Home /News /kolkata /
এগিয়ে বাংলা: ভূগর্ভস্থ বিদ্যুতায়নে জোর রাজ্য সরকারের, লোডশেডিংয়ের হার কমেছে রাজ্যে

এগিয়ে বাংলা: ভূগর্ভস্থ বিদ্যুতায়নে জোর রাজ্য সরকারের, লোডশেডিংয়ের হার কমেছে রাজ্যে

Photo: News18 Bangla

Photo: News18 Bangla

  • Share this:

    #কলকাতা: তিনি ক্ষমতায় আসার পর থেকেই আমূল বদলেছে বাংলা। খোলনলচে পালটে নতুন রূপে সেজে উঠছে রাজ্য। স্বাস্থ্য, রাস্তাঘাট, নিকাশি, জল সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়ন প্রকল্প নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। উন্নত হচ্ছে বিদ্যুৎ পরিষেবাও। ঘন ঘন লোডশেডিং থেকে রাজ্যবাসীকে মুক্ত করতে ভূগর্ভস্থ বিদ্যুতায়নে জোর দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই লক্ষ্যেই বেশ কয়েকটি শহরকে বেছে নিয়েছে রাজ্য সরকার।

    রাজ্যের অন্যান্য জেলার সঙ্গে ভূগর্ভস্থ বিদ্যুতায়নের কাজ চলছে নদিয়া জেলার নবদ্বীপ ও বীরভূমের বোলপুরে। মাটির নীচে দিয়ে তারের মাধ্যমে সব জায়গায় বিদ্যুৎ সংযোগ করা হচ্ছে। এই পদ্ধতিতে এরিয়াল ব্রাঞ্চ কেবলের মাধ্যমে মাটির নীচ দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় পয়েন্ট করা হয়। এর মূল উদ্দেশ্য হুকিং ও বিদ্যুৎ দফতরের আর্থিক ক্ষতি রোখা।

    আরও পড়ুন--এগিয়ে বাংলা: ইতি পড়েনি পুতুল নাচের কথায়, সরকারি পরিচয়পত্র পেয়েছেন শিল্পীরা

    নবদ্বীপ পুরসভার মোট ওয়ার্ড চব্বিশ। ইতিমধ্যেই ১৯টি ওয়ার্ডে ভূগর্ভস্থ বিদ্যুতায়নের কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। ওভারহেড তার দিয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ হওয়ায় রাস বা অন্যান্য উৎসবের সময় লোডশেডিংয়ে ব্যাপক সমস্যায় পড়তে হত শহরবাসী ও পর্যটকদের।

    ২০০৯ সালে রেলমন্ত্রী থাকাকালীন বোলপুরে যান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেসময়ই তিনি সেখানে বিদ্যুৎ পরিষেবা নিয়ে মানুষের সমস্যার কথা শুনেছিলেন। বোলপুরবাসীর সেই দুর্ভোগ ২০১১ সালেও ভোলেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পরই প্রায় ৫৭ কোটি টাকা ব্যয়ে বোলপুরে ভূগর্ভস্থ বিদ্যুতায়নের কাজ শুরু হয়। কাজ প্রায় শেষে পথে। পুরসভার ২০ ওয়ার্ডেই পরীক্ষামূলকভাবে ভূগর্ভস্থ বিদ্যুৎ পরিষেবা চালু হয়েছে।

    আরও পড়ুন-এগিয়ে বাংলা: রাজ্য সরকারের লোকপ্রসার প্রকল্পে সুবিধা পেয়ে মালদহে হাসছেন হাজার হাজার লোকশিল্পী

    বেহাল বিদ্যুৎ পরিষেবা নিয়ে বহু আন্দোলন হয়েছে রাজ্যে। কখনও রাজনৈতিক দলের ঝান্ডার তলায়, আবার কখনও নিজেদের উদ্যোগেই রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ করতে হত লোডশেডিংয়ে জেরবার সাধারণ মানুষকে। সেই মিছিল-বিক্ষোভের দিন আজ অতীত।

    First published:

    Tags: Egiye Bangla, Load Shedding

    পরবর্তী খবর