'রাজ্যপালের ভাষণ ছাড়া বাজেট!' দিলীপের কটাক্ষ মমতাকে

'রাজ্যপালের ভাষণ ছাড়া বাজেট!' দিলীপের কটাক্ষ মমতাকে
How West Bengal Budget Session is being held without the Governors Speech questioned by Dilip Ghosh

এ বছরের বাজেট জোড়া ব্যতিক্রমী ঘটনার সাক্ষী থাকল বিধানসভা৷ এক) অসুস্থতার জন্য রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র (Amit Mitra) আসতে না পারায় বাজেট পড়লেন মুখ্যমন্ত্রী৷ দুই) বাজেট শুরু হওয়ার আগে প্রথামাফিক রাজ্যপাল যে বক্তৃতা দেন, সেটাও হল না।

  • Share this:

    #কলকাতা: ভোটের আগে আজ অন্তর্বতী বাজেট পেশ করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)৷ কিন্তু এ বছরের বাজেট জোড়া ব্যতিক্রমী ঘটনার সাক্ষী থাকল বিধানসভা৷ এক) অসুস্থতার জন্য রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র (Amit Mitra) আসতে না পারায় বাজেট পড়লেন মুখ্যমন্ত্রী৷ দুই) বাজেট শুরু হওয়ার আগে প্রথামাফিক রাজ্যপাল যে বক্তৃতা দেন, সেটাও হল না। অর্থাৎ বাজেটের আগে বক্তব্য রাখলেন না  রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় (Jagdeep Dhankhar)৷

    রাজ্যপালকে ছাড়াই কীভাবে বাজেট হয়ে গেল! এই মর্মেই প্রশ্ন তুলেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh)৷ নাম না করেই তিনি কটাক্ষ করেছেন মমতাকে৷ এদিন দিলীপ বলছেন, "পশ্চিমবঙ্গে বাজেট হয়ে গেল রাজ্যপালের ভাষণ ছাড়া! কীভাবে এটা হল? আমাদের গণতন্ত্রে পিছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় থাকার অনুমোদন নেই৷"বিষয়টি নিয়ে যথেষ্ট ক্ষুব্ধ রাজ্যপাল। প্রকাশ্যে ক্ষোভ উগরে না দিলেও ঘটনাটিকে সংবিধান বিরোধী বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

    এদিন বাজেট বয়কট করেছে রাজ্যের অন্যতম দুই বিরোধী দল বামফ্রন্ট ও কংগ্রেস। তাদের অভিযোগ, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচনের আগে নিজের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য চরিতার্থ করতে গিয়ে সংসদীয় নিয়মের তোয়াক্কা না করে বিধানসভায় ভোট অন অ্যাকাউন্ট বাজেট পেশ করেছেন৷

    বিধানসভায় এদিন বিক্ষোভ দেখান বিজেপি বিধায়করা। মূলত মনোজ টিগ্গার নেতৃত্বেই বিজেপির বিধায়করা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ হন বিধানসঙার স্পিকার। স্পিকার জানান, এমন হট্টগোল হলে কড়া পদক্ষেপ করা হবে। এছাড়া যাঁরা ওয়েলে নেমে বিক্ষোভ দেখান তাঁদের তীব্র নিন্দা করেন তিনি। বাজেট পেশ থেকে ওয়াকআউট করেন বিজেপি বিধায়করা

    বিধানসভায় কোনও নতুন অধিবেশন শুরুর আগে রাজ্যপালকে আহ্বান করা হয়৷ তাঁর ভাষণের মধ্য দিয়ে শুরু করা বাজেট। এটাই সংসদীয় নিয়ম। কিন্তু লকডাউন শুরি হওয়ার পরেই, গত মার্চ মাস থেকে অধিবেশন সমাপ্ত না করে মুলতবি করে রেখে দিয়েছেন অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। বিরোধী দলগুলির জোরাল দাবি সত্ত্বেও অধিবেশন বসেনি৷ যা বেনজির ও ব্যতিক্রমী ঘটনা, অন্যদিকে অধিবেশন সমাপ্ত ঘোষণাও করা হয়নি। ফলে এই পরিস্থিতিতে ফের রাজ্যপালের ভাষণের জমিটাই তৈরি হল না৷

    Published by:Subhapam Saha
    First published: