• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • দূরশিক্ষা পাঠক্রমের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের অনুমোদন পেল না রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়, সমস্যায় কয়েক হাজার ছাত্র-ছাত্রী

দূরশিক্ষা পাঠক্রমের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের অনুমোদন পেল না রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়, সমস্যায় কয়েক হাজার ছাত্র-ছাত্রী

স্নাতকোত্তর স্তরের ইংরেজি, ইতিহাস,রাষ্ট্রবিজ্ঞান, এডুকেশন, ভূগোলের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলির অনুমোদন দেওয়া হল না রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়কে।

স্নাতকোত্তর স্তরের ইংরেজি, ইতিহাস,রাষ্ট্রবিজ্ঞান, এডুকেশন, ভূগোলের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলির অনুমোদন দেওয়া হল না রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়কে।

স্নাতকোত্তর স্তরের ইংরেজি, ইতিহাস,রাষ্ট্রবিজ্ঞান, এডুকেশন, ভূগোলের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলির অনুমোদন দেওয়া হল না রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়কে।

  • Share this:

#কলকাতা:

ইউজিসির সঙ্গে ফের সংঘাতে যেতে চলেছে রাজ্য? অন্তত রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে দূরশিক্ষার অনুমোদন না মেলায় আশঙ্কা তেমনটাই। মার্চ মাসে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় চলতি শিক্ষাবর্ষের জন্য স্নাতকোত্তর স্তরের ১১ টি বিষয়ের জন্য দূরশিক্ষার অনুমোদন চায় ইউজিসির থেকে। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে খবর, গত ৫ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়কে ইউজিসির তরফে জানানো হয়েছে, চলতি শিক্ষাবর্ষের জন্য শুধুমাত্র ৬টি বিষয়কেই দূরশিক্ষার জন্য অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে। সেক্ষেত্রে স্নাতকোত্তর স্তরের ইংরেজি, ইতিহাস,রাষ্ট্রবিজ্ঞান, এডুকেশন, ভূগোলের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলির অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে না। ইউজিসির তরফে জানানো হয়েছে এই বিষয়গুলি জন্য প্রয়োজনীয় অধ্যাপক দূরশিক্ষার আইন অনুযায়ী নেই। তার জন্যই অনুমোদন দেওয়া হল না। এই প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সব্যসাচী বসু রায় চৌধুরী বলেছেন "আমরা অধ্যাপক নিয়োগ করে ফের ইউজিসির কাছে আবেদন জানাব এই বিষয়গুলোতে দূরশিক্ষার অনুমোদন পাওয়ার জন্য।"

রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে খবর, বাংলা, পরিবেশ বিদ্যা, সোশ্যাল ওয়ার্ক, রবীন্দ্র সংগীত, ভোকাল মিউজিক ও সংস্কৃত বিষয়ে পড়ানোর জন্যই অনুমোদন পেয়েছে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।ইউজিসির তরফে যে চিঠি দেওয়া হয়েছে তাতে বলা হয়েছে ২০২৫-২৬ শিক্ষাবর্ষ পর্যন্ত এই অনুমোদন দেওয়া হল। তবে সেক্ষেত্রে ইউজিসির তরফে চিঠিতে বলা হয়েছে পরিকাঠামোগত যে সকল সমস্যা রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সেগুলি সংশোধন করতে পারে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। সংশোধন করে ফের আবেদন জানাতে পারে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। যদিও এই মুহূর্তে ইউজিসি তরফে আর কোনো আবেদন নেওয়া হবে না দুরশিক্ষার পাঠক্রমের জন্য। তবে ইউজিসির তরফে যখন আবেদনপত্র চাওয়া হবে তখন আবেদন জানাতে পারে দূরশিক্ষার পাঠক্রমের জন্য বলেই ইউজিসির তরফে চিঠিতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত এর আগেও দূরশিক্ষার পাঠ্যক্রমের অনুমোদন নিয়ে সমস্যায় পড়েছে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পরিকাঠামো, একাধিক প্রার্থী রয়েছে বলে জানিয়ে ইউজিসির তরফে এর আগেও দূরশিক্ষার অনুমোদন দেওয়া হয়নি। যদিও ইউজিসির সঙ্গে পরবর্তীকালে আলোচনা করে ফের দূরশিক্ষার অনুমোদন পেয়েছে রবীন্দ্রভারতী। তবে স্নাতকোত্তর স্তরের এই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলিতে অনুমোদন না পাওয়ায় রাজ্যের বহু ছাত্র-ছাত্রী সমস্যার মুখে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তার কারণ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের ছাত্রছাত্রীরা রবীন্দ্রভারতীর দূরশিক্ষার উপর নির্ভর করে থাকে। ইতিমধ্যেই উচ্চশিক্ষা দপ্তর ও এই বিষয় নিয়ে আলাপ আলোচনা শুরু করেছে বলেই সূত্রের খবর। যদিও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় গুলির দূরশিক্ষার অনুমোদন না পাওয়ায় রাজ্য জেফের ইউজিসিকে চিঠি লিখতে চলেছে তাতে কোনও সন্দেহ নেই।

Published by:Suman Majumder
First published: