এখনও মেলেনি কমিশনের স্বীকৃতি, ধার করা নাম- প্রতীকে লড়ছেন আইএসএফ প্রার্থীরা

এখনও মেলেনি কমিশনের স্বীকৃতি, ধার করা নাম- প্রতীকে লড়ছেন আইএসএফ প্রার্থীরা

নির্বাচনে আইএসএফ-এর প্রতীক খাম৷ Photo-Facebook

প্রচারে থাকলেও আসলে সরকারি ভাবে এবারের বিধানসভা নির্বাচনে আইএসএফ নামে কোনও দলই লড়ছে না৷

  • Share this:

    #কলকাতা: সংযুক্ত মোর্চায় বাম- কংগ্রেসের শরিক হয়ে ভোটে লড়ছে আইএসএফ৷ তাদের প্রতীক খাম৷ কিন্তু আদতে এই প্রতীক আইএসএফ-এর ধার করা৷ আসলে এই খাম প্রতীকটি বিহারের রাষ্ট্রীয় েসকুলার মজলিস পার্টির৷ তাদের নামেই এই চিহ্ন নথিভুক্ত রয়েছে নির্বাচন কমিশনে৷ ফলে আইএসএফ প্রার্থীরাও এই রাষ্ট্রীয় সেকুলার মজলিস পার্টির নামেই নির্বাচন কমিশনে মনোনয়ন পত্র জমা দিচ্ছেন৷

    আসলে রাজনৈতিক দল হিসেবে এখনও নির্বাচন কমিশনের স্বীকৃতি পায়নি আইএসএফ৷ ফলে বাধ্য হয়েই নির্বাচনে লড়তে অন্য দলের নাম প্রতীক ধার করতে হচ্ছে তাদের৷ সবমিলিয়ে যা দাঁড়াচ্ছে, প্রচারে থাকলেও আসলে সরকারি ভাবে এবারের বিধানসভা নির্বাচনে আইএসএফ নামে কোনও দলই লড়ছে না৷

    কিন্তু কেন রাষ্ট্রীয় সেকুলার মজলিস পার্টি? আইএসএফ মেনে নিচ্ছেন দল গঠনের পর নির্বাচন কমিশনে নাম নথিভুক্ত করিয়ে প্রতীক জোগাড় করার সময় পাননি তারা৷ আর সেই কারণেই মূলত বিহারের দল রাষ্ট্রীয় সেকুলার মজলিস পার্টির নাম-প্রতীকে লড়াই করছেন আইএসএফ প্রার্থীরা৷ আইএসএফ-এর রাজ্য সভাপতি সিমুল সোরেন বলেন, 'সচেতন ভাবেই আমাদের দলের নাম রাখা হয়েছে ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট৷ আমাদের সঙ্গে আরও কয়েকটি ছোট দলের জোট রয়েছে৷ তাদের মধ্যে রাষ্ট্রীয় সেকুলার মজলিস পার্টিও রয়েছে৷ জানুয়ারি মাসে আমাদের দল গঠনের ঘোষণা হয়৷ তার পর এত কম সময়ের মধ্যে প্রতীক জোগাড় করা সম্ভব হয়নি৷ সেই কারণেই রাষ্ট্রীয় সেকুলার মজলিশ পার্টির প্রতীক খাম চিহ্ন নিয়েই আমাদের প্রার্থীরা সর্বত্র লড়বেন৷' আইএসএফ-এর রাজ্য সভাপতির দাবি, বিষয়টি বাম-কংগ্রেস নেতারাও জানেন৷ আইএসএফ-এর এই নেতা জানিয়েছেন, সংবিধান বাঁচাও পার্টি, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি অফ ইন্ডিয়ার মতো কয়েকটি ছোট দলও তাদের সঙ্গে রয়েছে৷

    রাষ্ট্রীয় সেকুলার মজলিশ পার্টির নামেই মনোনয়ন জমা দিয়েছেন চন্দ্রকোণার আইএসএফ প্রার্থী গৌরাঙ্গ দাস৷ 

    এই প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে নির্বাচনে আইএসএফ-এর অন্যতম শরিক দল কংগ্রেসের নেতা আব্দুল মান্নান বললেন, 'ওরা আমাদের বলেছিল খাম প্রতীকে লড়বে৷ এটা ওদের কোনও একটা শরিক দলের প্রতীক৷' কিন্তু এতে ভোটাররা বিভ্রান্ত হবেন না? তা অবশ্য মানতে নারাজ প্রবীণ কংগ্রেস নেতা৷ তাঁর দাবি প্রতীক দেখেই মানুষ ভোট দেবেন৷ ফলে বিভ্রান্ত হওয়ার প্রশ্ন নেই৷ এখনও পর্যন্ত আইএসএফ ২০টি মতো কেন্দ্রের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে৷ প্রথম দফায় যে কেন্দ্রগুলিতে নির্বাচন রয়েছে, তার মধ্যে চন্দ্রকোণা, মহিষাদলের মতো কেন্দ্রগুলিতে মনোনয়নও জমা দিতে শুরু করেছেন আইএসএফ প্রার্থীরা৷ সেখানও দেখা যাচ্ছে বিহারের এই সেকুলার মজলিশ পার্টির নামেই মনোনয়ন জমা দিয়েছেন আব্বাস সিদ্দিকির দলের প্রার্থীরা৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: