আবার কিডনি পাচার চক্র সক্রিয় ! গঙ্গার ঘাটে ভেসে এল সেলাই করা দেহ

আবার কিডনি পাচার চক্র সক্রিয় ! গঙ্গার ঘাটে ভেসে এল সেলাই করা দেহ

দেহের বুক থেকে নাভি পর্যন্ত সেলাই দেখে সবায়ের সন্দেহ কিডনি পাচার চক্র আবার সক্রিয়! পুলিশ দেহ ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে গেছে। সবাই এ?

  • Share this:

#কলকাতা: মঙ্গলবার সকাল ছটা নাগাদ বাগবাজার মায়ের ঘাটে জোয়ারের জলে ভেসে এল দেহ ৷ স্থানীয়রা দেখতে পেয়ে খবর দেয় স্থানীয় থানায় ৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে দেহটি তুলে নিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায় পুলিশ।

স্থানীয়দের মতে এর আগে বিভিন্ন ধরনের দেহ ভেসে এসেছে, কিন্তু এইরকম দেহ এর আগে তারা দেখেননি। দেহটি নদীর পাড়ে চিৎ হয়ে পড়েছিল। পরনে কোনও পোশাক ছিল না। দেহের বুক থেকে নাভি পর্যন্ত চেরা ছিল এবং সেটি সেলাই করা ছিল। সেলাই অতি সুনিপুণভাবে করা। অনেকেই মনে করছেন, দেহটি হয়ত ময়নাতদন্ত করার পর, কেউ জলে ভাসিয়ে দিয়েছে কিংবা ফেলে দিয়েছে। অনেকেই সহমত হতে পারছেন না। কারণ দেহে আর কোথাও কোন আঘাতের চিহ্ন নেই। যদি ময়নাতদন্ত করা হত, তাহলে মাথার খুলি ফাটানো হত ।এখানে মাথাটি অক্ষত রয়েছে। দেহটি সবথেকে বেশি তিন থেকে চার দিনের পুরনো হতে পারে।

জানা গিয়েছে, মৃতদেহটি পুরুষের ৷ আনুমানিক বয়স ৩৫ থেকে ৪০ এর মধ্যে। দেহ এখনো ঠিকমতো পচন ধরেনি কিংবা ফুলে যায়নি। স্থানীয় কর্তব্যরত পোর্ট ট্রাস্টের এক কর্মী ,এস মালাকার বলেন,' এটি কোন কিডনি পাচার কিংবা মানুষের দেহাংশ পাচার চক্রের কাজ হতে পারে। যদি ময়নাতদন্ত করা দেহ হত! তাহলে মাথার খুলি ফাটানো থাকত। জলে পড়লে পচন ধরলে ,তা বোঝা যেত। এখানে শুধু যেহেতু বুক এবং পেট কেটে সেলাই করা। সেহেতু সন্দেহ করা হচ্ছে, কোন পাচার চক্রের কাজ '। আবার সন্দেহ দানা বাঁধছে কিডনি পাচার চক্র আবার সক্রিয় হল না তো? নানা প্রশ্ন উঠছে। দেহ জলে ফেলার সময় ,শরীরে কোনও পোষাক থাকলে তাহলে কোমরে,দাগ থাকত।অনেক সন্দেহ দেখা দিচ্ছে। তবে,সমস্ত কিছু পরিষ্কার হবে, দেহটি ময়নাতদন্ত করার পরে বলে দাবি পুলিশের।

SHANKU SANTRA

First published: February 25, 2020, 12:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर