবার সাতসকালে, সাতসকালে বাবা-ছেলের একান্ত বৈঠক যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে। ফলে, সমাজবাদী পার্টির অখিলেশ নির্ভরতা আরও বাড়ল বলেই জল্পনা।

First published: 08:20:59 AM Jan 11, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर