• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • FIRE AT FUME AT M R BANGUR HOSPITAL COVID PATIENTS WERE TERRIFIED BUT SITUATION UNDER CONTROL PBD

MRBangurHospital: হঠাৎ এম আর বাঙ্গুর হাসপাতালে আগুন! CCU-তে ধোঁয়ায় ছড়াল আতঙ্ক

বাইরে থেকে দমকল কর্মীরা কাজ শুরু করার আগেই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়।

বাইরে থেকে দমকল কর্মীরা কাজ শুরু করার আগেই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়।

  • Share this:

#কলকাতা: মুমূর্ষু আশঙ্কাজনক অবস্থায় করোনা আক্রান্ত রোগীরা চিকিৎসাধীন থাকে ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিট বা সিসিইউ'তে। টালিগঞ্জ এম আর বাঙ্গুর হাসপাতালের ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে এখন প্রায় ১০০ জন রোগী চিকিৎসাধীন। গত বছর করোনার প্রথম প্রবাহ থেকেই এই এম আর বাঙ্গুর হাসপাতাল মুমূর্ষু করোনা রোগীদের চিকিৎসায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করে চলেছে। এই বছরেও করোনার দ্বিতীয় প্রবাহে তার ব্যাতিক্রম হয়নি। সোমবার বিকেল চারটে। এম আর বাঙ্গুর হাসপাতাল এর নবগঠিত সুপার স্পেশালিটি বিল্ডিং, যেখানে করোনা রোগীদের চিকিৎসা হয়,সেই বিল্ডিং-এর চার তলায় ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিট বা সি সি ইউ  থেকে হঠাৎ ধোঁয়া বের হতে দেখা যায়। শোরগোল পড়ে যায় হাসপাতাল জুড়ে। আশঙ্কাজনক করণা আক্রান্ত রোগীরা আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। বাইরে অপেক্ষমাণ রোগীর পরিবারের মধ্যে আরও কয়েকগুণ আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

দ্রুত দমকলের দুটি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। জানা যায়, ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটের ভিতর চিকিৎসকদের যে ঘর, যেটি বন্ধ ছিল, সেই ঘরে একটি wall-mounted বা দেয়ালে লাগানো ফ্যানের ক্যাপাসিটর পুড়ে গিয়ে ধোঁয়া বের হতে থাকে। যদিও কোন বড়োসড়ো দুর্ঘটনা ঘটেনি। কারণ হাসপাতালের নিজস্ব যে অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা থাকে, তার সাহায্যেই আগুন এবং ধোঁয়া নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়। বাইরে থেকে দমকল কর্মীরা কাজ শুরু করার আগেই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া হয়।

এম আর বাঙ্গুর হাসপাতাল এর সুপার ডঃ শিশির নস্কর জানান, ' খুব সামান্য ঘটনা। কোনও রোগীর কোনও ক্ষতি হয়নি। একটা দেওয়াল ফ্যান থেকে ধোঁয়া বেরিয়ে সমস্যা হয়েছিল। হাসপাতাল কর্মীরাই নিয়ন্ত্রণে আনেন পরিস্থিতি।' অন্যদিকে হাসপাতালে অপেক্ষমান গড়িয়ার বাসিন্দা রাজীব বিশ্বাস বলেন,' ভয়ে হাত পা ঠান্ডা হয়ে গিয়েছিল। এমনিতেই স্ত্রী ক্রিটিক্যাল কেয়ার ইউনিটে চিকিৎসাধীন থাকায় সারাদিন কী জানি কী হয় অবস্থা! তার উপরে এ দিন হঠাৎ করে ধোঁয়া বেরোতে দেখে খুবই ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম। হাসপাতালে এসি ফ্যান লাইট এগুলোকে বিশেষ করে নজরদারিতে রাখা উচিত কর্তৃপক্ষের। আজ বড়োসড়ো বিপদ ঘটতে পারত!'

Published by:Pooja Basu
First published: