• Home
  • »
  • News
  • »
  • life-style
  • »
  • নতুন বছরে জীবন ভরে উঠবে সুখ-সমৃদ্ধিতে! শুধু মেনে চলুন এই ৫ নিয়ম! সুফল মিলবে শীঘ্রই

নতুন বছরে জীবন ভরে উঠবে সুখ-সমৃদ্ধিতে! শুধু মেনে চলুন এই ৫ নিয়ম! সুফল মিলবে শীঘ্রই

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

চলতি বছর আমাদের কারও সেই অর্থে ভাল কাটেনি। সামনের বছর কেমন যাবে, সে কথা এখনই জোর দিয়ে বলা সম্ভব নয়। কিন্তু এই ৫ নিয়ম মেনে চললে ২০২১ সাল হয়ে উঠবে নিরুপদ্রব এবং আনন্দময়।

  • Share this:

#কলকাতা: বলা হয়, নতুন বছরে রেজোলিউশন নেওয়া বা কোনও প্রতিজ্ঞা করার প্রথাটা বেশ পুরনো। অনেক শতাব্দী আগে নানা সভ্যতার মানুষ বছরের এক বিশেষ দিনে ঈশ্বরকে সাক্ষী রেখে সমাজ এবং জীবনের সার্বিক মঙ্গলের জন্য যে প্রতিজ্ঞা করে থাকতেন, সেটাই হালফিলের নিউ ইয়ার রেজোলিউশনে পরিবর্তিত হয়ে গিয়েছে। তবে উদ্দেশ্য একটাই- জীবন হোক সুখ আর সমৃদ্ধিতে পরিপূর্ণ।

চলতি বছর আমাদের কারও সেই অর্থে ভাল কাটেনি। মারণ করোনাভাইরাসের দৌরাত্ম্য নানা দিক থেকে সীমাবদ্ধ করে রেখেছে আমাদের আনন্দের চিরাচরিত নানা অভ্যাসকে। সামনের বছর কেমন যাবে, সে কথা এখনই জোর দিয়ে বলা সম্ভব নয়। কিন্তু এই ৫ নিয়ম মেনে চললে ২০২১ সাল হয়ে উঠবে নিরুপদ্রব এবং আনন্দময়।

*সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চলা: সময়ের সঙ্গে সঙ্গে করোনাভাইরাস কিন্তু আগের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী হয়ে উঠেছে। ব্রিটেনের ভাইরাস সংক্রমণের নতুন ধারা প্রবেশ করেছে ভারতেও, সে কথা এর মধ্যেই উঠে এসেছে খবরের সিরোনামে। তাই ২০২১-এ যদি সামাজিক দূরত্ববিধি বজায় রাখার দিকটা পালন করা যায় কঠোর ভাবে, নিঃসন্দেহেই স্বাস্থ্য ভাল থাকবে।

*স্বাস্থ্যই সম্পদ: এই প্রবাদ কখনই পুরনো হয় না, বছরের পর বছর ধরে তার প্রাসঙ্গিকতা একই রকম গুরুত্বপূর্ণ থাকে। তাই নতুন বছরে স্বাস্থ্যের কথা মাথায় রেখে কিছু ভাল অভ্যাস গড়ে তোলা যেতে পারে। পুষ্টিকর খাবার খাওয়া, পর্যাপ্ত ঘুম এবং সঙ্গে নিয়মিত শরীরচর্চা- মেনে চললে লাভ বই ক্ষতি নেই!

*মনের খোরাক: শরীরের মতো মনটিকেও বাদ দিলে চলে না! ওটা যদি হাসিখুশি না থাকে, তা হলে স্বাস্থ্যও ভাল থাকবে না। তাই নতুন বছরে নিজের কোনও শখ পূরণের দিকে নজর দেওয়া যেতে পারে। তা যেমন মন ভাল রাখবে, তেমনই সময় কাটাতেও সাহায্য করবে।

*খেলা যখন: ইনডোর হোক বা আউটডোর, নতুন বছরটায় নিজেকে অবসরে একটু-আধটু খেলা দিয়ে ব্যস্ত রাখাই যায়! তাতে মন আর দুই শরীর ভাল থাকবে!

*তিলে তিলে সঞ্চয়: শরীর ভাল রইল, মন থাকল ফুরফুরে! এর পরেই জীবনে দরকারি জিনিসটা হল সঞ্চয়। আয় ব্যয়ের একটা লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করে ফেলতে হবে অতএব; না হলে অর্থচিন্তা কিছুতেই স্বস্তিতে থাকতে দেবে না। অন্যদিকে, সুনিশ্চিত সঞ্চয় ভবিষ্যতেও মুক্তি দেবে নানা দুর্ভাবনা থেকে।

Published by:Shubhagata Dey
First published: