• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • এই শীতে রোগপ্রতিরোধক্ষমতা বাড়াতে পান করুন কমলালেবু ও ধনেপাতার জুস, রইল রেসিপি

এই শীতে রোগপ্রতিরোধক্ষমতা বাড়াতে পান করুন কমলালেবু ও ধনেপাতার জুস, রইল রেসিপি

বাড়িতেই বানিয়ে ফেলা যাক কমলালেবু ও ধনেপাতার জুস

বাড়িতেই বানিয়ে ফেলা যাক কমলালেবু ও ধনেপাতার জুস

বাড়িতেই বানিয়ে ফেলা যাক কমলালেবু ও ধনেপাতার জুস

  • Share this:

ধীরে ধীরে শীত পড়তে শুরু করেছে। ঠাণ্ডা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নানা ধরনের ভাইরাল জ্বর, হজমের সমস্যা, পেট খারাপসহ একাধিক সমস্যা দেখা দেয়। এই সময়ে বাতাসে দূষণের পরিমাণও বেড়ে যায়। তাই অনেকেই শ্বাসকষ্টে ভুগতে শুরু করেন। ইতিমধ্যেই করোনা নামের এক মারণ ভাইরাসের শিকার আমরা। তার উপরে এই বিষয়গুলির জেরে আতঙ্ক আরও বাড়ছে। এই মুহূর্তে শরীর সুস্থ রাখা, রোগপ্রতিরোধক্ষমতা বাড়ানো, সর্বোপরি সুস্বাস্থ্যের দিকে নজর না দিলেই নয়! সিজনাল ডিজিজ থেকে বাঁচতে অনেকেই শীতকালীন নানা ফল ও সবজি খাওয়ার উপরে জোর দিচ্ছেন। গোটা কমলালেবুর পাশাপাশি অনেকে এই সময়ে কমলালেবুর জুস খান। তবে সেই জুসেই দু'-একটি জিনিস যোগ করে বাড়িয়ে তোলা য়ায় পুষ্টিগুণ। শরীরের রোগপ্রতিরোধক্ষমতা বাড়াতে পান করা যেতে পারে কমলালেবু ও ধনেপাতার জুস।

আসলে একটি অত্যন্ত কার্যকরী অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট হল ভিটামিন C। আমাদের ত্বক, চুল ভালো রাখার পাশাপাশি নানা সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়ার জন্য শরীরকে আরও দৃঢ় ও মজবুত করে এই ভিটামিন। অক্সিডেটিভ স্ট্রেস থেকেও বাঁচায় এই ভিটামিন। কোষগুলিকে সতেজ থাকতে সাহায্য করে। তাই শরীরের জন্য অত্যন্ত জরুরি ভিটামিন C। উল্লেখ্য, টক ও লেবুজাতীয় ফলেই প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায় এটি। বেশ কিছু সবজিতেও রয়েছে। তাই এই শীতের সময়ে বাড়িতে তৈরি করে ফেলা যায় কমলালেবু ও ধনেপাতার এই জুস। সঙ্গে যোগ করা যায় অল্প গাজর।

কমলালেবুর এই জুসে ধনেপাতা ও গাজর শুধুমাত্র স্বাদ বাড়ানো বা ফ্লেভার অ্যাড করার কাজ করে না, জুসের পুষ্টিগুণও বাড়ায়। ভিটামিন C-র অন্যতম উৎস হল গাজর। বেটা ক্যারোটিন ও ভিটামিন B6-ও থাকে এই সবজিতে। এই সবক'টি উপাদানই শরীরের রোগপ্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। অন্য দিকে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট থাকে সতেজ সবুজ ধনেপাতায়। যা হৃদরোগ ও নানা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়তে সাহায্য করে।

জেনে নেওয়া যাক এই জুস তৈরিতে কী কী প্রয়োজন:

প্রথমে কমলালেবুগুলি ছাড়িয়ে ফেলতে হবে। এর পর ধনেপাতা নিয়ে পরিস্কার করে ধুয়ে ফেলতে হবে। এই কাজগুলি হয়ে গেলে গাজর কেটে ধুয়ে নিতে হবে। সব শেষে পরিমাণ মতো লেবুর জুস বের করে নিতে হবে। এক চা-চামচ মতো লেবুর রস হলেই হবে।

কী ভাবে তৈরি করতে হবে এই জুস:

এ ক্ষেত্রে জুসারে গাজর, কমলালেবু, লেবুর রস, ধনেপাতা মিশিয়ে, প্রয়োজন হলে অল্প জল দিয়ে জুস তৈরি করে নিতে হবে।

জুস তৈরি হয়ে গেলে সার্ভ করার পালা! তবে অতিরিক্ত চিনি না দেওয়াই ভালো! কারণ জুসে গাজর রয়েছে। তা ছাড়া কমলালেবু ও ধনেপাতা একটা দারুণ ফ্লেভার যোগ করে, বেশি চিনি দিলে যা নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: