Home /News /life-style /

Child Vaccination: ভ্যাকসিনের জন্য সন্তানকে প্রস্তুত করবেন কী ভাবে? উপায় বলে দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা

Child Vaccination: ভ্যাকসিনের জন্য সন্তানকে প্রস্তুত করবেন কী ভাবে? উপায় বলে দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা

শিশুদের তৈরি করুন

শিশুদের তৈরি করুন

Child Vaccination: ওমিক্রনের হাত থেকে কী ভাবে রক্ষা পাবে শিশুরা? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এর হাত থেকে বাঁচতে ভ্যাকসিন জরুরি।

  • Share this:

#কলকাতা: হু-হু করে ছড়াচ্ছে ওমিক্রন (Omicron)। আক্রান্ত হচ্ছেন ৮ থেকে ৮০। রেহাই পাচ্ছে না শিশুরাও। এটাকেই থার্ড ওয়েভ বলছে বিশেষজ্ঞরা। প্রশ্ন উঠছে, ওমিক্রনের হাত থেকে কী ভাবে রক্ষা পাবে শিশুরা? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এর হাত থেকে বাঁচতে ভ্যাকসিন জরুরি। এ জন্য বাচ্চাদের টিকাকরণে ছাড়পত্র দিয়েছে কেন্দ্রও।

করোনা অতিমারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ে বেহাল হয়ে পড়েছিল স্বাস্থ্য ব্যবস্থা। হাসপাতালে বেডের আকাল, অক্সিজেনের ঘাটতিতে ত্রাহি ত্রাহি রব উঠেছিল দেশ জুড়ে। করোনায় মৃতদের সারি সারি লাশ ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছিল গঙ্গায়। সামনে এসেছিল গণচিতার ছবিও। ওমিক্রন ঘিরে আতঙ্কের মধ্যে সেই ভয়াবহতা যাতে ফিরে না আসে তার জন্য কোমর বাঁধছে সরকার।

আরও পড়ুন: ওমিক্রন আবহে সুরক্ষিত রাখতে চান আপনার সন্তানকে? ওকে দিন সহজ এই আয়ুর্বেদিক টোটকা

ইতিমধ্যেই ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের ভ্যাকসিন দিতে শুরু করছে কেন্দ্র। ১ জানুয়ারি থেকে কোউইন অ্যাপে শুরু হয়েছে রেজিস্ট্রেশন। ৫ জানুয়ারি থেকে চালু হবে টিকাকরণ। আপাতত বাচ্চাদের কোভ্যাক্সিনই (Covaxin) দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে কেন্দ্র। তবে সন্তানকে টিকা দেওয়ার আগে বেশ কিছু জিনিস মাথায় রাখতেই হবে।

আরও পড়ুন: একঘেয়ে স্ন্যাকসে বিরক্ত, নিরামিষ ও স্বাস্থ্যকর গুজরাতি স্ন্যাকসে মাতুন এবার

চিকিৎসকের পরামর্শ যদি সন্তানের অ্যালার্জি বা গুরুতর কোনও রোগ থাকে তবে ভ্যাকসিনের স্লট বুক করার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

ব্যথা-জ্বালার ওষুধ ভ্যাকসিন দেওয়ার আগে বাচ্চাকে নন-স্টেরয়েডাল অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি ড্রাগ দেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন অনেক চিকিৎসকই। এতে ব্যথা কমে, জ্বালা-প্রদাহ কিংবা জ্বর আসার সম্ভাবনাও অনেকটা কমে যায়।

ঘুম, ব্যায়াম এবং পুষ্টিকর খাবার ভ্যাকসিন নেওয়ার আগের কয়েকদিন বাচ্চা যেন ভালো করে ঘুমোয়। তার প্রতিদিনকার খেলাধুলো, পুষ্টিকর খাবার এবং ঠিক মতো ঘুম হলেই প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেকটা বাড়বে। তাই এই বিষয়ে নজর দিতেই হবে।

জ্বর স্বাভাবিক ভ্যাকসিন নেওয়ার পরদিন সামান্য জ্বর, গা, হাত-পায়ে ব্যথা, পেশিতে টান থাকে। ঘাবড়ানোর কিছু নেই। এটা স্বাভাবিক ব্যাপার। আর এমনটা হলেই কিন্তু বুঝতে হবে ভ্যাকসিন শরীরে ঠিক মতো কাজ করছে।

এমার্জেন্সি যদি সন্তানের অ্যালার্জি বা গুরুতর কোনও রোগ থাকে এবং যদি দেখা যায় ভ্যাকসিন নেওয়ার ৩ দিন পরেও জ্বর কমছে না, তবে দেরি না করে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

পেইন কিলার চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া বাচ্চাকে পেইন কিলার দেওয়া ঠিক নয়। ইঞ্জেকশন নেওয়ার জায়গায় ব্যথা থাকলে সন্তানকে প্রচুর পরিমাণে জল খাওয়াতে হবে। কোল্ড প্রেস করলেও আরাম পাওয়া যায়। সমস্যাও কমে।

First published:

Tags: Child, Covid 19 Vaccine

পরবর্তী খবর