Home /News /national /
NEET: এমনও ঘটে! ডাক্তারি পরীক্ষায় বসেছিলেন অবসরপ্রাপ্ত স্কুলশিক্ষক, তারপর যা হল...

NEET: এমনও ঘটে! ডাক্তারি পরীক্ষায় বসেছিলেন অবসরপ্রাপ্ত স্কুলশিক্ষক, তারপর যা হল...

স্বপ্ন নয়, বাস্তব...

স্বপ্ন নয়, বাস্তব...

NEET: স্বপ্ন নয়, বাস্তব! ৬২ বছরে ডাক্তারি পরীক্ষায় পাশ করে তাক লাগালেন অবসরপ্রাপ্ত স্কুলশিক্ষক!

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: এও কি সম্ভব? ২০, ২৫ কিংবা ৩০-এ নয়, ৬২ বছর বয়সে নিজের ডাক্তার হওয়ার স্বপ্ন পূরণ করলেন তিনি। তিনি এক জন অবসর প্রাপ্ত স্কুলশিক্ষক। চেন্নাইয়ের কে শিবপ্রকাশম (K Sivaprakasam)। তাঁর বর্তমান বয়স ৬২ বছর। কিন্তু আজও তিনি স্বপ্ন দেখেন চিকিৎসক হওয়ার। এ তাঁর ছোটবেলার ইচ্ছা বলে কথা। তাই বয়স হলেও কী এসে যায়। স্কুলের কর্মজীবন শেষ করেও ছোট বলার ইচ্ছাপূরণে পুরোদস্তুর লড়াই করেছেন তিনি। তিনি হেরে যাননি। জিতেছেন। ষাটবছর কর্মজীবন অতিবাহিত করার পরও তিনি তাঁর ছোটবেলার স্বপ্ন পূরণ করেছেন। অবশেষে ডাক্তারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন ৬২ বছরের কে শিবপ্রকাশম।

জানা গিয়েছে, তামিলনাডুর ধর্মপুরের বাসিন্দা শিবপ্রকাশম ছোটবেলা থেকেই স্বপ্ন দেখতেন চিকিৎসক হওয়ার। বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রাণীবিদ্যা নিয়ে পড়াশোনা শেষ করলেও পরীক্ষায় প্রাপ্ত নম্বর কম হওয়ায় ওই সময় কিছুটা হলেও নিজের সংকল্প থেকে বিচ্যুত হন তিনি। নানা প্রতিবন্ধকতায় অবশেষে ধর্মপুরের উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রাণীবিদ্যার শিক্ষক হিসাবে নিজেকে কাজে নিযুক্ত করেন শিবপ্রকাশম। তারপর কেটে গিয়েছে অনেকদিন, অনেকগুলো বছর। কিন্তু হাল ছাড়েননি তিনি। দিনের পর দিন ছাত্রদের শিক্ষাদান করেও নিজেকে একজন কঠিন পরীক্ষার্থী হিসাবে গড়ে তুলেছেন তিল তিল করে।

জানা গিয়েছে, সম্প্রতি চেন্নাইের নিট (NEET) পরীক্ষায় সফল ভাবে উত্তীর্ণ হয়েছেন শিবপ্রকাশম। ২৪৯ নাম্বার পেয়ে তাঁর বর্তমান র‍্যাঙ্ক মাত্র ৩৪৯-এর ঘরে।

জানা গিয়েছে, কয়েক হাজার পরীক্ষার্থীকে পেছনে ফেলে ইতিমধ্যেই স্বপ্ন পূরণের দৌড়ে বেশ কিছুটা এগিয়ে গিয়েছেন তিনি।

এ বিষয়ে নিট পরীক্ষার সিলেকশন কমিটির সেক্রেটারি ডা. পি বসন্তমণি (Dr P Vasanthamani) বলেছেন, "সরকারি স্কুলের শিক্ষার্থীদের জন্য ৭.৫ শতাংশ আসন সংরক্ষণ রয়েছে। বর্তমান পরীক্ষার্থীর সংখ্যানুসারে ৪৩৭টি ডাক্তারি আসনের মধ্যে শিবপ্রকাশমের র‍্যাঙ্ক অর্থাৎ যোগ্যতার মান ৩৪৯। এই র‍্যাঙ্কের কারণে শিবপ্রকাশমের যে সুবর্ণ সুযোগ রয়েছে তা একপ্রকার নিশ্চিত বলেই জানিয়েছেন পি বসন্তমণি। শুক্রবার শিবপ্রকাশমকে কাউন্সিলিংয়ের জন্য চেন্নাইয়ে ডাকা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। পাশাপাশি তিনি আরও বলেছেন মোট ৭১৯ জন উত্তীর্ণকে কাউন্সিলিংয়ের জন্য ডাকা হয়েছে।

আরও পড়ুন: উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের জন্য বড় খবর! অনলাইনেই প্রাক্টিক্যাল ক্লাস

কিন্তু শিবপ্রকাশম তাঁর স্বপ্ন পূরণে অবিচল থাকলেও তাঁর ছেলের কথা তিনি ফেলতে পারেননি। তিনি জানিয়েছেন, তাঁর ছেলে বর্তমানে কন্যাকুমারী মেডিক্যাল কলেজের একজন শল্য চিকিৎসক। কমবয়সী যুবক-যুবতীদের এই সুযোগ ছেড়ে দেওয়ার জন্য তাঁর ছেলে তাঁকে অনুরোধ করেছেন বলে জানিয়েছেন শিবপ্রকাশম। তিনি তাঁর ছাত্রদের জন্য এই সুবর্ণ সুযোগ ছেড়ে দেবেন বলেও আশ্বাস দিয়েছেন তাঁর ছেলেকে।

আরও পড়ুন: ওমিক্রনের চেয়েও ভয়াবহ করোনার আগামী ভ্যারিয়েন্ট, ছড়িয়ে পড়তে পারে দ্রুত: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

ঘটনায় নিরুত্তাপ শিবপ্রকাশম জানিয়েছেন, স্বার্থত্যাগে তাঁর কোনও দুঃখ নেই। কারণ একজন শিক্ষক হিসাবে সুযোগ নিয়ে তিনি একজন ছাত্রকে সুযোগ থেকে বঞ্চিত করতে চান না বলে জানিয়েছেন।

তবে কাউন্সিলিংয়ের জন্য তিনি ধর্মপুর থেকে একজন ছাত্রকে নিয়ে চেন্নাই যাবেন বলে জানিয়েছেন। কারণ ওই সময়ের অভিজ্ঞতা তিনি তাঁর ছাত্রদের মধ্যে ভাগ করে দিতে চান, যাতে তারা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারে সহজেই। পাশাপাশি নিট পরীক্ষা যে সহজ কথা নয় সে কথাও জানাতে ভুলে যাননি অবসরপ্রাপ্ত স্কুলশিক্ষক।

First published:

Tags: Doctor, NEET

পরবর্তী খবর