'বেনোজল' নিয়ে সতর্ক জোট, ‘বাঁধ’ দেওয়ার রণকৌশল নিয়ে চলছে আলোচনা

'বেনোজল' নিয়ে সতর্ক জোট, ‘বাঁধ’ দেওয়ার রণকৌশল নিয়ে চলছে আলোচনা

আসন সমঝোতার পাশাপাশি 'দলবদলু'দের কীভাবে রোখা যায় সেই বিষয়েও গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

  • Share this:

#কলকাতা: পুরসভা নির্বাচনে আসন সমঝোতা নিয়ে সিপিএম, কংগ্রেস-সহ ১৭ দলের আলোচনা চলছে চূড়ান্ত পর্যায়ে। কলকাতা পুরসভার জোট নিয়েও জোরকদমে প্রস্তুতি চলছে। আসন সমঝোতার পাশাপাশি 'দলবদলু'দের কীভাবে রোখা যায় সেই বিষয়েও গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।

সূত্রের খবর, সম্প্রতি রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় ক্ষমতা দখলের জন্য 'ঘোড়া' বেচা-কেনার দৃষ্টান্ত রয়েছে। কলকাতা পুরসভা নির্বাচনে যাতে তার পুনরাবৃত্তি না হয় আগে থেকেই সে বিষয়ে সতর্ক থাকার প্রচেষ্টা চালানোর চেষ্টা চালাচ্ছে জোটের নেতারা। সিপিএমের এক নেতা জানিয়েছেন, সারা বছর অন্য দল করে আসা কিছু নেতা সেই দলের কাছে ভোটে টিকিট না পেয়ে নির্দল বা অন্য দলের প্রতীকে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে। ভোটে জেতার পর আবার ঝাঁকের কই ঝাঁকে চলে যায়। ফলে একদিকে দল বা জোটের প্রতি মানুষের বিশ্বাস ভঙ্গ হয় তেমনই দল বা জোটের কর্মীদের আত্মবিশ্বাসে আঘাত লাগে। তাই টিকিট দেওয়ার ক্ষেত্রে 'বিশ্বস্ত' প্রার্থীদেরই খোঁজা হচ্ছে।'

কীভাবে বেনোজল আটকানো সম্ভব? জোটের এক নেতা জানিয়েছেন, 'আসন পাওয়ার পর থেকেই প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ শুরু হয়ে যাবে। অনেক জায়গাতেই প্রার্থী পেতে অসুবিধা হতে পারে। সেই সুযোগটাই কাজে লাগানোর চেষ্টা করে এই 'দলবদলু'রা। আসন জেতার জন্য সেই প্রার্থী টিকিটও পায়। তাই আগে থেকেই সতর্ক থাকার কথা বলা হচ্ছে। অন্য দলের বদলে নিজের দলের বিশ্বস্ত নেতা কর্মীদের টিকিট দেওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হোক। যারা খারাপ সময়ে দলে থাকেন তাঁরা কোনও প্রলোভনে পা দিয়ে 'দলবদলু' হবেন না বলেই বিশ্বাস জেলা নেতৃত্বের

গত নির্বাচনেও জিতে বেশ কয়েয়জন নেতা অন্যদলে পা বাড়িয়েছিলেন। তাই সিঁদুরে মেঘ দেখছেন কলকাতা জেলা নেতৃত্ব। রাজনৈতিক মহলের মতে, আগে যারা দল বদল করেছিলেন তার মধ্যেও দীর্ঘদিন দল করে আসা নেতারা রয়েছেন। সেক্ষেত্রে যদি এবারও হয় দলীয় নেতৃত্ব কী ছাকনী ব্যবহার করবেন সেই প্রশ্নও তুলেছেন তাঁরা ৷

মঙ্গলবার কংগ্রেসের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিল কলকাতা জেলা সিপিএম নেতৃত্ব। সূত্রের খবর এখনো পর্যন্ত জোটে কংগ্রেসকে ২৮টি আসন ছাড়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সিপিআই, ফরওয়ার্ড ব্লক ও আটএসপিকে ৯টি করে আসনে প্রার্থী দেবে। পিডিএস মার্কসবাদী ফরোয়ার্ড ব্লক লিবারেশনের মতো বেশকিছু দলকে আসন দেওয়া হবে। সিপিএম লড়বে ৭৫টি আসনে। বাকি আসনগুলি নিয়ে ২৬-২৭ তারিখ সব জোট প্রার্থীদের সঙ্গে বৈঠকে বসবে সিপিএম ৷

Ujjal Roy

First published: February 25, 2020, 9:27 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर