• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • RED BLUE LIGHT VEHICLES WEST BENGAL STATE GOVT RELEASED NEW LIST TODAY SANJ

Red Blue Light Vehicles : লাল বাতি, নীল বাতি নিয়ে নয়া নির্দেশিকা রাজ্যের, যোগ্য কেবল ১৪ পদাধিকারী!

লাল-নীল বাতি

Red Blue Light Vehicles : নতুন তালিকায় মুখ্যমন্ত্রী থেকে শুরু করে মোট ১৪ ধরনের পদাধিকারীরা তাঁদের গাড়িতে কী ধরনের বাতি ব্যবহার করতে পারবেন তা বলা হয়েছে।

  • Share this:

    #কলকাতা : একের পর এক নীলবাতি ও লালবাতি (Red Blue Light Vehicles) লাগানো ভুয়ো আধিকারিকের (Fake Officials) সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে রাজ্যজুড়ে। তারই জেরে এবার নতুন নির্দেশিকা জারি করল রাজ্য সরকার। তাতে দেখা যাচ্ছে শুধুমাত্র ১৪জন পদাধিকারী এই সুবিধে পাবেন। এর আগে এই সংক্রান্ত হাইকোর্টের প্রশ্নের পরেই গত সোমবার ফের একবার পরিবহন দফতর থেকে ২০১৪ সালের নোটিফিকেশন পুনরায় পুলিশকে পাঠিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয় কারা কারা গাড়িতে লাল বাতি বা নীল বাতি ব্যবহার করতে পারবেন। ভুয়ো নীল ও লাল বাতির বিরুদ্ধে সচেতনতা বাড়াতে আজ সেই নিয়েই নতুন নির্দেশিকা জারি করল রাজ্য সরকার।

    দেখা গিয়েছে সাম্প্রতিক সময়ে বেশকিছু ভুয়ো সরকারি আধিকারিক (Fake IAS/IPS) নীল বাতি বা লাল বাতি লাগিয়ে একাধিক প্রতারণার কাজ করে চলেছেন। এদের মধ্যে ধরাও পড়েছেন অনেকে। রাজ্যজুড়ে এখনও জারি রয়েছে ধর-পাকড়। এবার তাই আরও কঠোর রাজ্য সরকার। নতুন তালিকায় মুখ্যমন্ত্রী থেকে শুরু করে মোট ১৪ ধরনের পদাধিকারীরা তাঁদের গাড়িতে কী ধরনের বাতি ব্যবহার করতে পারবেন তা বলা হয়েছে।

    রাজ্য পরিবহণ দফতর আজ লালবাতি ও নীলবাতি সংক্রান্ত সেই নতুন বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। তাতে নিম্নলিখিত পদাধিকারীদের ক্ষেত্রেই শুধু বাতি ব্যবহারের কথা বলা হয়েছে।

    ১) মুখ্যমন্ত্রী-সহ রাজ্য মন্ত্রিসভার মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী, ২) মুখ্য সচিব ৩) অতিরিক্ত মুখ্য সচিব, প্রধান সচিব, ৪) ডিভিশনাল কমিশনার ৫) রাজ্য পুলিশের ডিজি ৬) ডিজি দমকল ৭) আয়কর ও শুল্ক দফতরের কমিশনার ৮) পুলিশের আই জি ও ডি আই জি ৯) প্রতিটি জেলার জেলাশাসক (তাঁদের নিজস্ব এলাকায়) ১০)মিউনিসিপাল কমিশনার ১১) রাজ্য মিউনিসিপাল কমিশনার ১২) বিভিন্ন জেলার পুলিশ সুপার ১৩) সাব ডিভিশনাল অফিসার ও পুলিশের সাব ডিভিশনাল অফিসার ১৪ ) পুলিশের প্যাট্রোল কার

    প্রসঙ্গত, এর আগে সংখ্যাটা ছিল ১৯ জন। মূলত সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশেই ২০১৪ সালের ১৯ জুন এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিল রাজ্যের পরিবহন দফতর। যা সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশের উপর ভিত্তি করেই তৈরি করা হয়েছিল। মূলত সাত বছর আগের নির্দেশিকা এবার পুনর্বিবেচনা করে পরিবর্তন করল রাজ্য সরকার।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: