• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • স্কুলের দেওয়াল নীল-সাদা রং করালে খরচ দেবে স্কুল শিক্ষা দফতর! বিতর্ক তুঙ্গে

স্কুলের দেওয়াল নীল-সাদা রং করালে খরচ দেবে স্কুল শিক্ষা দফতর! বিতর্ক তুঙ্গে

শিয়ালদহের টাকি বয়েজ গর্ভমেন্ট মাল্টিপারপাস স্কুল

শিয়ালদহের টাকি বয়েজ গর্ভমেন্ট মাল্টিপারপাস স্কুল

স্কুলের দেওয়াল নীল-সাদা রং করালে খরচ দেবে স্কুল শিক্ষা দফতর! বিতর্ক তুঙ্গে

  • Share this:

    #কলকাতা: স্কুলের দেওয়াল নীল-সাদা রং করালে খরচ দেবে স্কুল শিক্ষা দফতর। এই নির্দেশিকা মেনে নতুন ক্যাম্পাসের রং করিয়েছে শিয়ালদহের টাকি বয়েজ গভর্নমেন্ট মাল্টিপারপাস স্কুল । কলকাতায় প্রথম কোনও স্কুল এমনটা করল! বেশ কিছু স্কুল এনিয়ে প্রশ্ন তুললেও, এতে বিতর্কের কিছু দেখছে না স্কুল কর্তৃপক্ষ।

    বাড়ি নীল-সাদা রং করলে একবছরের জন্য সম্পত্তিকর মকুব। কলকাতা পুরসভার এই সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্কের মাঝে নয়া নির্দেশিকা স্কুল শিক্ষা দফতরের। স্কুল ভবনের বাইরের অংশ নীল-সাদা রং করালে সেই অর্থ স্কুলকে দেওয়া হবে। মার্চ মাসের শেষের দিকে এই নির্দেশিকা স্কুলগুলিতে পাঠানো হয়।

    গত পাঁচ বছরে স্কুলের বাইরে রং না হয়ে থাকলে তা নীল-সাদা করাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রং করতে কত খরচ পড়েছে তার হিসাব এবং স্কুলের বাইরের অংশের ছবি তুলে পাঠালে, খরচ দেবে স্কুল শিক্ষা দফতর। তবে সরকারি নির্দেশিকায়, নীল-সাদা রং করাতেই হবে, এমন কোনও কথার উল্লেখ নেই।

    আরও পড়ুন-রবি ঠাকুরের নতুন বৌঠান

    নির্দেশিকা মেনে কলকাতায় প্রথম কোনও সরকার অনুমোদিত স্কুলে নীল-সাদা রং করা হল। শিয়ালদহের টাকি বয়েজ গভর্নমেন্ট মাল্টিপারপাস স্কুলের সূর্য সেন স্ট্রিট ক্যাম্পাসের নতুন ভবনে নীল-সাদা রং করা হয়েছে। বিতর্ক মাথা চাড়া দিলেও, স্কুল কর্তৃপক্ষ রং করার ক্ষেত্রে আর্থিক দিকটির কথাই তুলে ধরেছেন। স্কুলের প্রধান শিক্ষক পরেশ নন্দর ভাষায়, '' রং করতে যা খরচা হয়েছে তা সরকার দেবে। নীল-সাদা রং করে টাকা পেলে তো অসুবিধার কিছু নেই। রংটা ভালই লাগছে।''

    বছর তিনেক আগে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে বেশ কয়েকটি ভবন নীল-সাদা রং করায় বিতর্ক হয়েছিল। তারপর আর কোনও ভবনে এই রং করা হয়নি। এখন প্রশ্ন উঠেছে, শুধুমাত্র রং করার টাকা পাওয়ার জন্য কি হিন্দু, হেয়ার স্কুলের মতো ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোও রং বদলের রাস্তায় হাঁটবে?

    আরও পড়ুন-রবি যখন চিত্রকর, কলমের টানে অন্য কবিতা

    First published: