Viral Video: ‘ঝাঁট দেব, ঘর মুছব, এ রকম বাবা-মা’র দরকার নেই’ পড়তে বসে কেঁদে আকুল হয়ে বলছে খুদে!

Viral Video: ‘ঝাঁট দেব, ঘর মুছব, এ রকম বাবা-মা’র দরকার নেই’ পড়তে বসে কেঁদে আকুল হয়ে বলছে খুদে!

পড়াশোনা করতে বলায় কেঁদে আকুল হল শিশু । ছবি-ফেসবুক

পড়াশোনা করতে তার ভাল লাগছে না । তার চেয়ে বরং সে বাবা-মায়ের কথা মতো ঘর মুছবে, ঘর ঝাঁট দেবে, পা টিপে দেবে ।

  • Share this:

    #কলকাতা: এ দেশে কত ধরনের ঘটনাই না ঘটে প্রতিদিন । ১৩০ কোটির দেশে কত ধরনের মানুষ... তাঁদের ভাষা আলাদা, সংস্কৃতি আলাদা, জাতি আলাদা, শখ-স্বভাব-আচার-ব্যবহার সবই আলাদা । তাই এ দেশের গলিতে গলিতে লুকিয়ে রয়েছে হরেক কিসিমের যত কাণ্ড কারখানা । আর আজকাল সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে সে সমস্ত খবর নিমেষে মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে যাচ্ছে । নিমেষের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যাচ্ছে সে সব । কখনও ছবি, কখনও ভিডিও, কখনও অডিও । এই সমস্ত ভাইরাল খবরে বিতর্ক যেমন তৈরি হচ্ছে, তেমনই নিখাদ মজার ঘটনা আনন্দও দিচ্ছে মানুষকে ।

    যেমন এই ভিডিওটি । পুঁচকে এক শিশুর মুখের কথা আর তার হাবভাবে এখন মজে রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া । সম্প্রতি ফেসবুকে নতুন একটি ভিডিও পোস্ট হয়েছে, যা দেখে হাসতে হাসতে লুটিয়ে পড়ছেন নেটিজেনরা । ফলে পোস্ট হওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যেই ভিউয়ার সংখ্যা লাখ ছাড়িয়ে গিয়েছে । এই মুহূর্তে ভিডিওটি রীতিমতো ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায় ।

    ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, ছোট্ট মেয়েটিকে পড়তে বসিয়েছে তার মা । কিন্তু কিছুতেই লিখবে না সে । অঝোর ধারায় কেঁদেই চলেছে খুদে । আর সবচেয়েও মজার তার মুখের কথাগুলি । তার বক্তব্য, সে ঘর ঝাঁট দেবে, ঘর মুছবে । বাবা-মায়ের কথা সে মেনে নেবে । এমনকি সে এমনও বলছে, এ রকম বাবা-মা তার দরকার নেই । বড় হয়ে দরকারে সে ঘরের কাজ করবে, বাবা-মা’র পা টিপে দেবে, তবু পড়াশোনা সে করবে না । সেই খুদে আবার এমনও বলেছে, কাজ করতে করতে সে কালো হয়ে যাবে, তবু কাজ করে যাবে । আধো আধো উচ্চারণে ছোট্ট মেয়েটির মুখে এমন কষ্টের কথা শুনে নেটিজেনরা অনেকে মশকরা করেছেন, আবার অনেকে সহানুভূতিশীলও হয়েছেন ।

    প্রচুর মানুষ কমেন্ট করেছেন ভিডিওটিতে । বহু সুস্থ বুদ্ধিসম্পন্ন, অনুভূতিপ্রবণ মানুষই বাচ্চাটির মা’কে কাঠগোড়ায় দাঁড় করিয়েছেন, নিজের বাচ্চার উপর এমন কঠিন, কঠোর হওয়ার জন্য । এবং গোটা ঘটনার ভিডিও বানিয়ে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করার জন্য । বাচ্চাটিকে তার বয়সের অনুযায়ী বেশিই শাসন করা হচ্ছে, কেড়ে নেওয়া হচ্ছে তাঁর শৈশব, তার প্রতি নির্মমতা দেখাচ্ছেন বাবা-মা, এমন মন্তব্যও করেছেন অনেকে ।

    Published by:Simli Raha
    First published: