• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • স্বামী বিবেকানন্দর অল টাইম ফেভারিট 'পীরুর ফাউলকারি'

স্বামী বিবেকানন্দর অল টাইম ফেভারিট 'পীরুর ফাউলকারি'

১৮৯৭ সালের ১মে ৷ কলকাতায় বিবেকানন্দ প্রতিষ্ঠা করেন ধর্ম প্রচারের সংগঠন ‘রামকৃষ্ণ মঠ’ এবং সামাজিক কাজের জন্য ‘রামকৃষ্ণ মিশন’ ৷ যা ছিল শিক্ষামূলক, সাংস্কৃতিক, চিকিৎসা-সংক্রান্ত এবং দাতব্য কাজের মধ্য দিয়ে জনগণকে সাহায্য করার এক সামাজিক-ধর্মীয় আন্দোলনের সূচনা ৷

১৮৯৭ সালের ১মে ৷ কলকাতায় বিবেকানন্দ প্রতিষ্ঠা করেন ধর্ম প্রচারের সংগঠন ‘রামকৃষ্ণ মঠ’ এবং সামাজিক কাজের জন্য ‘রামকৃষ্ণ মিশন’ ৷ যা ছিল শিক্ষামূলক, সাংস্কৃতিক, চিকিৎসা-সংক্রান্ত এবং দাতব্য কাজের মধ্য দিয়ে জনগণকে সাহায্য করার এক সামাজিক-ধর্মীয় আন্দোলনের সূচনা ৷

স্বামী বিবেকানন্দর অল টাইম ফেভারিট 'পীরুর ফাউলকারি'-র রেসিপি

  • Share this:

    #কলকাতা: স্বামী বিবেকানন্দ পয়লা বৈশাখ উদধাপন করতেন কিনা জানা নেই! জানা নেই, তিনি সেদিন স্পেশাল কিছু খেতেন কী না! তবে, খাদ্যরসিক বিবেকানন্দর অল-টাইম ফেভারিট আইটেম ছিল- 'পীরুর ফাউলকারি'। কাজেই, ধরে নেওয়াই যায়, কোনও না কোনও পয়লা বৈশাখে তিনি নিশ্চয়ই কব্জি ডুবিয়ে খেয়েছিলেন 'পীরুর ফাউলকারি'!

    এবার প্রশ্ন, ফাউলকারি তো জানা পদ। কিন্তু 'পীরুর ফাউলকারি'-টা কী বস্তু? এই রহস্যর সমাধান করতে সাহায্য নিতে হবে স্বামী অভেদানন্দর। তিনি লিখেছিলেন,

    সে দিন নরেন বলিল, চল আজ তোদের কুসংস্কার ভাঙিয়া দিই। আমি তৎক্ষণাৎ বলিলাম, বেশ কথা, চলো। তারক, শরৎ, যোগেন, নিরঞ্জন আমার কথায় যোগদান করিল। সন্ধার সময়ে কাশীপুর বাগান হইতে পদব্রজে আমরা নরেনের সঙ্গে বিডন স্ট্রিটে বর্তমানে যেখানে মিনার্ভা থিয়েটার, তার নিকটে পীরুর দোকানে উপস্থিত হইলাম। নরেন ফাউলকারি অর্ডার দিল।...রাত্রে কাশীপুরে ঠাকুর জিজ্ঞাসা করিলেন, কোথায় গিয়েছিলে? আমি বলিলাম, কলিকাতার বিডন স্ট্রিটে পীরুর দোকানে। ঠাকুর জেনে নিলেন, কে কে গিয়েছিল। তার পর জানতে চাইলেন কী খেলি? 'আমি বলিলাম মুরগির ডালনা।

    একদিক থেকে স্বামী অভেদানন্দ ঠিকই বলেছিলেন! দেশী মুরগির ডালনারই অ্যাংলো ইন্ডিয়ান ভাইপো ফাউলকারি।

    মুরগির মাংসে ৩ টেবিল চামচ রসুন কুচি, ৩টে পেঁয়াজ কুচি করে কাটা, ১টা টোম্যাটো কুচি করে কাটা, নুন, ৩ টেবিল চামচ ধনেপাতা, ১ চা চামচ হলুদ, ২ টেবিল চামচ লঙ্কাগুঁড়ো, ১ টেবিল চামচ ধনেগুঁড়ো, ২টো দারচিনির কাঠি, ৩টে লবঙ্গ, ১টা তেজপাতা আর ২ টেবিল চামচ সর্ষের তেল মেখে ১ ঘন্টা রেখে দিন। কড়াই ভাল করে গরম করে নিয়ে, ম্যারিনেট করে রাখা মাংস দিয়ে কষাতে থাকুন।

    তেল ছাড়তে শুরু করলে, আঁচ কমিয়ে ২ গ্লাস মেশান। ঢিমে আঁচে ষাকনা চাপা দিয়ে ৪৫ মিনিট মতো রান্না করুন, যতক্ষণ না মাংস পুরোপুরি সেদ্ধ হচ্ছে। তৈরি ফাউলকারি! কলকাতায় পীরুবাবুর দোকানের ফাউলকারিই একমাত্র পছন্দ করতেন স্বামীজি। কাজেই, নিজে থেকেই নামকরণ করে দিয়েছিলেন-- 'পীরুর ফাউলকারি"!

    আরও পড়ুন-পয়লা বৈশাখে কিশোর কুমারের ফেভারিট মাখন চিংড়ি আর গোটা মশলার মাংস

    First published: