ধর্মঘটের মিশ্র প্রভাব যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে, ক্যারাম ও দাবা খেলেই দিনভর প্রতিবাদ

ধর্মঘটের মিশ্র প্রভাব যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে, ক্যারাম ও দাবা খেলেই দিনভর প্রতিবাদ

বুধবার দিনভর যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় এর চার নম্বর গেটে ই দিনভর অবস্থান-বিক্ষোভ চালিয়ে গেলেন এসএফআই সহ বেশ কয়েকটি ছাত্র সংগঠন।

  • Share this:

SOMRAJ BANDOPADHYAY #কলকাতা: বুধবার ধর্মঘটের মিশ্র প্রভাব যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে। ধর্মঘটকে কেন্দ্র করে অশান্তির আশঙ্কা থাকলেও তা না হলেও দিনভর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ নম্বর গেট অবরুদ্ধ করে অবস্থান-বিক্ষোভ চালিয়ে গেলেন এসএফআই সহ কয়েকটি ছাত্র সংগঠন। তবে ধর্মঘটকে কেন্দ্র করে অন্য ছবি ও ধরা পড়ল বিশ্ববিদ্যালয়ের চার নম্বর গেটের সামনে। বেলা বাড়তেই ধর্মঘটী ছাত্রছাত্রীরা রাস্তাতেই দাবা, ক্যারাম খেলা শুরু করেন। শুধু তাই নয়, রাস্তাতেই ক্রিকেটও খেলেন তাঁরা। বেলা সাড়ে বারোটার পর থেকে ১০ মিনিট অন্তর অন্তর রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান যাদবপুরের পড়ুয়ারা।

বুধবারের ধর্মঘটকে ঘিরে এক অন্য ছবি দেখল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। ধর্মঘট কে সমর্থন করেই বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা রাস্তাতেই খেললেন ক্যারাম ও দাবা। শুধু তাই নয় দফায় দফায় রাস্তা অবরোধও করলেন যাদবপুরের পড়ুয়ারা। এ প্রসঙ্গে এসএফআইয়ের সদস্য দেবরাজ দেবনাথ বলেন, "এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদ জানানোর জন্য আমরা দাবা ও ক্যারাম খেলাকেই প্রতিবাদের ভাষা হিসাবে বেছে নিয়েছি"।

অন্যদিকে এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে গত কয়েকদিন ধরেই মহানগরের রাজপথে মিছিল, অবস্থান করে আন্দোলনে সামিল হয়েছেন যাদবপুরের পড়ুয়ারা। শুধু তাই নয়, জহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ে গত রবিবার ছাত্র সংসদের সভাপতিকে মারধরের ঘটনায় সোচ্চার হয়েছেন যাদবপুরের পড়ুয়ারা। বুধবারের ধর্মঘটকে সফল করার জন্য গত কয়েকদিন ধরেই প্রচার চালিয়ে যাচ্ছিলেন এসএফআই সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য ছাত্র সংগঠনগুলি। বুধবার সকাল ৯ টা থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের চার নম্বর গেটে অবস্থানে বসেন এসএফআইয়ের সদস্যরা। কার্যত ৪ নম্বর গেট অবরুদ্ধ হয়ে যায়। তার জেরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন কর্মীও পড়ুয়ারা বাধাপ্রাপ্ত হন ঢুকতে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্ট্রার স্নেহমঞ্জু বসু জানিয়েছেন, "বিশ্ববিদ্যালয়ের আধিকারিক ও কর্মচারীদের বেশিরভাগই উপস্থিত ছিলেন।" তবে অধ্যাপকদের উপস্থিতি খুব একটা ছিল না বিশ্ববিদ্যালয়ে। শুধু তাই নয়, বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে খবর এদিন বেশিরভাগ ছাত্র-ছাত্রীরাই অনুপস্থিত ছিল। তার জেরে সেইভাবে কোনও ক্লাস হয়নি এদিন বিশ্ববিদ্যালয়। এ প্রসঙ্গে অবশ্য এসএফআইয়ের সদস্য ঊষসী পাল জানিয়েছেন, "বুধবারের ধর্মঘটকে সমর্থন করার জন্য সবাইকে আবেদন জানানো হয়েছিল। সেই আবেদনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকলেই সাড়া দিয়েছেন"। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র ধর্মঘট সফল হয়েছে বলেও তিনি দাবি করেন।

First published: January 8, 2020, 8:51 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर