সঙ্গমের চেয়ে ভিডিও গেম বেশি আনন্দ দেয়, সাফ জানাচ্ছে তরুণ সম্প্রদায়

সঙ্গমের চেয়ে ভিডিও গেম বেশি আনন্দ দেয়, সাফ জানাচ্ছে তরুণ সম্প্রদায়!

নিউ ইয়র্ক এবং রাটগার্স ইউনিভার্সিটির এই সমীক্ষা বলছে যে তরুণ সম্প্রদায় না কি সঙ্গমের চেয়েও বেশি আনন্দ লাভ করে থাকে ভিডিও গেম খেলে!

  • Share this:

#নিউ ইয়র্ক: তরুণ সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে যে সব অভিযোগ ওঠে, দেখা যাচ্ছে যে কার্যত তার কিছুটা ঠিক আর বাকিটা ভুল! আসলে কী দেশে হোক, কী বিদেশে, তরুণ সম্প্রদায় যে বড় বেশি যন্ত্রনির্ভর, সে অভিযোগ মাঝে মাঝেই উঠে আসে। আবার, তারা যে অনেক দিক থেকে বাঁধনছাড়া, জীবনযাপনে সংযমের কোনও ধার ধারে না, তেমন অভিযোগও কম নয়। কিন্তু সম্প্রতি নিউ ইয়র্ক এবং রাটগার্স ইউনিভার্সিটি যে সমীক্ষার ফলাফল সামনে নিয়ে এল, তার ভিত্তিতে দেখা যাচ্ছে যে এই সব অভিযোগ অংশত সত্যি! অর্থাৎ তারা যন্ত্রনির্ভর ঠিকই, তবে জীবনে যৌনতা আছে কী নেই, সেটা নিয়ে তারা বড় একটা ভাবিত নয়!

নিউ ইয়র্ক এবং রাটগার্স ইউনিভার্সিটির এই সমীক্ষা বলছে যে তরুণ সম্প্রদায় না কি সঙ্গমের চেয়েও বেশি আনন্দ লাভ করে থাকে ভিডিও গেম খেলে! ২০০০ তরুণ এবং তরুণীকে নিয়ে পরিচালিত এই সমীক্ষার রিপোর্ট বলছে যে গত বছরের তুলনায় তাদের যৌনতায় প্রবৃত্ত না হওয়ার পরিমাণ বেড়ে গিয়েছে অনেকটাই- ১১.৭ শতাংশ থেকে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫.২ শতাংশে। কিন্তু কেন এমন হচ্ছে?

দেখা গিয়েছে যে তরুণদের মধ্যে গত বছরে যৌনতায় প্রবৃত্ত না হওয়ার পরিসংখ্যান ছিল ১৮.৯ শতাংশ, সেটা এই বছরে এসে দাঁড়িয়েছে ৩০.৯ শতাংশে। তরুণরা খোলাখুলি জানিয়েছে যে এর পিছনে রয়েছে মদ্যপানের অভ্যাস। মদ্যপানের পরে আলস্যের কারণে তাদের আর যৌনতায় প্রবৃত্ত হতে ইচ্ছা করছে না, অনেকের ক্ষেত্রে মদ্যপানের অভ্যাস সেক্সুয়াল আর্জে বাধা তৈরি করছে। এর ঠিক পরেই উঠে এসেছে ভিডিও গেম খেলার কথা। ভিডিও গেম নিয়ে তারা এতটাই ব্যস্ত যে জীবনের অন্য কোনও দিকে তাদের তাকানোর ফুরসত নেই!

তরুণীদের মধ্যেও কারণ হিসেবে সবার প্রথমে উঠে এসেছে ওই মদ্যপানের প্রসঙ্গই! এছাড়া লিঙ্গ নির্বিশেষে আরেকটা সমস্যাও রয়েছে। এঁদের অনেকেই মা-বাবার সঙ্গে এক বাড়িতে থাকেন, ফলে জায়গা নিয়েও একটা সমস্যা তৈরি হয়েছে। অনেকে আবার পর্নোগ্রাফিতেই মন দিয়েছেন, ফলে বাস্তবে শারীরিক সুখলাভের দরকার তাঁদের পড়ছে না!

Published by:Ananya Chakraborty
First published: