corona virus btn
corona virus btn
Loading

চিনা মাঞ্জার ত্রাস, পাখিদের মৃত্যুর মিছিল বোটানিক্যাল গার্ডেনে

চিনা মাঞ্জার ত্রাস, পাখিদের মৃত্যুর মিছিল বোটানিক্যাল গার্ডেনে
এভাবেই রোজ কষ্ট পাচ্ছে বোটানিক্যাল গার্ডেনে বেড়াতে আসা পাখিরা

চিনা মাঞ্জা ঘুম কেড়েছে বোটানিক্যাল গার্ডেন কর্তৃপক্ষের, এমনকি জীবন সংশয় হয়ে উঠেছে বাগানের পক্ষীকুলের|

  • Share this:

হাওড়া: আমফানের ঝড়ের ক্ষয়ক্ষতির অনেকটাই সামলে উঠছে শহরের ফুসফুস বোটানিক্যাল গার্ডেন। তবে এক নতুন সমস্যাই জর্জরিত হয়ে কপালে ভাঁজ বোটানিক্যাল গার্ডেন কর্তৃপক্ষের| চিনা মাঞ্জা ঘুম কেড়েছে বোটানিক্যাল গার্ডেন কর্তৃপক্ষের, এমনকি জীবন সংশয় হয়ে উঠেছে বাগানের পক্ষীকুলের|

গঙ্গার ধারের বজবজ,গার্ডেনরিচ এলাকা ও গার্ডেনের পার্শবর্তী নাজিরগঞ্জ এলাকার মানুষজনদের কর্মকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে গার্ডেনের ছোট বড় সব গাছের, এমনকি ক্ষতি হচ্ছে প্রাণী জগতেরও |

এই উদ্যানের উদ্ভিদ বিজ্ঞানী বসন্ত সিংয়ের দাবি, লকডাউনের সময়কালে  কয়েকদিন যাবৎ দেখা যাচ্ছে পার্শ্ববর্তী এলাকা ও গঙ্গার অন্য পার থেকে থেকে আকাশে ঘুড়ি কেটে পড়ছে বাগানে। সঙ্গে থাকছে ধারালো মাঞ্জা সুতো।

আগেও এই ঘটনা ঘটাতো তবে এখন সেই মাঞ্জা সুতো সাধারণ সুতলি নয়, এখন যেই সুতো উড়ে আসছে ঘুড়ির সাথে সেইগুলি প্লাস্টিক জাতীয় সুতো যা বাজারে চিন মাঞ্জা হিসাবে পরিচিত।  সেই সুতো জল ও রোদে নষ্ট হচ্ছে না এমনকি মানুষের গলায় বা শরীরে জড়িয়ে গেলেও তা সহজেই ছিড়ছে না, যার ফলে মানুষের শরীরে গভীর ক্ষত হচ্ছে |

কয়েকদিন আগেও মা ব্রিজ চীন মাঞ্জা গলায় জড়িয়ে মৃত্যুও হয় এক যুবকের | উদ্ভিদ বিজ্ঞানীর দাবি, বাগানের আকাশে এই চিনা মাঞ্জা পরে পরে এক অদৃশ্য জাল তৈরি হয়েগেছে বাগানে, সেই জাল এখন মারণ ফাঁদ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বাগানের কর্মীদের ভয় তো রয়েছেই, অন্য দিকে পাখিরা আকাশে ওড়ার সময় এই সুতোতে আটকে পড়ছে, বেশ কিছু পাখির মৃত্যুও হয়েছে। প্রতিদিন চার থেকে পাঁচটি পাখির ডানা আটকে পড়ছে এই মারণ ফাঁদে। বাগানের এক কর্মীর দা,বি রোজ আমাদের এই সুতোয় আটকে পড়া পাখিদের বাঁচাতে হচ্ছে, বেশ কিছু পাখিকে বাঁচাতে পারলেও সুতোয় দানা কেটে যাওয়ায় সে ওড়ার ক্ষমতাও হারিয়ে ফেলেছে| এমনকি বেশ কয়েকজন কর্মীও গুরুতর আহত হয়েছে |

এই সুতোর প্রভাবে বাগানের গাছের পক্ষে তাদের স্বাভাবিক বৃদ্ধি ও বেঁচে থাকাও দায় হয়ে পড়েছে | বিজ্ঞানীদের দাবি, বড় বড় গাছ থেকে এই সুতো ঝুলে রয়েছে মাটিতে, সেই সুতো আঁকড়ে ধরে মাথাচাড়া দিচ্ছে আগাছা , মাটির আগাচ্ছে সুতোর সাহায্যে পৌঁছে যাচ্ছে বড় বড় গাছের ডালে, ফলে আগাছার জন্য সেই গাছের স্বভাবিক বৃদ্ধি হ্রাস পাচ্ছে, এমনকি সুতোর সাহায্যে ফাঙ্গাস সোজাসুজি পৌঁছে যাচ্ছে গাছগুলিতে | সেই ফাঙ্গাল সংক্রমণের জেরে গাছ গুলির মৃত্যুও হচ্ছে | পক্ষীকুল ও বাগানের কর্মীদের বাঁচাতে প্রতিদিন বাগানের কর্মীরা হাতে লাঠি নিয়ে ঘুরে ঘুরে সুতোর খোঁজ চালাচ্ছে |

বি গার্ডেনের ডিরেক্টর কণাদ দাস বলেন , এই সমস্যা তাঁদের পক্ষে সমাধান সম্ভব নয় | দেশ ও রাজ্যের উচ্চ আদালত এই চীন মাঞ্জা ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে, সেই নির্দেশ মেনে প্রশাসন যতদিন না কঠোর পদক্ষেপ নিচে ততদিন এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া মুশকিল |

Published by: Arka Deb
First published: August 1, 2020, 11:24 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर