• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • bangla news: প্রায় ৩০ দিন বাঁধের ওপরেই দিন কাটছে সবংয়ের বন্যাদুর্গতদের ! ভয়াবহ পরিস্থিতি !

bangla news: প্রায় ৩০ দিন বাঁধের ওপরেই দিন কাটছে সবংয়ের বন্যাদুর্গতদের ! ভয়াবহ পরিস্থিতি !

Bangla news: গত তিন দিনে লাগাতার বৃষ্টির জের রাস্তা দেখা গেলেও পুনরায় সেই রাস্তা গুলি পুনরায় বুধবার বিকেলের পর থেকে ডুবতে শুরু করে দিয়েছে। যা নিয়ে ফের চিন্তার ভাঁজ পড়েছে ওই এলাকার মানুষজনের।

Bangla news: গত তিন দিনে লাগাতার বৃষ্টির জের রাস্তা দেখা গেলেও পুনরায় সেই রাস্তা গুলি পুনরায় বুধবার বিকেলের পর থেকে ডুবতে শুরু করে দিয়েছে। যা নিয়ে ফের চিন্তার ভাঁজ পড়েছে ওই এলাকার মানুষজনের।

Bangla news: গত তিন দিনে লাগাতার বৃষ্টির জের রাস্তা দেখা গেলেও পুনরায় সেই রাস্তা গুলি পুনরায় বুধবার বিকেলের পর থেকে ডুবতে শুরু করে দিয়েছে। যা নিয়ে ফের চিন্তার ভাঁজ পড়েছে ওই এলাকার মানুষজনের।

  • Share this:

    #পশ্চিম মেদিনীপুর:  প্রায় ৩০ দিন পেরিয়ে যাওয়ার পর এখনও জলমগ্ন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সবং ব্লকের ভেমুয়া উত্তর, কিশোরপুর,লাউবাড় এলাকা (Midnapore news) । গত তিন দিনে লাগাতার বৃষ্টির জের রাস্তা দেখা গেলেও পুনরায় সেই রাস্তা গুলি পুনরায় বুধবার বিকেলের পর থেকে ডুবতে শুরু করে দিয়েছে। যা নিয়ে ফের চিন্তার ভাঁজ পড়েছে ওই এলাকার মানুষজনের।

    উঁচু পিচ রাস্তার ধারে বাচ্চাদের নিয়ে লম্ফ জেলে রাতের পর রাত কাটাচ্ছে এই এলাকায় ১০০-১৫০ পরিবার। (Midnapore news) সেপ্টেম্বর মাসের প্রথম বৃষ্টিতে ভেমুয়া এলাকা বন্যা পরিস্থিতি তৈরি হয়। আর সেই থেকেই জলমগ্ন বাড়ী ছেড়ে বাঁধে আশ্রয় নিতে হয়েছিল বেশ কিছু পরিবারকে। আজকের দিনেও তারা বাড়ি ফিরতে পারেনি।

    সরকারি অনুদান,অনান্য সংগঠনের সাহা্য্য নিয়েই দিন কাটছে এই সমস্ত পরিবারের। তাঁবুতেই রান্না,খাওয়া,রয়েছে গৃহপালিত(Midnapore news)  পশুরাও।বাড়ি ফেরার আশা বেঁধেছিল মনে। কিন্তু এই তিনদিনের বৃষ্টিতে ফের জলমগ্ন হয়েছে এই এলাকা গুলি।কবে বাড়ীর মুখ দেখবে তা এখনও নিশ্চিত নয় তারা। সাপের ক্ষোপের ভয় তো আছেই।কিন্তু কিছু করার নেই।

    এই ভাবেই রাত কাটছে তাদের। অপরদিকে সবং পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ তরুন মিশ্র বলেন এটা প্রাকৃতিক দূর্যোগ(Midnapore news)। এখানে আমরা খুবই দুর্বল হয়ে পড়েছি। রাজ্যের মন্ত্রী ডঃ মানস রঞ্জন ভুঁইয়া ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ত্রান সামগ্রী আমরা লোকেদের হাতে তুলে দিয়েছি। জেলা পুলিশ ও সবং থানা থেকে কমিউনিটি কিচেনের মাধ্যমেও খাওয়ার দেওয়া হয়েছে।জল আবার বাড়তে শুরু করেছে।

    তিনটি মৌজায় আজকের দিনে বহু বাড়ী জলমগ্ন। বাড়ীতেই থাকতে হচ্ছে তাদের। জল কমে গিয়েছিল।গ্রামীন রাস্তাও দেখা গিয়েছিল।কিন্তু লাগাতার তিনদিনের বৃষ্টিতে ফেল জল বাড়লো এলাকা গুলিতে(Midnapore news)। আমরা সার্বিক ভাবে ওই পরিবার গুলির পাশে আছি। অতিরিক্ত জল বাইরে বের করে দেওয়ার জন্য পাম্প ও বসানো হয়েছে ৬ টি।বর্তমানে সবং ব্লকের এই এলাকার মানুষজন সম্পূর্ন জলবন্দী। করে মুক্তি পাবে তা নিয়েও রয়েছে ধোঁয়াশা।

    Partha Mukherjee 

    Published by:Piya Banerjee
    First published: