কলকাতা

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

সোশ্যাল মিডিয়ার গুজব উড়িয়ে 'ফাইট' সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের, আরোগ্য কামনায় ভক্তরা

সোশ্যাল মিডিয়ার গুজব উড়িয়ে 'ফাইট' সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের, আরোগ্য কামনায় ভক্তরা
লড়ছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়।

সব গুজব উড়িয়ে অবশেষে চিকিৎসকরা স্বাস্থ্যকর্মীরা কিন্তু স্পষ্টই জানালেন, আগের থেকেও মরিয়া হয়ে লড়ছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়।

  • Share this:

#কলকাতা: গুজবটা ছড়াতে শুরু করে মঙ্গলবার দুপুর নাগাদ। হাতিয়ার সেই সোশ্যাল মিডিয়া। নেটাগরিকরা বলতে শুরু করেন তিনি আর নেই। ইতিমধ্যেই ফোনের বন্যা বেলভিউ নার্সিংহোমের রিসেপশানে। সব গুজব উড়িয়ে অবশেষে চিকিৎসকরা স্বাস্থ্যকর্মীরা কিন্তু স্পষ্টই জানালেন, আগের থেকেও মরিয়া হয়ে লড়ছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। খুলে রাখা হয়েছে তাঁর বাইপ্যাপ ভেন্টিলেশনও।

চিকিৎসকদের সূত্রে খবর, ফুসফুসের সংক্রমণে আগের থেকে কিছুটা উন্নতি হয়েছে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের। বুধবার করোনা আক্রান্ত হওয়ার ১৪ দিনের মাথায় আবার তাঁর নভেল করোনাভাইরাস এর পরীক্ষা করা হবে।

মঙ্গলবার বিকেলে সৌমিত্র কন্যা পৌলমী বসু বিবৃতি দিয়ে জানান, "আমার বাবা আগের চেয়ে সামান্য ভালো রয়েছেন। বলা যায়, এক শতাংশ উন্নতি হয়েছে। সকালেই তাঁকে বাইপ্যাপ ভেন্টিলেশন থেকে বের করা হয়েছে। ইনভেসিভ ভেন্টিলেশনে রাখার কথা এখনই ভাবঠেন না চিকিৎসকরা।"

এদিন সন্ধেয় এক গণমাধ্যমে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের বর্তমান অবস্থার ছবি প্রতিবেদনে সঙ্গে তুলে ধরা হয়। ঘটনা নিয়ে শোরগোল পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। প্রশ্ন ওঠে গণমাধ্যমের দায়বদ্ধতা নিয়েও। সৌমিত্র কন্যা নিজেও বিষয়টি নিয়ে বিরক্তি প্রকাশ করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়কে করোনা সংক্রমণের কারণে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় গত মঙ্গলবার। সোমবার রাতেই তাঁর কোভিড রিপোর্ট পজিটিভ এসেছিল। শুক্রবার থেকে তাঁর অবস্থার অবনতি হয়। বেলভিউয়ের ১০জন চিকিৎসক এবং কলকাতার অন্য সরকারি বেসরকারি হাসপাতালে আরও ৬ জন চিকিৎসক মিলিয়ে মোট ১৬ জনের মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়।

সোমবার সকাল থেকে তার শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়। রক্তে অক্সিজেনের মাত্রা স্বাভাবিক হয়েছে। আগে যেখানে তাকে প্রতি মিনিটে ১৬ লিটার অক্সিজেন দিতে হচ্ছিল, সেটা কমে মিনিটে ১০ লিটার অক্সিজেন দিতে হচ্ছে। তবে সৌমিত্র বাবুর আচ্ছন্ন ভাব না কাটায় চিকিৎসকরা কিছুটা উদ্বিগ্ন ছিলেন

Published by: Arka Deb
First published: October 14, 2020, 8:58 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर