ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে SRFTI পড়ুয়াদের অনশন তৃতীয় দিনে

ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে SRFTI পড়ুয়াদের অনশন তৃতীয় দিনে
এসআরএফটিআই অনশন
  • Share this:

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে এসআরএফটি আই পড়ুয়াদের অনশন তৃতীয় দিনে পড়ল। মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে ৬ জন পড়ুয়া অধিকর্তার ঘরের সামনে অনশন শুরু করেছেন। বৃহস্পতিবার আরও দুজন পড়ুয়া অনশনে যোগ দিয়েছেন। বুধবার অধিকর্তার সঙ্গে পড়ুয়াদের বৈঠক হলেও সেই বৈঠক কার্যত নিষ্ফলা থেকে গেল। প্রত্যেক বছরই ১০ শতাংশ করে ফি বাড়ানো হচ্ছে বলে অভিযোগ পড়ুয়াদের। ফি বৃদ্ধি প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত অনশন চলবে তাঁদের। অন্যদিকে, অধিকর্তা অবশ্য জানিয়ে দিয়েছেন 'ফি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত পরিচালন সমিতির। যদিও আগামী ২৭ ডিসেম্বর এফটিআইয়ের গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠক আছে৷ ততদিন পর্যন্ত পড়ুয়াদের অপেক্ষা করতে বললেও তারা অপেক্ষা করতে রাজি নয়।'

কেন্দ্রীয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ফি বৃদ্ধির ধাক্কা একের পর এক। দিল্লির জহওরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের পর এবার কলকাতার এসআরএফটিআই বা সত্যজিৎ রায় ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট। লাগামছাড়া ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে মঙ্গলবার থেকেই অনশন শুরু করেছেন এসআরএফটিআইয়ের পড়ুয়ারা। এটি অবশ্য কেন্দ্রীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যা কেন্দ্রীয় তথ্য এবং সম্প্রচার মন্ত্রকের অধীনস্থ।পড়ুয়াদের অভিযোগ চার বছর আগে এসআরএফটিআই-তে ভর্তি হতে ৬০ হাজার টাকা বার্ষিক ফি দিতে হত। এ বার তা গুনতে হবে প্রায় দেড় লক্ষ টাকার কাছাকাছি।

পরীক্ষার জন্য পেপার পিছু পড়ুয়াদের ৪ হাজার টাকা করে দিতে হবে। অনশনরত পড়ুয়াদের অভিযোগ গরিব প্রার্থীদের জন্য কোনও ব্যবস্থা নেই তাদের। শুধু তাই নয় এসআরএফটিআইয়ে যে সমস্ত পড়ুয়ারা পড়েন, তারা কোনও এডুকেশন লোনও নিতে পারেন না ব্যাঙ্ক থেকে। তাই ফি কমাতে আন্দোলনে বাধ্য হয়ে যেতে হচ্ছে তাদের।পুনের ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট বা এফটিআইআইতেও একই কারণে অনশন শুরু করেছেন ইতিমধ্যেই পড়ুয়ারা। এসআরএফটিআই-এর ছাত্রী নৈরিতা ঠাকুরতা বলেন, 'ফি বৃদ্ধি কমানো নিয়ে কর্তৃপক্ষকে অনেকবার বলা হয়েছে। বুধবারের বৈঠকে আশ্বাস দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল৷ কিন্তু তা দিতে পারেননি অধিকর্তা। তাই অনশন আন্দোলন আমাদের চালিয়ে যেতে হচ্ছে।' আরও এক ছাত্রী সূচনা সাহা বলেন, 'এখানে পড়ুয়ারা ব্যাঙ্ক লোন নিয়ে পড়তে পারছেন না। গরিব পড়ুয়াদের জন্য কোনও বিশেষ ব্যবস্থা নেই। এর বিরুদ্ধে আমাদের অনশন আন্দোলন চলবে।'

অবশ্য প্রতিষ্ঠান অধিকর্তা দেবমিত্রা মিত্র বলেন, 'গভর্নিং বডি অনেকদিন আগেই ১০ শতাংশ ফি বাড়ানোর নীতি ঠিক করেছে। পড়ুয়াদের অনেককে স্কলারশিপ থেকে শুরু করে অনেক সুবিধা দেওয়া হয়। সেই তুলনায় তারা যেটা প্রত্যেক মাসে ফি দেন অনেকটাই কম। তবে এ বিষয় নিয়ে আগামী ২৭ ডিসেম্বর এফটিআই-এর গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠক ডেকেছে।বুধবার পড়ুয়াদের সেই বৈঠক পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলেছিলাম। অনশন তুলে নিতে বলেছিলাম।কিন্তু তারা তা করলেন না। সেই বৈঠকের দিকে আমরা তাকিয়ে আছি।"

এসআরএফটিআই সূত্রে খবর, ২০২০ সালে সমস্ত পড়ুয়া ভর্তি হবেন তাঁদের সময় থেকেই এই ১০ শতাংশ ফি বৃদ্ধি কার্যকরী হবে। এখন এসআরএফটিআই পড়ুয়াদের প্রত্যেক মাসে টিউশন ফি দিতে হয় ৬ হাজার ২৫০ টাকা। হোস্টেল ফি দিতে হয় ৩ হাজার ২৭৬ টাকা। এই দুটি ক্ষেত্রেই ২০২০ সালে ১০ শতাংশ হারে ফি বৃদ্ধি হবে অন্তত এমনটাই সিদ্ধান্ত এস আর এফটিআইয়ের পরিচালন সমিতির।

First published: December 19, 2019, 11:53 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर