নিমতিতা বিস্ফোরণ-কাণ্ড: মন্ত্রী জাকির হোসেনের উপর হামলার তদন্তভার নিল NIA

নিমতিতা বিস্ফোরণ-কাণ্ড: মন্ত্রী জাকির হোসেনের উপর হামলার তদন্তভার নিল NIA

নিমতিতাকাণ্ডের তদন্ত করবে এনআইএ।

খাগড়াগড় বিস্ফোরণ-কাণ্ডের পর ফের রাজ্যের এই বিস্ফোরণের ঘটনার তদন্ত করবে জাতীয় তদন্তকারী এই সংস্থা। এর আগে ২০১৪ সালে খাগড়াগড়ের ঘটনার তদন্ত করে জেএমবি-যোগ পাওয়া গিয়েছিল।

  • Share this:

    #কলকাতা: মুর্শিদাবাদের নিমতিতা রেলস্টেশনে রাজ্যের শ্রম-প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেনের উপর হামলা ও বিস্ফোরণের তদন্তভার নিল NIA (ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি)। এর আগে এই ঘটনার তদন্ত করছিল সিআইডি ও রাজ্য পুলিশের স্পেশ্যাল ইনভেস্টিগেশন টিম (SIT)। খাগড়াগড় বিস্ফোরণ-কাণ্ডের পর ফের রাজ্যের এই বিস্ফোরণের ঘটনার তদন্ত করবে জাতীয় তদন্তকারী এই সংস্থা। এর আগে ২০১৪ সালে খাগড়াগড়ের ঘটনার তদন্ত করে জেএমবি-যোগ পাওয়া গিয়েছিল।

    জানা গিয়েছে, দু'দিন ধরে ঘটনাস্থল পর্যবেক্ষণ করে এনআইএ রিপোর্ট পাঠিয়েছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকে। পর্যবেক্ষণে উঠে এসেছে যে, ঘটনাস্থলে বোমার বিস্ফোরণে প্রায় সাড়ে তিন ফুট গর্ত হয়েছিল। পাশেও একাধিক গর্ত তৈরি হয়েছে। পাশাপাশি, মন্ত্রীকে লক্ষ করে এমন ভয়াবহ পরিকল্পনামাফিক হামলাকে ছোট করে দেখতে চাইছে না স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। ফলে এনআইএ-র হাতেই তদন্তভার তুলে দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই সিআইডি ও সিটের তদন্তকারী দলের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে এনআইএ।

    মুর্শিদাবাদের নিমতিতা স্টেশনের ২ নম্বর প্ল্যাটফর্মে বোমা বিস্ফোরণে গুরুতর জখম হয়েছিলেন রাজ্যের শ্রম প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন-সহ একাধিক। ঘটনাটি ঘটেছিল গত ১৭ ফেব্রুয়ারি রাতে। সেই সময় স্টেশন থেকে কলকাতাগামী ট্রেন ধরতে যাচ্ছিলেন মন্ত্রী। বিস্ফোরণের ঘটনায় এর আগে এক বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। শুক্রবার আরও দুই দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। ধৃতদের নাম সাইদুল শেখ ও আবু সামাদ। দু'জনেই সুতি রঘুনাথপুরের বাসিন্দা।

    প্রাথমিক ভাবে তদন্তকারীদের অনুমান, এই ঘটনার সঙ্গেও বাংলাদেশের জঙ্গিগোষ্ঠীর যোগ থাকতে পারে। কারণ, ইতিমধ্যেই এক বাংলাদেশি নাগরিক, ওই স্টেশনে হকারের কাজ করত এমন একজনকে জালে নিয়েছে পুলিশ। পরে ধৃত আরও দু'জনের মধ্যে সাইদুল নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে মন্ত্রীর পুরনো শত্রুতা আছে বলেও জানা গিয়েছে।

    Published by:Raima Chakraborty
    First published: