উইকএন্ডে থাকুক মন ভালো, চলুন বেড়িয়ে আসি ‘মৌসুনি’

একাকিত্ব দ্বীপ-চরিত্র। নির্জনতা যেখানে ঢেলে দিচ্ছে অবসন্ন উপহার। যেখানে সমুদ্রের বার বার নিজেকে চেনানোর প্রবল আকুতি।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Sep 06, 2019 07:57 PM IST
উইকএন্ডে থাকুক মন ভালো, চলুন বেড়িয়ে আসি ‘মৌসুনি’
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Sep 06, 2019 07:57 PM IST

#কলকাতা: একাকিত্ব দ্বীপ-চরিত্র। নির্জনতা যেখানে ঢেলে দিচ্ছে অবসন্ন উপহার। যেখানে সমুদ্রের বার বার নিজেকে চেনানোর প্রবল আকুতি। কংক্রিটের জঙ্গল থেকে কিছুটা দূরেই এই হারিয়ে যাওয়ার ঠিকানা। বকখালির পাশে নতুন স্বপ্নের দেশ বালিয়াড়া পর্যটন কেন্দ্র। উইকএন্ড হোক বা পুজোর দু-একদিন। নির্জনতার সঙ্গে আলাপ জমানোর পারফেক্ট ডেস্টিনেশন মৌসুনি দ্বীপ।

মৌসুনি। নামটা ঘিরেই এক অবিশ্রান্ত রোম্যান্টিকতা। আদুরে.....অথচ বড্ড একা। তবু স্বাবলম্বী। যাকে পরতে পরতে শুধু ভালোবাসতে ইচ্ছে করবে। সুন্দরবন উপকূলে এক প্রায় নির্জন দ্বীপ। এক কথায়, ভার্জিন।

বঙ্গোপসাগরের কোলে এক ফালি জমির নাম মৌসুনি। সকাল থেকে বিকেল, এখানে যেন সময়ও হাঁফ ছেড়ে বাঁচে। একটু জিরিয়ে নেয়।

নামখানার হাতানিয়া-দোয়ানিয়া নদীর উপর সেতু তৈরি হতেই বকখালির পাশাপাশি মৌসুনির আকর্ষণ বাড়ছে। থাকার ব্যবস্থাও রয়েছে মৌসুনীতে। দ্বীপ জুড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে বেশ কয়েকটি রিসর্ট। তাতে তাঁবুর পাশাপাশি রয়েছে মাড -হাউস। সোজা বাংলায়, একচালা মাটির কুঁড়েঘর। খড়ের চাল, চাঁছা বাঁশের তৈরি জানলা, মাটি লেপা দেওয়াল। সহজসরল, অথচ আকর্ষণীয়। এসি. সোফা, টিভির লাক্সারি নেই ঠিকই। আছে এক বুক তাজা নিশ্বাস।

ক্যাম্প চত্বরে দোলনা। অ্যাডভেঞ্জারে ছোঁয়া দিতে হ্যামক। সমুদ্রে দামাল হুটোপুটির পর চুটিয়ে পেট-পুজো। একটা আপ্যায়ন-মায়ায় জড়িয়ে থাকা যেন।

Loading...

ক্যাম্পে থাকার খরচ---

--তাঁবুতে থাকার খরচ মাথাপিছু হাজার থেকে বারশো টাকা

--মাটির ঘরের খরচ মাথাপিছু বারশো থেকে পনেরশো টাকা

--এই টাকার মধ্যে থাকা-খাওয়ার এলাহি আয়োজন

গ্রামের সহজ-সরল জীবনের কিছুক্ষণের অতিথি হয়ে কাটতে পারে সপ্তাহের শেষটা। কিংবা শহুরে পুজোর হুল্লোরের মাঝে দু-একদিনের শান্তির ঠিকানা হতে পারে বালিয়াড়া। এখানে গ্রামের পুজোর স্বাদও মিলবে। আসলে মৌসুনী জানে মন হারানোর ঠিকানা।

কিভাবে যাবেন---

---শিয়ালদহ স্টেশন থেকে ট্রেনে নামখানা

--নামখানা থেকে ম্যাজিক ভ্যান বা টোটোয় হাতানিয়া-দোয়ানিয়া সেতু পেরিয়ে সাত মাইল

--সাত মাইলে বাগডাঙা খেয়াঘাট থেকে নৌকায় চিনাই নদী পেরিয়ে বালিয়াড়া

--বালিয়াড়া থেকে টোটো পৌঁছে দেবে নতুন স্বপ্নের দেশে

--গাড়িতে গেলে ১১৭ নং জাতীয় সড়ক ধরে বাগডাঙা ঘাট

---ঘাটে গাড়ি রেখে নদী পেরিয়ে মৌসুনি দ্বীপ

First published: 07:54:25 PM Sep 06, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर