• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে বিনিয়োগে আগ্রহী একাধিক সংস্থা, আগামী দিনে দুহাজারের মতও কর্মসংস্থানের সম্ভাবনা, দাবি শিল্পমন্ত্রীর

তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে বিনিয়োগে আগ্রহী একাধিক সংস্থা, আগামী দিনে দুহাজারের মতও কর্মসংস্থানের সম্ভাবনা, দাবি শিল্পমন্ত্রীর

দেশ বিদেশের বিনিয়োগে ইচ্ছুক সংস্থাগুলি রাজ্যের ডাটা পলিসি তৈরির প্রস্তাব দিয়েছে। সেই সঙ্গে শিল্প স্থাপনে সহায়ক বিভিন্ন রকম সাহায্যর আবেদনও জানিয়েছে।

দেশ বিদেশের বিনিয়োগে ইচ্ছুক সংস্থাগুলি রাজ্যের ডাটা পলিসি তৈরির প্রস্তাব দিয়েছে। সেই সঙ্গে শিল্প স্থাপনে সহায়ক বিভিন্ন রকম সাহায্যর আবেদনও জানিয়েছে।

দেশ বিদেশের বিনিয়োগে ইচ্ছুক সংস্থাগুলি রাজ্যের ডাটা পলিসি তৈরির প্রস্তাব দিয়েছে। সেই সঙ্গে শিল্প স্থাপনে সহায়ক বিভিন্ন রকম সাহায্যর আবেদনও জানিয়েছে।

  • Share this:

    #কলকাতা: করোনা আবহের মধ্যেই রাজ্যে বিনিয়োগের সম্ভাবনা। তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে রাজ্যে বিনিয়োগে আগ্রহী একাধিক সংস্থা এমনই দাবি করলেন রাজ্যের শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। রাজারহাট নিউটাউনে ইনফোসিস নতুন করে কাজ শুরু করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। কাজ শুরুর কুড়ি মাসের মধ্যে তারা নিজেদের প্রকল্পের কাজ শেষ করতে চায়। ১২৫টি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনার পর এমনই আশার কথা শোনালেন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একইসঙ্গে তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে ডাটা সেন্টার তৈরিতে জোর দিয়েছে রাজ্যের তথ্যপ্রযুক্তি দফতর। বিনিয়োগের লক্ষ্যে এই ক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থার সঙ্গে মউ স্বাক্ষর করতে চলেছে রাজ্য সরকার। ইতিমধ্যে মউ স্বাক্ষরে আগ্রহী ইয়োটা লিমিটেড, সিটিআরএল লিমিটিডের মতও সংস্থা। শুধু তাই নয় নিউ টাউনের তথ্য প্রযুক্তি তালুক সিলিকন ভ্যালিতে শিল্প স্থাপনেও একাধিক সংস্থা আগ্রহ দেখিয়েছেন বলে দাবি করেছেন পার্থবাবু।

    ইতিমধ্যে রিলায়েন্সের তরফে ৪০ একর জমিতে কাজ শুরু হয়েছে। আইটিসি ইনফোটেকের মতও সংস্থার কাজ প্রায় শেষের দিকে বলে দাবি করেছেন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। দেশ বিদেশের বিনিয়োগে ইচ্ছুক সংস্থাগুলি রাজ্যের ডাটা পলিসি তৈরির প্রস্তাব দিয়েছে। সেই সঙ্গে শিল্প স্থাপনে সহায়ক বিভিন্ন রকম সাহায্যর আবেদনও জানিয়েছে। এদিনের আলোচনার ইনসেনটিভ স্কিম, বিদ্যুতের মাসুলে ছাড়পত্র সব একাধিক বিষয় উঠে আসে।

    পার্থবাবু আরও জানিয়েছেন, সোনারপুরে ইলেকট্রিক্যাল ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিট তৈরি হবে। তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে ওয়েবেল ও সংশ্লিষ্ট দফতর একযোগে উৎসাহব্যঞ্জক। আইটি পার্কে শিল্পস্থাপনের জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছিল। ইতিমধ্যে ৮৮টি মডিউলের জন্য আবেদন জমা পড়েছে। এর ফলে আগামী দিনে দুহাজারের মতও কর্মসংস্হানের সম্ভাবনা রয়েছে। রাজ্যের তথ্যপ্রযুক্তি দফতরের তরফে শিল্প সংস্থাগুলির কাছে আবেদন, ‘আপনারা কাজ শুরু করুন, জমি দেব আমরা’। শিল্প সংস্হাগুলির সঙ্গে আলোচনার প্রেক্ষিতে ছ’মাস পরে রিভিউ মিটিং হবে। একইসঙ্গে শিল্প সংস্থাগুলি যে সকল প্রস্তাব দিয়েছে, তা মুখ্যমন্ত্রীর নজরে আনতে চলেছে তথ্যপ্রযুক্তি দফতর। সব মিলিয়ে এদিনের আলোচনা থেকে তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে বিনিয়োগে আশার আলো দেখছেন বিভাগের কর্তারা।

    Amit Sarkar

    Published by:Pooja Basu
    First published: