• Home
  • »
  • News
  • »
  • local-18
  • »
  • NORTH 24 PARGANAS MA CANTEEN INAUGURATED BY ASHOKNAGAR KALYANGARH MUNICIPALITY PB

মাত্র পাঁচ টাকার বিনিময়ে দুপুরের আহার, অশোকনগরে চালু হল 'মা ক্যান্টিন'

এই ক্যান্টিনে মাত্র পাঁচ টাকার বিনিময়ে দুস্থ মানুষের দুপুরে আহারের ব্যাবস্থা করা হয়েছে।

এই ক্যান্টিনে মাত্র পাঁচ টাকার বিনিময়ে দুস্থ মানুষের দুপুরে আহারের ব্যাবস্থা করা হয়েছে।

  • Share this:

    #উত্তর ২৪ পরগনা : করোনা সংক্রমণ রুখতে লকডাউন অনিবার্য। আর লকডাউনের কারণে অসহায় দিন‌ আনা দিন খাওয়া মানুষের রুটি রুজি হারিয়ে অনাহারে দিনযাপন করাটাও অনিবার্য হয়ে পড়ে।এই সব অসহায় নিরন্ন মানুষ যাতে অনাহারে দিনযাপন করতে বাধ্য না হন তার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুপ্রেরণায় অনেকদিন আগেই রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে শুরু হয়েছে "মা ক্যান্টিন"। এই ক্যান্টিনে মাত্র পাঁচ টাকার বিনিময়ে দুস্থ মানুষের দুপুরে আহারের ব্যাবস্থা করা হয়েছে।এই অবাক করা ক্যান্টিনের কথা শুনে অশোকনগরে বসবাসকারি লকডাউনে কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের মনে প্রশ্ন জেগেছিল, এইরকম ক্যান্টিন যদি অশোকনগরে চালু হতো তবে আমাদের আর পরিবার সমেত অনাহারে দিন কাটাতে হত না।

    তাদের সেই আশাই এবার পূর্ণ করল অশোকনগর-কল্যাণগড় পৌরসভা। আজ দুপুর থেকেই পৌর ভবনের সামনে শুরু হয়ে গেল "মা ক্যান্টিন"। এই শুভ উদ্যোগের শুভ সূচনা করেন অশোকনগরের বিধায়ক নারায়ণ গোস্বামী। সংক্ষিপ্ত ভাষণে অসহায় মানুষের‌ কল্যাণে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ে অন্যান্য কর্মসূচীর মত এই পৌর এলাকার মানুষের জন্য "মা ক্যান্টিন" চালু করার জন্য পৌর প্রশাসক প্রবোধ সরকার সহ অন্যান্য কো-অর্ডিনেটর ও পৌর কর্মিদের ধন্যবাদ জানান শ্রী নারায়ন গোস্বামী মহাশয়। বিধায়ক পৌরসভার প্রতি একটি মানবিক আবেদন জানিয়ে আরও বলেন, 'অনেকেই হয়তো প্রস্তুত হয়ে আসেনা কিংবা পাঁচটা টাকাও জোগার করতে পারছে না, কিন্তু তাকে যেন ফিরিয়ে দেওয়া না হয়। খেয়াল রাখতে হবে, একজন মানুষ‌ও যেন এই মা ক্যান্টিন থেকে অভুক্ত অবস্থায় ফেরৎ না যায়। এই রকম মানুষ এলে তাকে কুপনের ব্যবস্থা করে দিয়ে আমাকে জানাবেন আমি তাদের কুপনের টাকা দিয়ে দেব'।

    অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সমীর দত্ত, অনুপ রায়, চিরঞ্জিব সরকার, সঞ্জয় রাহা, কৃষ্ণা চক্রবর্তি প্রমুখ। আজ প্রথম দিন মেনুতে ছিল ডাল, তরকারি ও ডিমের ঝোল। এই ক্যান্টিন প্রতিনিয়ত চলবে বলে জানান পৌরসভার কর্তৃপক্ষ। প্রতিদিন ২০০ জন করে দুঃস্থ মানুষদের আহারের ব্যবস্থা থাকবে বলে জানান পৌরসভার পৌর প্রশাসক প্রবোধ সরকার মহাশয়।

    রাতুল ব্যানার্জি

    Published by:Piya Banerjee
    First published: