• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • Bengali News| Kolkata Bikers breaking Penalized| পুজোয় রাস্তায় বাইকে ঝড় তোলা, রেকর্ড গড়ে আইনভাঙার যে মাশুল নিল কলকাতা পুলিশ

Bengali News| Kolkata Bikers breaking Penalized| পুজোয় রাস্তায় বাইকে ঝড় তোলা, রেকর্ড গড়ে আইনভাঙার যে মাশুল নিল কলকাতা পুলিশ

বাইক দৌরত্ম্য রুখতে রেকর্ড করল কলকাতা পুলিশ।

বাইক দৌরত্ম্য রুখতে রেকর্ড করল কলকাতা পুলিশ।

Bengali News| Kolkata Bikers breaking Penalized|এবার পুজোয় ২০১৯ সালের চেয়ে পাঁচগুণ বেশি বাইক ধরা হয়েছে।

  • Share this:

    #অমিত সরকার, কলকাতা: এবার পুজোয় বিগত দু'বছরের পরিসংখ্যানকে ছাপিয়ে মাত্রাতিরিক্ত গতিতে চলা বাইকের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করে রেকর্ড গড়ল কলকাতা পুলিশ। এবার পুজোয় ২০১৯ সালের চেয়ে পাঁচগুণ বেশি বাইক ধরা হয়েছে। ধৃতরা মোটর ভেহিক্যাল আইনের ১৮৩ ধারা লঙ্ঘন করেছে অর্থাৎ দ্রুত গতিতে বাইক চালিয়েছেন।এবার মোট ৪৫০টি বাইকের বিরুদ্ধে দ্রুত গতিতে চালানোর জন্য ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

    এর মধ্যে তৃতীয়ার রাতে সবচেয়ে বেশি পদক্ষেপ হয়েছে। সংখ্যা ছিল ৭৭। যেখানে ২০১৯ সালে পুজোর দিনগুলিতে লাগামছাড়া গতিতে বাইক চালানোর বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল ৯০। গত বছর ২০২০তে সংখ্যা ছিল ১০৭।

    এখানেই শেষ নয় বেপরোয়া বাইক চালানোর বিরুদ্ধেও এবার কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। তৃতীয়া থেকে দশমী পর্যন্ত মোট ১১৪৩টি বাইকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, যারা মোটর ভেহিক্যাল আইনের ১৮৪ ধারা লঙ্ঘন করেছে। এই পরিসংখ্যান গত দুবছরের তুলনায় অনেকটাই বেশি।

    আরও পড়ুন-পুজোর বিশেষ উপহার, এবার উত্তরবঙ্গের জন্যে প্রচুর স্পেশাল বাস রাজ্য পরিবহণ দফতরের

    এ বছর অষ্টমীর দিন রাস্তায় সবচেয়ে বেশি বেপরোয়া ভাবে বাইক চলেছে বলে জানাচ্ছে পুলিস। ওই দিন ১৭৮ জনের বিরুদ্ধে বেপরোয়া ভাবে বাইক চালানোর অভিযোগে ব্যবস্থা নিয়েছে কলকাতা পুলিশ।

    বাইকে তিন জন সওয়ারি ক্ষেত্রেও এবার ৫১৬০ জনের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ২০১৯ সালে সংখ্যাটা ছিল ১৮৫৬। হেলমেট ছাড়া বাইক চালানোর ক্ষেত্রেও পুজোর দিনগুলোতে কোনও ছাড় দেয়নি লালবাজার। প্রথম থেকেই পদক্ষেপ করার নির্দেশ ছিল কর্তাদের। এবার পুজোতে হেলমেট ছাড়া ৭৫৮৭ জনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে পুলিস। ২০১৯ সংখ্যাটা ছিল ৪৫৩৪ । তবে ২০২০ সালে সংখ্যা এবারের থেকেও বেশি ছিল। ৮১৮৩ জন হেলমেট ছাড়া বাইক নিয়ে রাস্তায় বেরিয়েছিলেন।

    Published by:Arka Deb
    First published: