‘কলকাতা বন্দরে শ্যামাপ্রসাদের নামে সাইনবোর্ড লাগান হলে তা খুলে ফেলা হবে’, হুমকি সোমেন মিত্রর

‘কলকাতা বন্দরে শ্যামাপ্রসাদের নামে সাইনবোর্ড লাগান হলে তা খুলে ফেলা হবে’, হুমকি সোমেন মিত্রর

কলকাতা বন্দরে শ্যামাপ্রসাদের নামে সাইনবোর্ড লাগান হলে তা খুলে ফেলা হবে হুমকি সোমেন মিত্রর ৷

  • Share this:

UJJAL ROY #কলকাতা: শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় এর নামে সাইনবোর্ড লাগানো হলে তা খুলে ফেলবে রাজ্যের ছাত্র-যুবরা রবিবার প্রেস বিবৃতিতে একথা জানালেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেম মিত্র। কলকাতা বন্দরের নাম শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের নামে করায় প্রতিবাদ জানানো হয়েছে চার বাম ছাত্রসংগঠনের পক্ষ থেকেও। আন্দোলনের হুমকিও দিয়েছে তারা

রবিবার কলকাতায় পোর্ট ট্রাস্টের অনুষ্ঠানে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছেন, কলকাতা বন্দরটিকে ডক্টর শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের নামে করা হবে। তারপর থেকেই বাম ও কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বিরোধিতা শুরু হয় ৷

সোমেন মিত্র প্রেস বিবৃতিতে জানান, 'ইতিহাস বলে শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী ৪২ এর আন্দোলনর শুধু বিরোধিতা করেছিলেন তাই না, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ব্রিটিশ সৈন্য বাহিনীতে ভারতীয় যুবকদের অন্তর্ভুক্তি করতে সাহায্য করেছিলেন। যিনি হিন্দুদের জন্য আলাদা দেশের প্রস্তাব দিয়েছিলেন ৷ যখন কংগ্রেস, মুসলিম লিগকে প্রত্যাখ্যান করল তখন তিনি লিগের সঙ্গে বাংলায় মন্ত্রিসভা গঠন করেন। এইরকম একজন মানুষের নামে যদি ঐতিহাসিক কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের নাম পরিবর্তন করে তবে বাংলার ছাত্র-যুব সাইনবোর্ড সেদিনই খুলে দেবে'।

3313_IMG-20200112-WA0010

এসএফআই, এআইএসএফ, পিএসইউ, এআইএসবি-র পক্ষে যৌথ প্রেস বিবৃতিতে এই ঘোষণার বিরোধিতা করার পাশাপাশি জানানো হয়, 'শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের নামে কলকাতা বন্দরের নাম কোনও ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না'। এই সিদ্ধান্ত বাতিলের দাবিও জানানো হয় সংগঠনগুলোর পক্ষ থেকে।

কলকাতায় প্রধানমন্ত্রী আসার পর থেকেই বাম কংগ্রেসের ছাত্র যুব সংগঠনগুলির পক্ষ থেকে বিক্ষোভ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছিল। প্রধানমন্ত্রীর ফিরে যাওয়ার পরও আন্দোলনের সেই তাপ ধরে রাখতে চাইছে বিরোধিরা। এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল ৷

First published: January 12, 2020, 11:17 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर