• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • কী বলছে আজকের খবরের কাগজ ? দেখে নিন

কী বলছে আজকের খবরের কাগজ ? দেখে নিন

এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ মঙ্গলবারের  গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ মঙ্গলবারের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ মঙ্গলবারের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷ তাছাড়া একাধিক কাগজও পড়ার মতো সময় কারোর হাতেই নেই ৷ তাই আসুন এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ মঙ্গলবারের  গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

    anandabazar11

    ফের কালো আয় ঘোষণার জানলা খুলল কেন্দ্র যেন রবিনহুড! শুরুতে হুঙ্কার ছিল, কালো টাকার কারবারিদের শেষ দেখে ছাড়বেন তিনি। অথচ নোট বাতিলের কুড়ি দিন পরে সেই কালো টাকা সাদা করার আরও একটি প্রকল্প ঘোষণা করল নরেন্দ্র মোদীর সরকার। যা করা ছাড়া উপায় নেই বলে আগেই বলছিলেন বিশেষজ্ঞরা। ব্যক্তিগত আলাপচারিতায় তা মানছেন অর্থ মন্ত্রকের কর্তারাও। মোদীকে সরাবই, মরণ পণ মমতার দিনে নিদেনপক্ষে ঘণ্টাখানেক হাঁটা তাঁর রুটিন। হনহনিয়ে এত দ্রুত হাঁটেন যে, পাল্লা দিতে গিয়ে হিমশিম খেয়ে যান দলের তরুণ নেতারাও। তবু গত ছ’বছরে এ দৃশ্য কি দেখেছে বাংলা! সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ থেকে ধর্মতলার দিকে যখন এগোচ্ছেন, পিছনে হাজার হাজার সমর্থকের মিছিল। মুখের কাছে উঁচিয়ে ধরে রেখেছেন লাল-সাদা রঙের মাইক। গলার রগ ফুলিয়ে স্লোগান তুলছেন, ‘‘মোদী সরকার হায় হায়!’’ চিবুক বেয়ে গড়িয়ে পড়ছে ঘাম। আঁচল দিয়ে কোনওমতে তা মুছে নিয়েই নতুন হুঙ্কার ছাড়ছেন, ‘‘তানাশাহি নেহি চলেগা!’’ হরতাল ব্যর্থ, শিক্ষা নিলাম বলছেন বিমান মৌলালি থেকে মল্লিক বাজার— পথ মাত্র দেড় কিলোমিটার। সোমবার তাঁদের ডাকা হরতালের সমর্থনে এটুকু রাস্তাই হাঁটলেন সূর্যকান্ত মিশ্র, বিমান বসুরা। তাও মিছিলের এক দিকে সারি সারি দোকান খোলা, অন্য দিক দিয়ে সাঁই সাঁই ছুটে চলেছে গাড়ি! মিছিল মল্লিক বাজারে পৌঁছনোর পরে সূর্যবাবু যখন ট্র্যাফিক পুলিশের পোডিয়ামে দাঁড়িয়ে বক্তৃতা করছেন, তখন গাড়ির হর্নের আওয়াজে শোনাই যাচ্ছে না তাঁর কথা! গতি কমলেও রুদ্ধ হল না মিছিলের শহর আশঙ্কাকে কার্যত ভুল প্রমাণ করল সোমবারের কলকাতা। রাজনৈতিক মিছিলের জেরে মহানগরীর রাজপথ স্তব্ধ হওয়ার ছবিটা বিরল নয়। তাই এ দিন তিন-তিনটি দলের মিছিলের জেরে পরিস্থিতি তেমনই হবে বলে ভেবেছিলেন অনেকে। কিন্তু এ দিন রাজপথ স্তব্ধ হয়নি। লালবাজার বলছে, ট্র্যাফিক নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থায় কিছু পরিবর্তন আনার কারণেই ছবিটা বদলে গিয়েছে। যেমন এ দিন কয়েকটি রাস্তা বন্ধ করে কিছু গাড়ি ঘুরপথে পাঠানো হয়। তাতে হয়তো কোনও ক্ষেত্রে সময় বেশি লেগেছে, কিন্তু যানজটে আটকে পড়তে হয়নি।

    bartaman_big11

    দরকারে মোদির বাড়ির সামনে ধরনা: মমতা দিল্লিতে গিয়ে ধরনা দিতে হলে মোদির বাড়ির সামনেই দেব। নোট বাতিল ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রী-বিরোধী জেহাদ ঘোষণা করে ভিনরাজ্যে পাড়ি দেওয়ার আগে সোমবার কলেজ স্কোয়ার থেকে ধর্মতলা পর্যন্ত মিছিল শেষে এভাবেই সুর চড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজ, মঙ্গলবার মোদি-অপসারণের ডাক দিতে লখনউতে গোমতী ময়দানে এবং পরের দিন বিহারের পাটনাতে জনসভা করবেন তিনি। নোট বাতিলের জেরে মানুষের দুর্ভোগের প্রতিবাদ জানাতে এদিন রাজ্যে বিরোধীরা তিনভাগে বিভক্ত হয়ে পথে নেমেছে। এই আন্দোলনে সর্বভারতীয় স্তরে ঐক্যের ডাক দেওয়া মমতা এদিন দলীয় পরিচিতি মুছে ‘এটা মানুষের আন্দোলন’ বলে ঘোষণা করেন। গত সপ্তাহে যখন তিনি দিল্লিতে ধরনায় ব্যস্ত, তখনই তাঁর নির্দেশে কলকাতায় মিছিল করেছিল তৃণমূল। পরিকল্পিকতভাবে লোক জড়ো করে মিছিল হলেও তাতে সন্তুষ্ট হননি মমতা। সেদিনই দিল্লি থেকে সোমবার মিছিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। কেন্দ্রের নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর আড়াই সপ্তাহ কেটে গিয়েছে। নোটের আকাল কাটেনি। অধিকাংশ এটিএম শূন্য। নিজের জমানো অর্থ ব্যাংক থেকে তোলার উপর নানা নিষেধাজ্ঞা। এই দুর্ভোগকে কাজে লাগাতে দেশজুড়েই বিরোধীরা তৎপর। ঘটনাচক্রে সেই লড়াইয়ে সার্বিক বিরোধী ঐক্যের ডাক দিয়ে বস্তুত জাতীয় স্তরে মোদি-বিরোধী রাজনীতির কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন মমতা। ফাঁকি ঠেকাতে আয়করে বদল, আদায়ের টাকা গরিব কল্যাণে ফাঁকি দেওয়া আয়করের টাকায় এবার গরিব কল্যাণ। এই হল মোদি সরকারের স্লোগান। কালো টাকার বিরুদ্ধে মোদি সরকারের সর্বাত্মক লড়াই চলছেই। এবার কালো টাকা আদায় করার জন্য আয়কর আইনে বড়সড় সংশোধন আনছে সরকার। সঙ্গে নতুন একটি প্রকল্প। তার নাম প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ। হিসাব বহির্ভূত টাকা ঘোষণা করা হলে কর এবং জরিমানা দেওয়ার পর ঘোষিত টাকার বাকি অংশ নির্ভাবনায় ভোগ করার সুযোগ দেওয়ার জন্য সংশোধনী আনা হচ্ছে। আজ লোকসভায় এই বিল পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। ওই আইনের পাশাপাশি আয়কর ফাঁকি দেওয়া টাকা রাজকোষে জমা করার আহ্বান সম্বলিত নয়া প্রকল্পও ঘোষণা করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী গরিব কল্যাণ যোজনা। আয়কর আইনের নতুন ধারা অনুযায়ী অঘোষিত সম্পদ ঘোষণা করার পর সেই অর্থের ৩০ শতাংশ আয়কর দিতে হবে। ১০ শতাংশ হবে জরিমানা। আর প্রদেয় আয়করের ৩৩ শতাংশ সারচার্জ সেস। সব মিলিয়ে ৫০ শতাংশের মতো করের পরিমাণ দাঁড়াবে। এখানেই শেষ নয়। অঘোষিত সম্পদের ২৫ শতাংশ জমা রাখতে হবে সরকারের ঘরে চার বছর। সেই টাকায় পরিকাঠামো উন্নয়ন, সেচ, কৃষি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা ইত্যাদি কল্যাণমূলক প্রকল্প রূপায়িত করবে। সংক্ষেপে গরিব কল্যাণ। ওই টাকা চার বছর পর যখন আয়করদাতা ফেরত পাবে তখন মূল আমানতই ফেরত হবে। কোনও সুদ পাওয়া যাবে না। দিল্লির নিজামুদ্দিন স্টেশনে ধৃত হরমিন্দর সিং মিন্টু, গ্রেপ্তার নাভা-কাণ্ডের চক্রী পরমিন্দরও খলিস্তান লিবারেশন ফোর্সের (কেএলএফ) প্রধান হরমিন্দর সিং মিন্টুকে দিল্লির নিজামুদ্দিন রেল স্টেশন থেকে গ্রেপ্তার করল পুলিশ। রবিবার পাতিয়ালার নাভা জেল থেকে আরও পাঁচ বন্দির সঙ্গে পালিয়েছিল এই খলিস্তানি জঙ্গিনেতা। সোমবার পুলিশের স্পেশ্যাল সেলের কর্তা অরবিন্দ দীপ বলেন, রবিবার বেশি রাতে নিজামুদ্দিন স্টেশন থেকে গ্রেপ্তার করা হয় মিন্টুকে। তিনি জানান, পাঞ্জাব পুলিশের সন্দেহ ছিল মিন্টু দিল্লির দিকে এগচ্ছে। তারা দিল্লি পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে। ব্যাপক তল্লাশি ও নজরদারি চালিয়ে তাকে রেল স্টেশন থেকে গ্রেপ্তার করা হয় গতকাল রাতে। ধৃত এই জঙ্গিনেতাকে ফিরিয়ে নিয়ে যাবে পাঞ্জাব পুলিশের একটি দল। এদিন দিল্লির একটি আদালত মিন্টুকে ৭ দিনের পুলিশি হেপাজতের নির্দেশ দেয়। আদালতের বক্তব্য, গোটা ঘটনার ষড়যন্ত্র প্রকাশ্যে আনার জন্য এই জঙ্গিনেতার পুলিশি হেপাজতের প্রয়োজন রয়েছে। বামেদের ধর্মঘটে মিলল না মানুষের সাড়া বামেদের ডাকা সোমবারের ধর্মঘটকে পাত্তা দিল না জনতা। শনি-রবি ছুটির পর সোমবার ধর্মঘট ডেকে তিনদিনের টানা ছুটির টোপ দিলেও, তা গিলল না আমবাঙালি। ফলে আর পাঁচটা কর্মব্যস্ত দিনের মতোই সচল রইল কলকাতা, কাজে ঩঩মেতে রইল বাংলা। মোদির বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা করে ধর্মঘট ডেকে আন্দোলনের সলতে পাকানোর যে ক্ষীণ চেষ্টা বাম নেতারা করেছিলেন, তা যে এমন সুপার ফ্লপ শোয়ে পরিণত হবে, তা হয়তো ভাবতেই পারেননি তাঁরা। তাই দিন শেষে একপ্রকার নাকখতই দিলেন দলের ম্যানেজাররা। মুখ্যমন্ত্রীর হুঁশিয়ারিতে নবান্নে ৯৪ শতাংশ আসন ভরালেন কর্মীরা। রাজ্য সরকারি অফিসে হাজিরা পড়ল ৯৫ শতাংশ। কলকাতা পুরসভাও জানিয়ে দিল, সেখানে ৯২ শতাংশ কর্মী কাজে এসেছেন। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কাজের কোনও হেরফের হল না। ধর্মঘট সফল করার জন্য সবার আগে ট্রেন ও বাসসহ যানবাহন আটকানোকেই প্রথম হাতিয়ার করা হয়, এমনটাই রেওয়াজ এই বাংলায়। এদিকে পূর্ব এবং দক্ষিণ-পূর্ব রেল জানিয়ে দিয়েছে, রাজ্যের কোথাও কোনও ট্রেন আটকানো হয়নি। তা চলেছে অন্যান্য দিনের মতোই। সরকারি বাস তো রাস্তায় বেশি ছিলই, বেসরকারি বাসের কমতিও তেমন নজরে আসেনি।

    ei samay

    ধান না ওঠায় খাদ্য সঙ্কটের আশঙ্কা ধান পাকলেও নগদ টাকার অভাবে মাঠের ধান রয়ে গিয়েছে মাঠেই ৷ গোলায় ওঠেনি ৷ আর চাষির ঘরে ধান না ওঠায় কৃষকদের কাছ থেকে ধান কেনার কাজও শুরু করতে পারছে না রাজ্য সরকার ৷ কী করতে পারতেন স্বাস্থ্যকর্তারা ? কী বললেন ? কী করেছেন: কলকাতার দু’টি এবং বাদুড়িয়ার নার্সিংহোম নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন উপ-স্বাস্থ্য অধিকর্তা (প্রশাসন) এবং উত্তর ২৪ পরগনার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিককে  ৷ ওই দুই পদস্থ আধিকারিকের সঙ্গে সমন্বয় রেখে চলেছেন ৷ নজরে মেডিক্যাল কলেজ, কলকাতার ২ চিকিৎসকও শিশু বিক্রির ঘটনায় আগেই নাম জড়িয়েছিল একাধিক চিকিৎসকের ৷ অতিমধ্যেই গ্রেফতার হয়েছেন দু’জন ৷ এবার এই ঘটনায় শহরের আরও একটি নার্সিংহোমের দুই চিকিৎসকের নাম জড়াল ৷ ব্যাঙ্কিংয়ের আওতায় আসছে চা-শিল্প মোদীর পদক্ষেপে চা শিল্প নতুন যুগের সূচনা হচ্ছে ৷ প্রায় আড়াই লক্ষ চা শ্রমিক ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থার আওতায় আসছেন এক মাসের মধ্যে ৷ তাঁদের সকলের স্যালারি অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য তোড়জোড় শুরু হয়েছে ৷

    First published: