Home /News /local-18 /

Bengal News| School to Reopen after 9 years: পড়ুয়ার অভাবে ৯ বছর আগে বন্ধ হওয়া স্কুল ফের চালু করতে উদ্যোগ

Bengal News| School to Reopen after 9 years: পড়ুয়ার অভাবে ৯ বছর আগে বন্ধ হওয়া স্কুল ফের চালু করতে উদ্যোগ

আগামী শিক্ষাবর্ষ (Next Academic Session) থেকে বিদ্যালয়ের দরজা ফের পড়ুয়াদের জন্য (Bengal School) তিনি খুলে দিতে পারবেন বলে আশাবাদী।

  • Share this:

    খাতায়-কলমে চালু থাকলেও, পড়ুয়ার অভাবে বিদ্যালয়ের দরজা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল ২০১২ সালেই! বিদ্যালয়ের ২ জন শিক্ষক এবং ১ জন পার্শ্ব শিক্ষক-কে অস্থায়ীভাবে (local arrangement) পাশাপাশি স্কুলে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল। ৯ বছর ধরে বন্ধ হয়ে পড়ে থাকা সেই প্রাথমিক বিদ্যালয় আগামী শিক্ষাবর্ষের শুরু (January) থেকে ফের চালু করার উদ্যোগ(School to Reopen after 9 years) নিয়েছেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু বিষই।

    আরও পড়ুন মাছের দাম উঠল ৩৬ লক্ষ! সুন্দরবনে দৈত্যাকার মাছ দেখতে ভিড় সাধারণ মানুষের

    গত ২৩ অক্টোবর অর্থাৎ শনিবার, তিনি খড়্গপুর পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডে (শরৎপল্লী এলাকায়) অবস্থিত খড়্গপুর চক্রের অন্তর্গত সেই উত্তর ইন্দা প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শন করেন (Bengal News)। নিজে গিয়ে কথা বলেন বিদ্যালয়ের আশপাশে বসবাসকারী অভিভাবকদের সঙ্গে। আপাতত ৬ জন পড়ুয়া তিনি জোটাতে পেরেছেন স্থানীয়দের সহায়তায়। আগামী শিক্ষাবর্ষ (Next Academic Session) থেকে বিদ্যালয়ের দরজা ফের পড়ুয়াদের জন্য তিনি খুলে দিতে পারবেন বলে আশাবাদী।

    চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু বিষই-এর প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন স্থানীয় প্রাথমিক শিক্ষক তমাল গঙ্গোপাধ্যায়। শনিবার কৃষ্ণেন্দু'র সঙ্গে ছিলেন জেলা তৃণমূল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি অনিমেষ দে সহ অন্যান্য শিক্ষক নেতৃত্বও। সকলেই আশা প্রকাশ করেছেন, চেয়ারম্যান নিজে যখন উদ্যোগী (School reopening) হয়েছেন, নিশ্চয়ই আগাছায় পরিপূর্ণ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ ফের একবার শিশু শিক্ষার্থীদের কলতানে মুখরিত হয়ে উঠবে!

    আরও পড়ুন 'আর বাস চালানো যাবে না'! ডিজেলের দামে মাথায় হাত বীরভূমের বাস মালিকদের

    উল্লেখ্য, গত ২০১০ সাল থেকে এই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সংখ্যা কমতে শুরু করে। ২০১২ সালে এসে তা 'শূণ্যে' পৌঁছে যায়! ওই সাল থেকেই ঝাঁপ বন্ধ হয় বিদ্যালয়ের। তবে, খাতায়-কলমে যেহেতু বিদ্যালয় চালু ছিল, তাই ওই বিদ্যালয়ের ৩ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা'কে লোকাল অ্যারেঞ্জমেন্ট বা অস্থায়ীভাবে পাঠিয়ে দেওয়া হয় পাশাপাশি স্কুলে। সেই থেকে উত্তর ইন্দা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের (Bengal news, West Midnapore School) ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক করুনা মুর্মু, সহ শিক্ষিকা অমৃতা খাঁড়া এবং পার্শ্বশিক্ষক তৃপ্তিনাথ আচার্য অন্য বিদ্যালয়েই নিজেদের দায়িত্ব পালন করছিলেন। কখনও ভাবেননি, অবসরের আগে ফের তাঁরা নিজেদের বিদ্যালয়ে পাঠদান করতে পারবেন! তবে, নিজে উদ্যোগী হয়ে সেই অসম্ভবকে 'সম্ভব' করতে চলেছেন নবনিযুক্ত DPSC চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু বিষই।

    Published by:Pooja Basu
    First published:

    Tags: South bengal news

    পরবর্তী খবর