নেতাজি নগরে খুন বৃদ্ধ দম্পতি

নেতাজি নগরে খুন বৃদ্ধ দম্পতি
নেতাজিনগরে খুন বৃদ্ধ দম্পতি

নেতাজিনগরে খুন বৃদ্ধ দম্পতি। বাড়ি থেকে দিলীপ ও স্বপ্না মুখোপাধ্যায়ের দেহ উদ্ধার। পরিচারিকার দাবি, বাড়ি বিক্রির জন্য প্রায়ই ফোন আসত প্রোমোটারের।

  • Share this:

#কলকাতা: নেতাজিনগরে খুন বৃদ্ধ দম্পতি। বাড়ি থেকে দিলীপ ও স্বপ্না মুখোপাধ্যায়ের দেহ উদ্ধার। পরিচারিকার দাবি, বাড়ি বিক্রির জন্য প্রায়ই ফোন আসত প্রোমোটারের। তাহলে কি প্রোমোটার চক্রেই খুন? বাড়ি থেকে খোয়া গিয়েছে নগদ টাকাও। তাই লুঠের উদ্দেশে খুনের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছে না পুলিশ।

নেতাজিনগরে এই দোতলা বাড়িতে থাকতেন নিঃসন্তান বৃদ্ধ দম্পতি দিলীপ ও স্বপ্না মুখোপাধ্যায়। এটি স্বপ্না মুখোপাধ্যায়ের পৈতৃক বাড়ি। দিলীপ মুখোপাধ্যায় একটি কেিমক্যাল ফ্যাক্টরিতে চাকরি করতেন। স্ত্রীর সঙ্গে তিনিও এই বাড়িতে থাকতেন। মঙ্গলবার এই বাড়ি থেকেই দু’জনের দেহ উদ্ধার হয়।

বাড়িতে ঢোকার দরজার পাশেই চিত হয়ে পড়েছিল বৃদ্ধার দেহ। মুখে ঢোকানো ছিল প্লাস্টিকের পাইপ। মুখ,নাক,কান দিয়ে রক্ত বেরোচ্ছিল। বৃদ্ধের দেহ পড়েছিল দোতলার ঘরে বিছানার উপর। খাটের উপরে পড়েছিল তাঁর মোবাইলও।

পাড়ায় ভাল মানুষ বলেই পরিচিত ছিলেন দম্পতি। পরিচারিকার দাবি, বাড়ি বিক্রির জন্য লাগাতার ফোন আসত প্রোমোটারের। দম্পতির আপত্তি সত্ত্বেও প্রোমোটাররা চাপ দিত। তাহলে কি প্রোমোটার চক্রেই খুন?

নিহতদের ঘর ছিল লন্ডভন্ড অবস্থায়। বাড়ি থেকে খোয়া গিয়েছে নগদ টাকাও। লুঠের উদ্দেশে খুনের সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে না।

ওই বাড়ির নীচে একটি দোকান ভাড়া দিয়েছিলেন বাড়িরই এক ভাড়াটে। দম্পতি দোকানমালিককে উঠে যেতে বললেও কাজ হয়নি। তা নিয়ে সম্প্রতি গন্ডগোলও হয়। দোকানমালিককেও সন্দেহের তালিকায় রাখছে পুলিশ।

পুলিশ মনে করছে, রাতে পরিচিত কেউ বাড়িতে এসেছিল। সেইকারণেই দরজা খুলে দিয়েছিলেন দু’জনের মধ্যে কেউ একজন। বৃদ্ধা দরজার পাশেই পড়েছিলেন। এক্ষেত্রে, দু’টি সম্ভাবনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। হয়,

- বৃদ্ধা দরজা খুলতেই তাঁকে খুন করে আততায়ী

- এরপর দোতলায় উঠে বৃদ্ধকে খুন করে

- অথবা, বৃদ্ধকে দোতলায় খুন করার পর বৃদ্ধাকে আক্রমণ করে আততায়ী

- বৃদ্ধা পালাতে গেলে দরজার সামনে খুন করে

কী কারণে খুন? রহস্যের কিনারা করতে সমস্ত সম্ভাবনা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ঘটনাস্থল থেকে নমুনা সংগ্রহ করেছে ফরেনসিক দল।

First published: 08:28:36 PM Jul 30, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर