Soumen Roy returned toTMC| এবার বিজেপি থেকে ঘরওয়াপাসি কালিয়াগঞ্জের বিধায়ক সৌমেন রায়ের! হ্যাটট্রিক তৃণমূলের

এবার তৃণমূলে কালিয়াগঞ্জের বিধায়ক সৌমেন রায়।

Soumen Roy returned toTMC| আজ দলীয় কার্যালয়ে তাঁর হাতে পতাকা তুলে দিলেন তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়া।

  • Share this:

    #কলকাতা: বারবার তিনবার। হ্যাঁ, মুকুল রায়ের পথ ধরে এই নিয়ে তৃতীয় বিধায়ক ফুলবদল করলেন। তন্ময় ঘোষ, বিশ্বজিৎ দাসের পর আজ আনুষ্ঠানিক ভাবে বিজেপি থেকে তৃণমূলে এলেন কালিয়াগঞ্জের বিধায়ক সৌমেন রায়। আজ দলীয় কার্যালয়ে তাঁর হাতে পতাকা তুলে দিলেন তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়া।

    সৌমেন যে তৃণমূলেক পথে পা বাড়িয়ে রেখেছেন, তা তিনি ঘুণাক্ষরেও বুঝতে দেননি।  দিন কয়েক আগেই উত্তরবঙ্গে বিজেপির বৈঠকে সৌমেন হাজির ছিলেন। কেউ বুঝতে পারেননি ভেতরে ভেতরে তিনিও বেসুরো। তুমি নিজেই বরং বুক ঠুকে ওই বৈঠক শেষে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, শাসকদল কাজ করতে না দেওয়ায় সমস্যা হচ্ছে। জেলাশাসকদের সাহায্য পাচ্ছি না। ফলে অনেকেই অসন্তুষ্ট। তবে আমরা বিজেপি তেই রয়েছি বিজেপিতে থাকবো।  মুখে এমন বললেও বিজেপিতে শেষমেষ থাকলেন না সৌমেন।

    পার্থ চট্টোপাধ্যায় এদিন সৌমেনকে দলে টেনে বলেন, "আমাদের দল থেকে যারা অন্য দলে চলে গিয়েছিলেন তাদের কয়েকজনকে ইতিমধ্যেই আমরা দলে ফিরিয়ে নিয়েছিলাম। এবার বিজেপির বিধায়ক সৌমেন রায় দলে যোগ দিতে আবেদন করেছিল। উত্তরবঙ্গে কাজের জন্যে  মমতা বন্দোপাধ্যায়ের পাশে থাকতে চেয়েছিলেন। তাই তাঁকে নেওয়া হল।"

    সৌমেন স্পষ্টই আজ বলেন, "মাঝখানে বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছিলাম। তার জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী। দিদির উন্নয়নকে সামনে রেখেই উত্তরবঙ্গের জন্য কাজ করতে চাই।" সৌমেনের যুক্তি শুধু তিনিই নন, দলে ফেরার জন্য অপেক্ষমান অনেকেই।

    সৌমেনের যুক্তি ঘটনাচক্রে তিনি বিজেপিতে গিয়েছিলেন, কিন্তু তার মন পড়েছিল তৃণমূলে। এদিন শুভেন্দু অধিকারীর নাম না নিয়েই বলেন, "বিরোধী দলনেতার সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তাঁর সঙ্গে কেউ যোগাযোগ করতে পারে না।" কেন বিজেপি ছাড়লেন সৌমেন? প্রশ্ন করতেই সৌমেনের উত্তর, "বিজেপির কালচারের সাথে বাংলার কালচার মেলে না৷ আর বিজেপির বিভাজনের রাজনীতি বাঙালি পছন্দ করে না।বাংলা এক ছিল, এক‌ই থাকবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে।"

    কালিয়াগঞ্জের বিধায়ক সৌমেন রায়ও কৈলাশ বিজয়বর্গীর প্রার্থী ছিলেন। সূত্রের খবর, অনন্ত  মহারাজের সুপারিশে প্রার্থী হয়েছিল তাঁকে। এক সপ্তাহে তিন উইকেট, উপনির্বাচনের মুখে বিজেপি ব্যাকফুটেই। এখন অপেক্ষা উত্তরবঙ্গ থেকে আর কত উইকেট তুলতে পারে তৃণমূল তা দেখার।

    -আবীর ঘোষাল

    Published by:Arka Deb
    First published: