• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • PURBA MEDINIPUR THE BARGABHIMA TEMPLE HAS BEEN OPENED TO THE PUBLIC PB

সাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে বর্গাভীমা মন্দির

করোনা আবহে প্রায় দুমাস বন্ধ থাকার পর আজ থেকে সাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হল বর্গভীমা মন্দির।

করোনা আবহে প্রায় দুমাস বন্ধ থাকার পর আজ থেকে সাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হল বর্গভীমা মন্দির।

  • Share this:

    #তমলুক: করোনা আবহে প্রায় দুমাস বন্ধ থাকার পর আজ থেকে সাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হল বর্গভীমা মন্দির। করোনাভাইরাস এর দ্বিতীয় ঢেউ ভারতবর্ষজুড়ে আছড়ে পড়লে, বাদ যায়নি পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলা। অন্যান্য জেলার পাশাপাশি পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় করোনা পরিস্থিতি সেইসময় ভয়াবহ হয়ে উঠলে বন্ধ করে দেওয়া হয় নানা মন্দির মসজিদ। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ৫১ সতী পীঠের মন্দির তমলুকের বর্গভীমা সাধারণের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। আজ থেকে আবার সাধারণের জন্য মন্দিরের দরজা খুলে দেওয়া হয়েছে।

    বর্তমান করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই স্থিতিশীল। করোনার গ্রাফ নিম্নমুখী। এরপর তমলুকের বর্গভীমা মন্দির কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে সকাল সাড়ে সাতটা থেকে দুপুর ১.৩০মি পর্যন্ত মন্দির খোলা থাকবে। ঐ সময় যাবতীয় ভক্তদের পূজা নেওয়া হবে। ১.৩০ এর পর আবার বিকেল ৩.৩০ মিনিটে মন্দির খোলা হবে। রাত্রে আটটা পর্যন্ত চলবে যাবতীয় পূজা দেওয়া। তবে মন্দির কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে কড়া ভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে পুজো দেওয়ার সময় ভক্তদের গর্ভগৃহে প্রবেশ করা যাবে না। নাটমন্দির থেকেই যাবতীয় পূজা দিতে হবে এবং পুষ্পাঞ্জলী দিতে হবে।

    বর্গভীমা মন্দির পরিচালনা কমিটির সম্পাদক শিবাজী অধিকারী বলেন, "করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ব্যাপক সংক্রমন ঘটলে সরকারি বিধি নিষেধ অনুযায়ী কার্যত লক ডাউনের ফলে সাধারণের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছিল বর্গভীমা মন্দির। গত বেশ কয়েকদিন আগেই সেই নিষেধ উঠে গিয়ে মন্দিরে সকাল ৭টা থেকে ১০ টা পর্যন্ত পূজা দেওয়া যেত। বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক তাই আবার সাধারণের জন্য মন্দির খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রতিদিন সকাল সাড়ে সাতটা থেকে দুপুর ১.৩০মি পর্যন্ত মন্দির খোলা থাকবে। ঐ সময় যাবতীয় ভক্তদের পুজো নেওয়া হবে। আবার বিকেল ৩.৩০ মিনিটে মন্দির খোলা হবে। রাত্রে আটটা পর্যন্ত দেওয়া যাবে পূজা। তবে মন্দিরে বসে ভোগ খাওয়ার ব্যবস্থা এখনই শুরু করা হচ্ছে না। সমস্ত কোভিড প্রটোকল মেনেই পূজা দিতে পারবে সাধারণ মানুষেরা। মন্দিরে আগত প্রত্যেক দর্শনার্থীর মাস্ক ও স্যানিটাইজার ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।"

    Saikat Shee

    Published by:Piya Banerjee
    First published: