corona virus btn
corona virus btn
Loading

করোনা আবহে জয়েন্টের কাউন্সেলিং কীভাবে?‌ কবে থেকে শুরু প্রক্রিয়া?‌ আসছে অনেক বদল

করোনা আবহে জয়েন্টের কাউন্সেলিং কীভাবে?‌ কবে থেকে শুরু প্রক্রিয়া?‌ আসছে অনেক বদল

সাধারণত ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের পড়ুয়াদের অনলাইনে কাউন্সেলিং হলেও রিপোর্টিং হয় প্রতিষ্ঠানে। প্রতিষ্ঠানে গিয়ে পড়ুয়াদের রিপোর্ট করতে হয়। তবে এবার সবটাই হবে ভার্চুয়ালি।

  • Share this:

#‌কলকাতা:‌ জয়েন্টের ফল প্রকাশের সঙ্গে সঙ্গেই চিন্তা শুরু হয় কাউন্সেলিং প্রক্রিয়া নিয়ে। কিন্তু এইবছর আরও অনেক কিছুর মতোই জয়েন্টের কাউন্সেলিংয়েও পড়েছে অতিমারির প্রভাব। আর সেই কারণেই প্রতিবছরের মতো এবারের প্রক্রিয়া আর একই রকম থাকছে না। এবার পুরোটাই হবে অনলাইনে। এমনকি কলেজে রিপোর্টিংও। করোনা আবহে ইন্টারনেটের ওপরেই ভরসা রাখতে চাইছে জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ড।

রাজ্যে সরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ রয়েছে ১০টি, যেখানে আসন সংখ্যা রয়েছে ২০৫৩টি। এছাড়া বেসরকারি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ রয়েছে ৮৬টি, যেখানে আসন সংখ্যা রয়েছে ২৮,‌৪৯৩টি। রয়েছে ১১টি সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, যেখানে আসন সংখ্যা ২২৮৩টি। আর রয়েছে ৯টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, সেখানে আসন সংখ্যা ২০৬২টি। সব মিলিয়ে মোট ১১৬ টি প্রতিষ্ঠানে আসন সংখ্যা থাকছে ৩৪৮৯১ টি। মনে করা হচ্ছে, এবারে আসন সংখ্যা কিছু বাড়তেও পারে। এবছর অতিমারির বাড়বাড়ন্তের মধ্যেই পুরো কাউন্সেলিং প্রক্রিয়া কার্যকর হবে। জয়েন্ট এন্ট্রান্স বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান দিলীপকুমার মিত্র জানালেন, আগামী ১২ অগাস্ট থেকে অনলাইনে কাউন্সেলিং প্রক্রিয়া শুরু করা হবে। যে সমস্ত পড়ুয়ারা এবছর র‌্যাঙ্ক পেয়েছেন, তাঁদের কাউন্সেলিংয়ের ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশন ফি দিতে হবে না। জয়েন্ট বোর্ডের পক্ষ থেকে যে সমস্ত কমন সার্ভিস সেন্টার করা হয়েছে সেগুলিই ছাত্ররা ব্যবহার করতে পারবেন। মোট ১৭২৮৮টি কমন সার্ভিস সেন্টার করা হয়েছে বোর্ডের পক্ষ থেকে। অনলাইন কাউন্সেলিংয়ের ক্ষেত্রে ডকুমেন্ট আপলোডিং, রেজিস্ট্রেশন, সবই এখানে বিনামূল্যে করা যাবে। কোথায় কোথায় এই কমন সার্ভিস সেন্টার রয়েছে, সেগুলি পরিক্ষার্থীদের জানিয়ে দেবে জয়েন্ট বোর্ড।

এবারে পুরো কাউন্সেলিং প্রক্রিয়াই হবে অনলাইনে। প্রত্যেকটি রাউন্ডে পড়ুয়ারা রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন, কোন প্রতিষ্ঠানে তিনি পড়তে চান, সে বিষয়ে পছন্দ দিতে পারবেন। তবে একজন সর্বাধিক ২০টি ‘‌চয়েস’‌ দিতে পারবেন। প্রত্যেক রাউন্ডে চয়েসগুলিকে লক করতে হবে। গোটা প্রক্রিয়ায় কোনও সমস্যায় পড়লে পড়ুয়াদের জন্য দু’‌টি টোল ফ্রি নম্বর দেওয়া হয়েছে:

‌• 1800 1023 781 • 1800 3450 050

সাধারণত ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের পড়ুয়াদের অনলাইনে কাউন্সেলিং হলেও রিপোর্টিং হয় প্রতিষ্ঠানে। প্রতিষ্ঠানে গিয়ে পড়ুয়াদের রিপোর্ট করতে হয়। তবে এবার সবটাই হবে ভার্চুয়ালি। পড়ুয়ারা ভার্চুয়ালি রিপোর্টিং করতে পারবেন। তারপর যখন ক্লাস শুরু হবে, তখন সমস্ত প্রয়োজনীয় নথি জমা করলেই হবে। তবে প্রতিবারের মতোই এবারেও আসন সংখ্যা ফাঁকা থাকার আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। এবছর যেহেতু JEE main ‌ও নিট পরীক্ষা হয়নি, তাই সেই পরীক্ষা হলে আর তার ফলাফলের পর অনেকেই রাজ্য জয়েন্টের প্রতিষ্ঠান ছেড়ে চলে যেতে পারেন। ফলে আসন শূন্য থাকার সমস্যা এবারেও মিটবে কি না, তা নিয়ে সন্দেহ থাকছে।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: August 7, 2020, 4:08 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर