Home /News /local-18 /

জেলার একমাত্র "ট্রমা সেন্টার" তৈরি হচ্ছে খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে ! দ্রুত চালু করার নির্দেশ জেলাশাসকের

জেলার একমাত্র "ট্রমা সেন্টার" তৈরি হচ্ছে খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে ! দ্রুত চালু করার নির্দেশ জেলাশাসকের

জেলার একমাত্র "ট্রমা সেন্টার" তৈরি হচ্ছে খড়্গপুর মহকুমা হাসপাতালে, দ্রুত চালু করার নির্দেশ জেলাশাসকের।

জেলার একমাত্র "ট্রমা সেন্টার" তৈরি হচ্ছে খড়্গপুর মহকুমা হাসপাতালে, দ্রুত চালু করার নির্দেশ জেলাশাসকের।

খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে একটি ট্রমা সেন্টার বা ট্রমা কেয়ার ইউনিট (Trauma Centre) চালু করার পরিকল্পনা দীর্ঘ দিনের।

  • Share this:

    #খড়গপুর:  খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে একটি ট্রমা সেন্টার বা ট্রমা কেয়ার ইউনিট (Trauma Centre) চালু করার পরিকল্পনা দীর্ঘ দিনের। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যতবারই পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার প্রশাসনিক বৈঠক এসেছেন, ততোবারই বলে গেছেন খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে একটি ট্রমা কেয়ার ইউনিট চালু করা হবে। অবশেষে সেই কাজ শুরু হয়েছে। তবে, কাজ চলছে অত্যন্ত ধীর গতিতে। বুধবার দুপুরে হঠাৎ করেই খড়গপুর মহকুমা হাসপাতাল পরিদর্শনে যান জেলাশাসক ডঃ রশ্মি কমল। কাজের মন্থর গতিতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। এখনও কেন এই ইউনিট চালু করা যায়নি, তা নিয়ে পূর্ত দফতরের কাছে জানতে চান জেলাশাসক। দ্রুত কাজ শেষ করার নির্দেশ দেন জেলাশাসক।

    উল্লেখ্য যে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি শহর খড়গপুর; পাশাপাশি এই শহরের উপর দিয়েই যাচ্ছে দু'টি জাতীয় সড়ক ৬ নং ও ৬০ নং রয়েছে আইআইটি (IIT Kharagpur)'র মতো বড় একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। আছে অন্যতম সুবৃহৎ রেলওয়ে স্টেশন। তাই, এই শহরে একটি "ট্রমা সেন্টার" থাকা নিতান্তই জরুরি বলে মনে করেছেন রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তথা তাঁর প্রশাসন। সর্বোপরি, জাতীয় সড়ক থাকায় প্রতিদিন ঘটছে একাধিক দুর্ঘটনা। সেই কারণেই খড়্গপুর মহকুমা হাসপাতাল ট্রমা কেয়ার ইউনিট বা ট্রমা সেন্টার চালু করার পরিকল্পনা নেয় প্রশাসন। কিন্তু, কি এই ট্রমা সেন্টার? দুর্ঘটনা, পড়ে যাওয়া, গুলি লাগা সহ যেকোন শারীরিক ও মানসিক আঘাতের দ্রুত ও প্রয়োজনীয় চিকিৎসা হয় যে হাসপাতালে, তাকেই ট্রমা সেন্টার বা ট্রমা কেয়ার ইউনিট বলা যেতে পারে।

    বুধবার হঠাৎ করেই খড়গপুর মহকুমা হাসপাতাল পরিদর্শনে আসেন জেলাশাসক ড. রশ্মি কমল। নির্মীয়মান ট্রমা কেয়ার ইউনিট পরিদর্শনের পাশাপাশি, হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ড ঘুরে দেখেন তিনি। তবে, এখনও কেন ট্রমা ইউনিটের কাজ শেষ হয়নি, তা নিয়ে পূর্ত দপ্তরের কাছে জানতে চেয়েছেন জেলাশাসক। এই ইউনিটের জন্য বেশ কিছু সরঞ্জাম কেনা হয়ে থাকলেও, পরিষেবা চালু হয়নি পরিকাঠামো তৈরি না হওয়ার কারণে! এ নিয়ে পূর্ত দফতরের কাছে কৈফিয়ত চাওয়ার পাশাপাশি, হাসপাতালের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তিনি বৈঠকে বসেন, হাসপাতালের সুপার ডাঃ কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায়, অতিরিক্ত জেলা শাসক (জনস্বাস্থ্য ও জেলা পরিষদ) পিনাকী রঞ্জন প্রধান, মহকুমা শাসক আজমল হোসেন, রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান নির্মল ঘোষ, খড়গপুর পৌরসভার প্রশাসক প্রদীপ সরকার এবং হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সদের নিয়ে। বৈঠক শেষে জেলাশাসক ডঃ রশ্মি কমল বলেন, "খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালের পরিকাঠামো খতিয়ে দেখা হয়েছে। ট্রমা কেয়ার ইউনিট দ্রুত চালু করার জন্য ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। পূর্ত দপ্তরকে দ্রুত কাজ শেষ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।"

    Partha Mukherjee

    Published by:Piya Banerjee
    First published:

    Tags: Khargpur, Sub-Divisional Hospital, Trauma center

    পরবর্তী খবর