‘ডিএ দিতে টাকা নেই, অথচ এত হোর্ডিং দিতে পারছে রাজ্য?’ DA মামলায় উঠল প্রশ্ন

‘ডিএ দিতে টাকা নেই, অথচ এত হোর্ডিং দিতে পারছে রাজ্য?’ DA মামলায় উঠল প্রশ্ন

২৭ ফেব্রুয়ারি স্যাটে ফের ডিএ মামলার শুনানি। ওইদিন সওয়াল করবেন রাজ্যের এডভোকেট জেনারেল।

  • Share this:
#কলকাতা: ডিএ মামলায় "হোর্ডিং" অস্বস্তি  রাজ্যের। স্যাট-হাইকোর্ট-স্যাট। গত কয়েক বছর ধরে আইনি লড়াই লেগেই আছে। ডিএ চুকিয়ে দেওয়ার রায় ঘোষণার পরও মামলার জট অব্যহত।  স্যাট বা স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইবুনালের রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন নিয়ে গেছে রাজ্য। সরকারি কর্মচারীদের ডিএ না দেওয়ার কারণ হিসেবে অ্যাডভোকেট জেনারেলের যুক্তি ছিলো, রাজ্যের আর্থিক অনটন। টানাটানির আর্থিক হাল সামলে রাজ্য ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ মেনে নতুন বেতন দিয়েছে জানুয়ারি থেকে। সরকারি কর্মচারীদের হয়ে সওয়াল করতে উঠে বৃহস্পতিবার আইনজীবী বিকাশ রঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন " রাজ্যের সর্বত্র বড় বড় হোর্ডিং। আর্থিক অনটন হলে এত হোর্ডিং আসে কোথা থেকে। রাজ্য কর্মচারীদের আইনি অধিকার আটকাতে মামলা দীর্ঘায়িত করা হচ্ছে মাত্র। "তিনি আরও বলেন, ট্রাইবুনাল এবং কলকাতা হাইকোর্টে রাজ্যের সওয়ালে নতুন কিছু নেই। একই কথা বারবার ঘুরিয়ে ফিরিয়ে বলার চেষ্টা করছে রাজ্য। আদতে স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ট্রাইব্যুনালের সময় নষ্ট করার কৌশল নিয়েছে রাজ্য। হোডিং কথা সওয়ালে আসতেই মুখ তাকাতাকি শুরু হয়ে যায় এজলাসে উপস্থিত আইনজীবীদের মধ্যে। রাজ্যের প্রায় ১০ লক্ষ সরকারি এবং সরকার পোষিত কর্মচারী। তাদের নতুন ক্রমে বেতন দিতে জানুয়ারি মাসে ৩ বার বাজার থেকে ধার করতে হয়েছে বলে নবান্ন সূত্রে খবর। সূত্রটির আরও দাবি, ২০১৯ সালের হিসেব বলছে রাজ্যের এই মূহুর্তে আর্থিক দেনা ৩.৯৬ লক্ষ কোটি টাকা। ১০ বছর আগে এই দেনার পরিমাণ ছিল ২ লক্ষ কোটি টাকার নিচে। দেনার মধ্যে ডিএ নেই কিন্তু হোর্ডিং কীভাবে। এমন সওয়ালে স্বাভাবিক ভাবেই অস্বস্তিতে রাজ্য। ২৭ ফেব্রুয়ারি স্যাটে ফের ডিএ মামলার শুনানি। ওই দিন সওয়াল করবেন রাজ্যের এডভোকেট জেনারেল।
ARNAB HAZRA
First published: February 14, 2020, 12:14 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर