মধুমেহ নিয়ন্ত্রণ থেকে ওজন কমানো, কালোজাম এবং এর বীজ জুড়িহীন

ফাইল ছবি

বাঙালির খাদ্যাভ্যাসে আম, লিচুর মতো কুলীনও নয় সে ৷ কিন্তু জামের খাদ্যগুণ ও পুষ্টিমূল্য প্রচুর ৷

  • Share this:

    জামের মেয়াদ খুব ক্ষণস্থায়ী ৷ খুব বেশিদিনের জন্য পাওয়া যায় না এই মরসুমি ফল ৷ বাঙালির খাদ্যাভ্যাসে আম, লিচুর মতো কুলীনও নয় সে ৷ কিন্তু জামের খাদ্যগুণ ও পুষ্টিমূল্য প্রচুর ৷ আসুন, দেখে নিই কোন কোন দিকে এই ফল আমাদের উপকার করে ৷

    # মধুমেহ রোগ নিয়ন্ত্রণে জামের ভূমিকা অপরিসীম ৷ জামের বীজে থাকে জ্যাম্বোলিন এবং জ্যাম্বোসাইন ৷ এই দুই উপাদানের ফলে রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রিত থাকে ৷ পাশাপাশি শরীরে ইনসুলিন উৎপাদনও বৃদ্ধি পায় ৷

    # পেটের অসুখ সারাতেও জামের বীজ জুড়িহীন ৷ বীজ ছাড়াও জামের শাঁস ও খোসা ফাইবারে সমৃদ্ধ ৷ ফলে জামের প্রভাবে পরিপাক ক্রিয়া ভাল হয় ৷ আলসার-সহ ক্ষুদ্রান্তের অন্যান্য সমস্যায় জামের বীজ ব্যবহৃত হয় আয়ুর্বেদিক ওষুধের উপাদান হিসেবে ৷

    # মধুমেহর মতো আজকের নাগরিক জীবনে আরও একটি অতি পরিচিত অসুখ হল হাইপারটেনশন ৷ এই অসুখেও জাম এবং এর বীজ কার্যকরী ৷

    # জামে ফ্ল্যাভোনোয়েডস এবং ফেনোলিক যৌগর উপস্থিতি শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃ্দ্ধি করে ৷ ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতেও এই ফল ফলপ্রসূ ৷

    # বিটনুন মাখা কালোজামের স্বাদ বর্ষাকালে স্বর্গীয় ৷ এর বীজ খাওয়া যায় নানাভাবে ৷ গুঁড়ো করে খাওয়া যায় জলের সঙ্গে মিশিয়ে ৷ স্মুদি বা অন্য খাবারের উপাদান হিসেবেও ব্যবহৃত হয় এই গুঁড়ো ৷ জাম খাওয়ার পর এর বীজ ফেলে না দিয়ে ভাল করে পরিষ্কার করে রাখুন ৷ তার পর রোদে শুকিয়ে গুঁড়ো করে নিন ৷ এয়ারটাইট কৌটোতে রেখে দিলে বহুদিন ব্যবহার করতে পারবেন ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: