Costliest Mango: প্রতি কেজি ২ লাখ ৭০ হাজার টাকা ! মহার্ঘ্যতম ‘দামিনী’ আম-দরবারের রানি

প্রতীকী ছবি-শাটারস্টক

কেউ ল্যাংড়া আম ভালোবাসেন, আবার কারও পছন্দ হিমসাগর। কিন্তু এই বিশ্বের সবচেয়ে দামি আম কি জানা আছে?

  • Share this:

#Mango Day 2021: ভারতে প্রতি বছর ২২ জুলাই জাতীয় আম দিবস (National Mango day) পালন করা হয়। আম হচ্ছে ফলের রাজা। এর সুস্বাদু রসে মজেননি এমন মানুষ কমই আছে। বলা হয় যে প্রায় ৫ হাজার বছর ধরে ভারতে আম খাওয়ার রেওয়াজ চলে আসছে। বিভিন্ন প্রদেশের বিভিন্ন স্বাদে আমের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে ভারতের সংস্কৃতি।

কেউ ল্যাংড়া আম ভালবাসেন, আবার কারও পছন্দ হিমসাগর। কিন্তু এই মুহূর্তে বিশ্বের সবচেয়ে দামি আমের নাম কি জানা আছে?

আমের নাম মিয়াজাকি

আন্তর্জাতিক বাজারে মিয়াজাকি আমের দাম ২.৭০ লাখ টাকা প্রতি কেজি! এর আকাশছোঁয়া দামের জন্য একে নাম দেওয়া হয়েছে ‘সূর্যের ডিম’ বা ‘সান’স এগ’ হিসাবে। অর্থাৎ এটি দুর্মূল্য ও দুষ্প্রাপ্য।

কোথায় পাওয়া যায়

এই আম পাওয়া যায় জাপানে। এখানকার মিয়াজাকি শহরে প্রথম এই আম উৎপন্ন হয়েছিল বলেই এরকম নাম দেওয়া হয়েছে।

কিছু জরুরি তথ্য

এই আমের প্রতিটির ওজন ৩৫০ গ্রাম কাছাকাছি। রঙ টুকটুকে লাল।

দক্ষিণপূর্ব এশিয়াতে যে হলুদ রঙের আম দেখা যায় তার চেয়ে এটা আলাদা। এটা ইরউইন প্রজাতির আম। তাই অন্যরকম দেখতে।

আকারে বড় ও ডিম্বাকৃতি হয় বলে একে অনেক সময় ডাইনোসরের ডিম বা ড্রাগনের ডিমও বলা হয়।

মিয়াজাকির ভারতবাস

মধ্যপ্রদেশের সঙ্কল্প পরিহার ও তাঁর স্ত্রী রানি দু'টো মিয়াজাকি আমের গাছ লাগিয়েছিলেন তাঁদের জব্বলপুরের বাগানে। গত বছর চেন্নাই যাওয়ার সময় ট্রেনে এক ব্যক্তির কাছ থেকে তাঁরা এই আমের চারা কিনেছিলেন।

তবে সেই সময় পরিহার দম্পতি জানতেনই না যে তাঁরা যে আমের চারা কিনেছেন সেটা বিশ্বের সব চেয়ে দামি আম। অন্যান্য গাছের মতোই নিজেদের বাগানে তাঁরা এই গাছের চারাও পুঁতে দিয়েছিলেন। টনক নড়ল যখন দেখলেন যে এই গাছের আমের রঙ একেবারেই আলাদা।

সঙ্কল্পের মায়ের নাম অনুযায়ী এই আমের নাম রাখা হয় দামিনী। খবর চাউর হতেই এই আম চুরি করতে আসে অনেকেই। তাদের হাত থেকে বাঁচাতে দামিনীকে পাহারা দিচ্ছে ৪ জন প্রহরী ও ৬ টি কুকুর।

এক ব্যবসায়ী এই আম ২১ হাজার প্রতি কেজি দরে কিনতে ইচ্ছুক ছিলেন। কিন্তু সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়ে সঙ্কল্প ও রানি মহার্ঘ্য গাছের প্রথম আম ভগবানকে নিবেদন করেছেন।

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: