ধু ধু প্রান্তর! জনতা কার্ফুতে নিস্তেজ তথ্যপ্রযুক্তি নগরী, বন্ধ অফিস-দোকানপাট

ধু ধু প্রান্তর! জনতা কার্ফুতে নিস্তেজ তথ্যপ্রযুক্তি নগরী, বন্ধ অফিস-দোকানপাট

স্বেচ্ছায় গৃহবন্দী হয়ে থাকায় এককথায় নজির গড়ল কলকাতা।

  • Share this:

#কলকাতা: জনতা কার্ফুতে সক্রিয়ভাবে অংশ নিল তথ্যপ্রযুক্তি নগরীও।   দেশজুড়ে এখন করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক। সংক্রমণ ঠেকাতে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে সব রকমের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। তারই অঙ্গ হিসেবে আজ সকাল থেকে প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সারা দেশ জুড়ে পালিত হয়  জনতা কার্ফু। বাদ গেল না শহর কলকাতাও। স্বেচ্ছায় গৃহবন্দী হয়ে থাকায় এককথায় নজির গড়ল  প্রাণের শহর , ভালবাসার- ভাললাগার  শহর কলকাতা।

খাঁ খাঁ করছে উত্তর থেকে দক্ষিণ। ‘জনতা কার্ফু’তে সাড়া দিতে রাস্তাঘাটে পুলিশ ছাড়া সেভাবে সাধারণ মানুষ চোখে পড়েনি। আর ছিলেন সংবাদমাধ্যমের কর্মীরা। অত্যন্ত জরুরী কাজ থাকায় রাস্তায় বেরিয়েছেন হাতে গোনা কয়েকজন । বাস আছে। অটো আছে । অন্যান্য পরিবহনের মাধ্যমও ছিল। কিন্তু নেই আম জনতা। যে নগরী  যে কোনো রাজনৈতিক দলের ডাকা ধর্মঘটেও থাকে সচল। কলকাতার সেই তথ্যপ্রযুক্তি নগরী সেক্টর ফাইভও আজ ছিল শুনশান। কর্মব্যস্ততা ভুলে জনতা কার্ফুতে সক্রিয় অংশগ্রহণ চোখে পড়েছে তথ্যপ্রযুক্তি কর্মীদের। রবিবার ছুটির দিন হলেও বিগত রবিবারগুলির চেনা সেক্টর ফাইভের কলেজ মোড়, এসডিএফ, টেকনোপলিস,  উইপ্রো-সর্বত্রই রবিবাসরীয় ছবিটা আজ ছিল সম্পূর্ণ অচেনা।

সেক্টর ফাইভের আনাচে-কানাচে যতদূর চোখ যায় শুধুই নির্জনতার ছবি। দোকানপাট বন্ধ। পেশার তাগিদে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরে ঘুরে যে ছবি উঠে এসেছে তার ব্যতিক্রম নয় তথ্যপ্রযুক্তি নগরীও। এরকম ছবি আগে যে কখনও  দেখা মেলেনি  তা জোর দিয়েই বলা যায়। রবিবার সকাল থেকেই তিলোত্তমা কলকাতা দেখিয়ে দিল' ইচ্ছে থাকলেই উপায় হয়। নিজে সতর্ক থাকলে অন্য কেও বাঁচানো সম্ভব'। সতর্ক ও সচেতনতার অসামান্য নজির রাখল মহানগর কলকাতা। সেই সঙ্গে তথ্যপ্রযুক্তি নগরীও।

VENKATESWAR  LAHIRI 

First published: March 22, 2020, 11:43 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर