বিচারপতি কারনানকে গ্রেফতার করতে চেন্নাইয়ে রাজ্য পুলিশ

আদালত অবমাননায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন বিচারপতি সি এস কারনান ৷ সু্প্রিম কোর্টের নির্দেশে কারনানের চেন্নাইয়ের বাড়িতে পৌঁছাল রাজ্য পুলিশের পাঁচ সদস্যের দল ৷

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 11, 2017 02:21 PM IST
বিচারপতি কারনানকে গ্রেফতার করতে চেন্নাইয়ে রাজ্য পুলিশ
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 11, 2017 02:21 PM IST

#চেন্নাই: আদালত অবমাননায় দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন বিচারপতি সি এস কারনান ৷ সু্প্রিম কোর্টের নির্দেশে বিচারপতিকে গ্রেফতার করতে কারনানের চেন্নাইয়ের বাড়িতে পৌঁছাল রাজ্য পুলিশের পাঁচ সদস্যের দল ৷ পুলিশের বিশেষ দলে রয়েছেন তিন আইপিএস অফিসার ৷ মঙ্গলবার পশ্চিমবঙ্গের ডিজি-কে বিচারপতি কারনানকে গ্রেফতারে দ্রুত পদক্ষেপের নির্দেশ দেয় শীর্ষ আদালত ৷ গ্রেফতারি এড়াতে এদিনই চেন্নাই থেকে অন্ধ্রপ্রদেশ চলে গিয়েছেন অভিযুক্ত বিচারপতি।

আইপিএস রাজ কানোজিয়া, রণদীপ কুমার, আইপিএস অফিসার সি সুধাকর এবং সুকমলকান্তি দাস ও দীপঙ্কর বক্সি বুধবার সকালেই চেন্নাইতে বিচারপতি সি এস কারনানের বাড়িতে পৌঁছান ৷ কিন্তু শেষ পাওয়া খবর অবধি এখনও মেলেনি বিচারপতির হদিশ ৷

আদালত অবমাননার দায়ে বিচারপতি কারনানকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। নির্দেশ কার্যকর করতে এ-িদন সকালে কারনানের চেন্নাইয়ের বাড়িতে পৌছয় রাজ্য পুলিশের বিশেষ দল। তামিলনাড়ু পুলিশের সঙ্গে আলোচনা করেই সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ কার্যকর করার পথে এগোবে রাজ্য পুলিশ।

যদিও এদিনই চেন্নাই থেকে অন্ধ্রপ্রদেশের কলাহস্তিতে চলে গিয়েছেন অভিযুক্ত বিচারপতি। গ্রেফতারি এড়াতে কারনান ফের নয়া চাল চালতে পারেন। ফলে বিচারপতির গ্রেফতারি নিয়ে তৈরি হচ্ছে জল্পনা।

- কারনানকে আদৌ গ্রেফতার করা সম্ভব?

- তার জন্য বলপ্রয়োগ করবেন ডিজি?

- গ্রেফতারি এড়াতে ফের কোনও কৌশল নিতে পারেন কারনান

- চেন্নাই থেকে এবার অন্ধ্রপ্রদেশ। এর পর কারনান কী করেন সেদিকেই নজর রাজ‍্য পুলিশের

কারনানকে গ্রেফতার করতে না পারলে আদালত অবমাননার দায়ে পড়তে হবে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের ডিজিকে। তাই আটঘাঁট বেঁধেই দ্রুত পদক্ষেপ করতে চাইছে রাজ‍্য পুলিশের দলটি।

মঙ্গলবার আদালত অবমাননা করার অপরাধে কারনানকে ৬ মাসের কারাদণ্ডের নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট ৷ বিচারপতির বেনজির সাজা! স্বাধীন ভারতে এই প্রথম কোনও বিচারপতিকে কারাদণ্ডের নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট। মাদ্রাজ হাইকোর্ট থেকে কলকাতা বদলি নিয়ে প্রথম গন্ডগোল শুরু। তারপর কোনপথে এই রায় শীর্ষ আদালতের? কীভাবেই বা বিতর্কের সূত্রপাত?

কখনও নিজের বদলির নির্দেশে স্থগিতাদেশ। কখনও বা বিচারবিভাগে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে খোদ প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি। বারবার বিতর্কে জড়িয়েছেন বিচারপতি চিন্নাস্বামী স্বামীনাথন কারনান। আদালত অবমাননার দায়ে এবার তাঁরই সাজা ঘোষণা করল সুপ্রিম কোর্ট।

২৭ জানুয়ারি, ২০১৭

২০ বিচারপতির বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দেন বিচারপতি কারনান

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭

কারনানকে শোকজ করে সুপ্রিম কোর্টের বিশেষ বেঞ্চ

১৩ ফেব্রুয়ারি সুপ্রিম কোর্টে হাজিরার নির্দেশও দেওয়া হয়

সেই নির্দেশ মানেননি সি এস কারনান

১০ মার্চ, ২০১৭

কারনানের বিরুদ্ধে জামিনযোগ্য গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে সুপ্রিম কোর্ট

১৭ মার্চ, ২০১৭

নিউটাউনে নিজের বাড়িতে আদালত বসিয়ে সেই গ্রেফতারি পরোয়ানা খারিজ করেন কারনান

৪ মে, ২০১৭

সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে কারনানের মানসিক স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তাঁর বাড়িতে পাভলভের চিকিৎসকদের নিয়ে যায় পুলিশ

সুস্থ আছেন বলে সেই চিকিৎসক ও পুলিশকে ফিরিয়ে দেন তিনি

কিন্তু, সেই চিকিৎসকদের ফিরিয়ে দেন কারনান

৮ মে, ২০১৭

বেনজির ভাবে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি-সহ মোট ৮ বিচারপতিকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের নির্দেশ দেন কারনান

তফসিলি জাতি ও উপজাতিদের উপর অত্যাচার রুখতে যে আইন তার বলেই এই নির্দেশ জারি করেন তিনি

৯ মে, ২০১৭

আদালত অবমাননার দায়ে বিচারপতি কারনানকে ৬ মাসের কারাদণ্ডের নির্দেশ দেয়

কারনানের একাধিক বিতর্কিত পদক্ষেপে তৈরি হচ্ছিল একের পর এক নজির। এবার, তাঁর কারাদণ্ডের ঘোষণা করে নতুন নজির তৈরি করল দেশের শীর্ষ আদালতও।

First published: 03:21:48 PM May 10, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर