মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষাতেও ইন্টারনেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত

মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষাতেও ইন্টারনেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত

মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রথম দু’দিন ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ না করার কারণে পরীক্ষা চলাকালীন সময়় প্রশ্নপত্র হোয়াটসঅ্যাপে বেরিয়ে যায়।

  • Share this:

#কলকাতা: মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষাতেও ইন্টারনেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য স্বরাষ্ট্র দফতর। পরীক্ষার প্রশ্নপত্র হোয়াটসঅ্যাপে বেরোনো আটকাতেই মূলত এই সিদ্ধান্ত বলেই রাজ্য শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর। মূলত পরীক্ষা শুরুর দু'ঘণ্টা পর্যন্ত এই ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখা হচ্ছে। বিশেষত রাজ্যের মালদহ, মুর্শিদাবাদ, বীরভূম, উত্তর ২৪ পরগনা, উত্তর দিনাজপুর জেলাগুলির স্পর্শকাতর ৷ পরীক্ষা কেন্দ্র ও তার সংলগ্ন এলাকাগুলিতে ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হচ্ছে। বুধবারই উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের সভাপতি মহুয়া দাস জানিয়েছিলেন পরীক্ষা চলাকালীন সময় ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ রাখার আবেদন করা হয়েছে রাজ্য স্বরাষ্ট্র দফতরকে। সেই আবেদন মতই উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের দেওয়া স্পর্শ কাতর এলাকাগুলিতে ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হবে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার দিনগুলোতে।

মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রথম দু’দিন ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ না করার কারণে পরীক্ষা চলাকালীন সময়় প্রশ্নপত্র হোয়াটসঅ্যাপে বেরিয়ে যায়। যার জেরে একাধিক বিতর্ক শুরু হয়। আর তাই কোন ঝুঁকি না নিয়েই উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার শুরুর দিন থেকেই ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য স্বরাষ্ট্র দফতর। মাধ্যমিক পরীক্ষায়়় রাজ্যের ৭টি জেলার ৪২টি ব্লকে ইন্টারনেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। উচ্চমাধ্যমিকে অবশ্য ৬টি জেলাকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দেওয়া হলেও আরও বেশ কয়েকটি জেলায় বিচ্ছিন্নভাবে ইন্টারনেট সংযোগ বন্ধ রাখা হচ্ছে। মূলত পরীক্ষাকেন্দ্রে মোবাইল ফোন নিয়ে যাতে কেউ না ঢুকে পরে তার জন্য নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা করেছে উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। এ বছরই প্রায় ৩০০ টি পরীক্ষা কেন্দ্রে মেটাল ডিটেক্টর ব্যবহার করার কথা জানিয়েছেন সংসদ সভাপতি । শুধু তাই নয় পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রত্যেকটি ঘরে একজন করে শিক্ষক শুধুমাত্র মোবাইল ফোনের ওপর নজরদারি রাখবেন। বুধবারই সংসদ সভাপতি জানিয়েছেন মোবাইল নেই পরীক্ষার ঘরে তা নিশ্চিত হয়ে প্রশ্নপত্রের প্যাকেট খুলতে হবে।

স্কুল শিক্ষা দপ্তর সূত্রে খবর মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকের প্রত্যেকটি জেলা বিদ্যালয়় পরিদর্শক  দের পরীক্ষা কেন্দ্র গুলির উপর বিশেষভাবে নজর দিতে বলাা হয়েছে। অবশ্য সংসদের তরফে স্কুল গুলি কে চূড়ান্ত হুঁশিয়ারি দিয়েছে। পরীক্ষা পরিচালনায় গাফিলতি হলে স্কুলগুলির অনুমোদন বাতিল করে দেওয়ার কথা জানিয়েছে সংসদ সভাপতি। সব মিলিয়ে এবারের উচ্চমাধ্যমিকে প্রশ্নপত্র হোয়াটসঅ্যাপে বেরোনো আটকানোই মূল চ্যালেঞ্জ সংসদের কাছে।

সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

First published: March 12, 2020, 11:17 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर