নেতাজি জন্মজয়ন্তীতে মমতা মঞ্চে উঠতেই 'জয় শ্রীরাম'|| প্রতিবাদে একটি শব্দও বললেন না ক্ষুব্ধ মমতা

নেতাজি জন্মজয়ন্তীতে মমতা মঞ্চে উঠতেই 'জয় শ্রীরাম'|| প্রতিবাদে একটি শব্দও বললেন না ক্ষুব্ধ মমতা
ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে মমতা।

তাঁর নাম ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই জয় শ্রীরাম ধ্বনি ওঠায় প্রতিবাদে গর্জে উঠলেন মমতা।

  • Share this:

    #কলকাতা: কথা ছিল ভিক্টোরিয়ার অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদির পাশাপাশি বক্তব্য রাখবেন তিনিও। কিন্তু তাল কাটল শুরুতেই। মঞ্চে বক্তা হিসেবে তাঁর নাম ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই জয় শ্রীরাম ধ্বনি ওঠায় প্রতিবাদে গর্জে উঠলেন মমতা। বক্তব্য রাখলেন না। বললেন, "কাউকে ডেকে অপমান করা উচিত নয়।"

    এ দিন ভিক্টোরিয়ায় মমতার নাম ঘোষণা হতেই জয় শ্রীরাম ধ্বনি দিতে থাকেন একদল দর্শক। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মঞ্চ থেকে বলেন, "আমি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই কলকাতায় অনুষ্ঠান পালনের আয়োজন করার জন্য। কিন্তু কাউকে আমন্ত্রণ জানিয়ে অপমানিত করা উচিত নয়। আমি এই ঘটনার প্রতিবাদে এই অনুষ্ঠানে কোনও বক্তব্য রাখতে চাই না।"

    প্রসঙ্গত এ দিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নেতাজি ভবনে নেতাজির মূর্তিতে মাল্যদান করেন। এর পর শ্যামবাজার থেকে রেড রোড পর্যন্ত একটি বর্ণাঢ্য মিছিল করেন। নেতাজির জন্মদিনে কলকাতাকে দেশের অন্যতম রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করার দাবি তোলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ শুধু কলকাতাই নয়, দেশের চার প্রান্ত চারটি রাজধানী ঘোষণা করার দাবি জানিয়েছেন মমতা৷ দিল্লিতেই কেন রাজধানী সীমাবদ্ধ হয়ে থাকবে, সেই প্রশ্নও তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ দেশের চারটি রাজধানীতে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দেশের চার রাজধানীতে সংসদীয় অধিবেশন বসানোরও দাবি তুলেছেন মমতা৷ পূর্ব নির্ধারিত না হলেও, পরে মোদিও যান নেতাজি ভবনে। নেতাজি ভবনে প্রধানমন্ত্রীকে সাদরে আমন্ত্রণ জানানো হয়। কিন্তু স্বপন দাশগুপ্ত কৈলাসবিজয়বর্গীরা সেখানে ঢুকতে পারেননি সেখানে। নেতাজি ভবনের সামনেও জয়শ্রীরাম ধ্বনি তুলেছিল একদল মোদি ভক্ত।

    সেখান থেকে জাতীয় গ্রন্থাগার হয়ে মোদি আসেন ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালে। সেই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ও। বক্তা হিসেবে তাঁর নাম ঘোষিত হতেই শোনা যায় জয় শ্রীরাম ধ্বনি। অনুষ্ঠানের তাল কাটে।

    Published by:Arka Deb
    First published: