• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • KALIKAPUR CANAL IRON WALL TO BE REMOVED SOON JADAVPUR PATULI PEOPLE BE RELIEVED SANJ

Kalikapur Canal : যাদবপুর-পাটুলির জল-যন্ত্রনা মেটাতে উদ্যোগী পুরসভা! কালিকাপুর ক্যানেলে থেকে সরছে লোহার দেওয়াল...

ক্যানেল পরিদর্শনে ফিরহাদ হাকিম

Kalikapur Canal : দক্ষিণ কলকাতার যাদবপুর, বাঘাযতীন, সন্তোষপুর ও পাটুলির বিভিন্ন এলাকায় এবার বর্ষার শুরু থেকে জমা জলে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন এলাকার মানুষ। জল যন্ত্রণা (Water issue) থেকে খুব শীঘ্রই রেহাই পেতে চলেছেন তাঁরা। কালিকাপুরে টিপি ক্যানেলে (Kalikapur Canal) লোহার দেওয়াল সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

  • Share this:

#কলকাতা : ঘণ্টাখানেকের টানা বৃষ্টিতে জলমগ্ন (Waterlogged) হয়ে পরে শহরের বিভিন্ন এলাকা। বিশেষ করে দক্ষিণ কলকাতার যাদবপুর, বাঘাযতীন, সন্তোষপুর ও পাটুলির বিভিন্ন এলাকায় এবার বর্ষার শুরু থেকে জমা জলে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন এলাকার মানুষ। কিছু কিছু এলাকায় দীর্ঘক্ষণ জল থাকে বলে অভিযোগ। এমনকি স্থানীয়দের তরফে জল যন্ত্রণার কথা জানিয়ে ওয়ার্ড কো-অর্ডিনেটরদের কাছেও অভিযোগ জমা পড়ে। এই জল যন্ত্রণা (Water issue) থেকে খুব শীঘ্রই রেহাই পেতে চলেছেন তাঁরা। কালিকাপুরে টিপি ক্যানেলে (Kalikapur Canal) মেট্রোর কাজের জন্য দেওয়া লোহার দেওয়াল সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার টিপি ক্যানেল পরিদর্শনে যান ফিরহাদ হাকিম। 'কেন জমা জল নামতে সময় লাগছে?' তা নিয়ে কলকাতা পুরসভায় বিস্তর আলোচনা হয়। পুরসভার প্রশাসনিক বোর্ডের চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম জানিয়েছিলেন, বেশ কিছু জায়গায় মেট্রোর কাজের জন্য জল নামতে সময় লাগছে। বাইপাস সংলগ্ন খাল, ক্যানেলগুলিও পরিদর্শন করেন তারক সিং।

এদিন দক্ষিণ কলকাতার যাদবপুর পাটুলির জল যন্ত্রণা নিয়ে মেট্রো কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করেন ফিরহাদ হাকিম। এই বৈঠকে ছিলেন সেচ, কেএমডিএ-এর আধিকারিকরা। ছিলেন যাদবপুর, পাটুলি সংলগ্ন এলাকার ওয়ার্ড কো-অর্ডিনেটররা । ছিলেন এলাকার বিধায়ক দেবব্রত মজুমদার। ওই বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে কালিকাপুর মোড়ে টিপি ক্যানেলের যে অংশে মেট্রোর পিলার তৈরির জন্য লোহার দেওয়াল তুলে জল আটকে রাখা আছে, সেই লোহার দেওয়াল কেটে ফেলা হবে দিন কয়েকের মধ্যে। কারণ ওখানে ইতিমধ্যে পিলার তৈরির কাজ সম্পন্ন হয়েছে । তাই ওই লোহার দেওয়ালগুলো কেটে দিলে আগের মতও জল নিকাশিতে আর কোনও বাধা থাকবে না।

এদিন আধিকারিকদের সঙ্গে নিয়ে টিপি ক্যানেল পরিদর্শন করেন ফিরহাদ হাকিম। তিনি বলেন, এই ক্যানেল দিয়ে যাদবপুর, সন্তোষপুর, পাটুলির জল নিকাশি হয়ে থাকে। এই এলাকার জল চৌবাগা খালে গিয়ে পড়ে এই ক্যানেল দিয়েই। মেট্রোর কাজের জন্য জল আটকে রাখা হয়েছিল। এই অংশে পিলার তৈরির কাজ শেষ গিয়েছে, মেট্রো কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা হয়েছে ক্যানেলের ভিতর তৈরি লোহার দেওয়ালগুলি সরিয়ে ফেলা হবে। তাতে বাধা জল বেরিয়ে পড়বে। আগামী দিনে যাদবপুর ও সংলগ্ন এলাকায় জল জমবে না বলেই আশাবাদী ফিরহাদ হাকিম। শুধু টিপি ক্যানেল নয় নোনাডাঙা ড্রেনেজ পাম্পিং সিস্টেমও পরিদর্শন করেন তিনি।

অমিত সরকারের প্রতিবেদন

Published by:Sanjukta Sarkar
First published: