বিসর্জন মামলায় বহাল সিঙ্গল বেঞ্চের রায়

বিসর্জন মামলায় বহাল থাকল সিঙ্গল বেঞ্চের রায় ৷ সোমবার ডিভিশন বেঞ্চেও খারিজ হয়ে গেল বিসর্জন নিয়ে কলকাতা পুলিশের নিষেধাজ্ঞা ৷

বিসর্জন মামলায় বহাল থাকল সিঙ্গল বেঞ্চের রায় ৷ সোমবার ডিভিশন বেঞ্চেও খারিজ হয়ে গেল বিসর্জন নিয়ে কলকাতা পুলিশের নিষেধাজ্ঞা ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: বিসর্জন মামলায় বহাল থাকল সিঙ্গল বেঞ্চের রায় ৷ সোমবার ডিভিশন বেঞ্চেও খারিজ হয়ে গেল বিসর্জন নিয়ে কলকাতা পুলিশের নিষেধাজ্ঞা ৷ দশমীর দিন সন্ধে ৬টা পর্যন্ত বিসর্জন দেওয়া যাবে বাড়ির প্রতিমা ৷ তবে  ধর, দত্ত, বেরা বাড়ির পুজোর বিসর্জন করা যাবে রাত ৮.৩০ পর্যন্ত ৷ বাকি বাড়ি ও আবাসনের পুজোর বিসর্জন কোন পথে সিদ্ধান্ত হবে পুলিশ ও প্রশাসনের বৈঠকে ৷ শোভাযাত্রার রুটও ঠিক হবে ওই বৈঠকে ৷ ‘বিকেল ৪টের পর বিসর্জনের বাধা বৈধ নয়’, নির্দেশ ছিল বিচারপতি দীপঙ্কর দত্তের ৷ সেই নির্দেশই বহাল রাখল বিশেষ বেঞ্চ ৷

    পঞ্জিকা মতে আগামী ১১ অক্টোবর বিজয়া দশমী ৷ নিয়ম মতো বনেদি বাড়ি সহ কলকাতার বেশিরভাগ মণ্ডপের প্রতিমা ওই দিন নিরঞ্জন করা হয় ৷ কিন্তু ১২ তারিখই মহরম হওয়ায় কলকাতা পুলিশ শৃঙ্খলা রক্ষায় নির্দেশিকা জারি করে যে, দশমীর দিন বিকেল চারটের পর আর প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া যাবে না ৷ এই নির্দেশিকার পরই শুরু হয় বিতর্ক ৷ বিজয়া দশমীর দিন সূর্যাস্তের পরই প্রতিমা বিসর্জন দেওয়াই বেশ কিছু বনেদী বাড়ির প্রথা ৷ পুলিশের নির্দেশিকা মানতে গেলে ভেঙে যাবে সাবেকী নিয়ম ৷ যা মানতে নারাজ কলকাতার অনেক বনেদী বাড়ি ৷ এই নিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হন উত্তর কলকাতার রূপ চাঁদ রায় স্ট্রিটের বাসিন্দা ধর পরিবার ও বিডন স্ট্রিটের দত্ত পরিবার ৷ কলকাতায় পারিবারিক ও আবাসন মিলে দেড় হাজার পুজো রয়েছে। বিসর্জনে এমন নির্দেশিকা জারি করায় হাইকোর্টের সমালোচনার মুখেও পড়েছে পুলিশ।
    First published: