• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • Beauty Tips|| আপনি কি ঘাড়ের কালোভাব নিয়ে নাজেহাল? জানুন কীভাবে সহজেই ত্বক উজ্জ্বল করবেন!

Beauty Tips|| আপনি কি ঘাড়ের কালোভাব নিয়ে নাজেহাল? জানুন কীভাবে সহজেই ত্বক উজ্জ্বল করবেন!

ঘাড়ের কালোভাব নিয়ে নাজেহাল।

ঘাড়ের কালোভাব নিয়ে নাজেহাল।

How to get rid of dark patch in your neck: মানাইসই পোশাকের সঙ্গে ঠিকঠাক মেক আপ করেও ঘাড়ের কালো ছাপ বেশ অস্বস্তিতে ফেলে দেয়। গায়ের রং ফর্সা বা কালো হলেও অনেকেই শরীরের কোনও নির্দিষ্ট জায়গায় কালোভাবের সমস্যায় ভোগেন।

  • Share this:

#কলকাতা: মানাইসই পোশাকের সঙ্গে ঠিকঠাক মেক আপ করেও ঘাড়ের কালো ছাপ বেশ অস্বস্তিতে ফেলে দেয়। গায়ের রং ফর্সা বা কালো হলেও অনেকেই শরীরের কোনও নির্দিষ্ট জায়গায় কালোভাবের সমস্যায় ভোগেন। আর তা যদি ঘাড়ে হয় তাহলে তো যথেষ্ট উদ্বেগের কারণ হয়ে দাড়ায়। অনেক ধরনের প্রসাধনী ব্যবহার করেও অনেক সময় সুরাহা হয় না। তবে সময় সাপেক্ষ হলেও বেশ কিছু ঘরোয়া টোটকা এবং চিকিৎসার মাধ্যমে আমরা ঘাড়ের কালোভাবের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে পারি।

এক্সফোলিয়েশন:

আলফা-হাইড্রক্সি অ্যাসিড এবং বিটা-হাইড্রক্সি অ্যাসিড দিয়ে এক্সফোলিয়েট করলে তা ত্বক উজ্জ্বল হয়ে ওঠে এবং এটি ত্বক পরিষ্কার করতেও সাহায্য করে। এক্ষেত্রে দিনে দু'বার এই ধরনের রাসায়নিক রয়েছে এমন প্রোডাক্ট দিয়ে ঘাড় পরিষ্কার করলে তা সুফল পাওয়া যায়।

চিকিৎসা:

কোনও ত্বক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিয়ে লেজার থেরাপিও করা যায়। তবে এই ধরনের চিকিৎসা করার আগে অবশ্যই সব দিক ভালো করে পরীক্ষা করে নেওয়া উচিত। কারণ ঘাড়ের কালো দাগের পিছনে শরীরের কোনও সমস্যাও লুকিয়ে থাকলে তা চিহ্নিত করতে হবে।

আরও পড়ুন: সাবধান! জল খাওয়ার সময় আপনিও কি এই ভুলগুলি করেন?

রেটিনয়েড:

ঘাড়ের কালোভাব কমাতে রেটিনয়েড ব্যবহার করে স্কিন পিলিং করা যায়। তবে এক্ষেত্রেও ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া এই ধরনের চিকিৎসা করা উচিত নয়।

ফেস অথবা নেক মাস্ক ব্যবহার:

সপ্তাহে দুই-তিন দিন মুখের অথবা ঘাড়ের মাস্ক ব্যবহার করলেও উপকার পাওয়া যায়।

আরও পড়ুন: সুখী বৈবাহিক জীবনের স্বপ্ন নিয়ে পা দিচ্ছেন নতুনা জীবনে? সাবধান হন 'বিয়ের কার্ড' নিয়ে...

অ্যালোভেরা জেল:

অ্যালোভেরার মধ্যে অ্যালোইন নামক এক ধরনের ডিপিগমেন্টিং উপাদান থাকে। তাই রাতে ঘুমানোর সময় অ্যালোভেরা লাগিয়ে সকালে ধুয়ে ফেললে উপকার পাওয়া যাবে।

সানস্ক্রিন ব্যবহার:

ঘাড়ের কালোভাব কমাতে সানস্ক্রিন লাগানো জরুরি। তাই রোদে মুখের মতো ঘাড়েও ভালো করে সানস্ক্রিন লাগিয়ে বেরোনো উচিত।

দুধ:

দুধের মধ্যে থাকা ল্যাকটিক অ্যাসিডের ত্বককে উজ্জ্বল করতে খুবই কার্যকরী ভূমিকা নেয়। ঘাড়ের যে জায়গায় কালোছোপ রয়েছে সেখানে ২০-৩০ মিনিট দুধ লাগিয়ে ধুয়ে ফেললে উপকার পাওয়া যাবে।

আরও পড়ুনঃ জেল্লাদার পেলব ত্বকের রহস্যের চাবিকাঠি, রইল কয়েকটি এসেন্সিয়াল অয়েলের হদিশ

 অ্যাপল সাইডার ভিনিগার:

অ্যাপল সাইডার ভিনিগারে অ্যাসেটিক অ্যাসিড থাকে যা ত্বকের পিগমেনটেশন কমাতে সাহায্য করে। তবে সরাসরি নয়, সমান পরিমাণ জলে অ্যাপল সাইডার ভিনিগার মিশিয়ে সেটি ত্বকে লাগাতে হবে এবং ২-৪ মিনিট পর ধুয়ে ফেললে ভালো ফল পাওয়া যাবে।

সঠিক ডায়েট ও হাইড্রেশন:

ত্বকের উজ্জ্বলতার জন্য সঠিক ডায়েটের অবশ্যই বড় ভূমিকা রয়েছে। অনেকটা সতেজ ফল খাওয়ার চেষ্টা করতে হবে। কারণ ফলের মধ্যে এমন কিছু উপাদান থাকে যা ত্বককে প্রাকৃতিক ভাবে উজ্জ্বল করে তোলে। একই সঙ্গে প্রত্যেক দিন সঠিক পরিমাণে জল খাওয়া ভুললেও চলবে না।

Published by:Shubhagata Dey
First published: