বেপরোয়া গাড়ির দৌরাত্ম্য রুখতে আরও কড়া সিসিটিভি নজরদারি

বেপরোয়া গাড়ির দৌরাত্ম্য রুখতে আরও কড়া সিসিটিভি নজরদারি

শহরে বসতে চলছে আরও উন্নত প্রযুক্তি যুক্ত সিসিটিভি। বেপরোয়া গাড়ি ধরতে ট্রাফিকের নজর থাকছে বাইপাসে।

  • Share this:

#কলকাতা: শহরে বেপরোয়া গাড়ির দৌরাত্ম্য রুখতে চিন্তায় কলকাতা ট্রাফিক পুলিশ। বেপরোয়া গাড়িকে লাগাম দিতে আগেই বসেছে বিপুল সংখ্যায় সিসিটিভি। স্পীড মিটার ও বসেছে শহরের বিভিন্ন রাস্তায়। বিশেষ করে নজর রাখা হয়েছিল বাইপাসের রাস্তায়। ট্রাফিক পুলিশের রিপোর্ট ও ফেসবুকে শহরবাসীর বার্তায় স্পষ্ট হয় লাগামহীন বাইপাসের গাড়ির চিত্র। একাধিক সিসিটিভি-র কড়াকড়ি থাকলেও লাগাম টানতে বেশ অনেকটাই বেগ পেতে হচ্ছে ট্রাফিক পুলিশকে। এবার সেই লাগাম আরও শক্ত করতে চাইছে ট্রাফিক। বাইপাসে বেপরোয়া গাড়ি সামাল দিতে হিমসিম খেতে হয় পুলিশকে। সবচেয়ে বেশি গাড়ি বেপরোয়া হয় রাতের দিকে। নাকা চেকিং-এ বেপরোয়া গাড়ি আটকানো সম্ভব হলেও চেকিং না থাকা এলাকায় বাড়ছে দৌরাত্ম। বাইপাস, বাসন্তী হাইওয়ে, কসবা এলাকার বলে কিছু গাড়ির জন্য আরও সিসিটিভি বসতে চলছে শহরজুরে। এই সমস্ত সিসিটিভির মধ্যে বিশেষ করে উন্নত প্রযুক্তি সম্পূর্ণ সিসিটিভি ও স্পিড মিটার বসবে। কারন বেপরোয়া গাড়ির জরিমানা করতে দরকার সেই গাড়ির নম্বর, সেই নম্বর স্বচ্ছ পেতে দরকার ভালো সিসিটিভি। এবার সেই সিসিটিভি দিয়েই গাড়ির নম্বর দেখে করা হবে জরিমানা। বাইপাসের মূলত দুটি সিগনালের মধ্যে এই ক্যামেরা লাগানো হবে, অন্যদিকে যে সমস্ত জায়গায় জোরে গাড়ি চালানোর প্রবণতা বেশি সেখানে কিছু জায়গায় এবার থাকবে স্পীড মিটার। কসবা এলাকায় যে সমস্ত গাড়ি গাড়িয়াহাট থেকে বাইবাস আসে রাতের দিকে সেই গাড়ির লাগাম দেওয়া লক্ষ ট্রাফিকের। সিসিটিভি থাকরেও গাড়ির নম্বর পেতে অসুবিধা হয় অনেক সময়, এবার আরও উন্নত ক্যামেরার মাধ্যমে নম্বর বোঝা যাবে সহজে। বাসন্তী হাইওয়েতে সিসিটিভি বসলেও গাড়ির লাগাম এখনো টানা সম্ভব হয়নি৷ এবার বেশ ক্যামেরার মাধ্যমে আরও নজরদারি বাড়াবে ট্রাফিক পুলিশ। যদিও স্পীড মিটার এখনও বসানোর পরিকল্পনা না থাকলেও পরবর্তীকালে বসতে পারে বলে মত ট্রাফিকের।

ট্রাফিক পুলিশের একাংশ অনেকেই বিভিন্ন সময় দেখেছেন সিসিটিভি এলাকায় গাড়ির লাগাম থাকলেও আওতার বাইরে হয়ে ওঠে লাগামহীন। এবার কিছুটা চালাকি করেই সিসিটিভি থাকছে লুকিয়ে। লুকানো সিসিটিভিতে চলে আসবে বেপরোয়া গাড়ি।

Susovan Bhattacharjee

First published: March 4, 2020, 10:50 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर