যুদ্ধজয়ে বিজেপির নজরে কলকাতা জোন|| শোভন-বৈশাখীকে সামনে রেখে সাজছে মুরলীধর লেন

যুদ্ধজয়ে বিজেপির নজরে কলকাতা জোন|| শোভন-বৈশাখীকে সামনে রেখে সাজছে মুরলীধর লেন

সাজছে মুরলীধর লেনের অফিস।

তৃণমূল অবশ্য সব দেখেশুনে তুলে আনছে আদি বিজেপি নব্য বিজেপি তত্ত্ব। তাঁদের প্রশ্ন, তাহলে কি দলের পুরনো ঘোড়াদের উপর ভরসা নেই গেরুয়া শিবিরের?

  • Share this:

#কলকাতা: ২১-এর মহারণ জয়ে বিজেপির লক্ষ্য কলকাতা জোন। সেই কারণেই আরও একবার ঢেলে সাজানো হচ্ছে মুরলীধর লেনের অফিস। এই অফিসেই বসবেন শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। কলকাতা জোনের পর্যবেক্ষক শোভন ও কমিটির সহ-আহ্বায়ক বৈশাখী  সামলাবেন গুরুদায়িত্ব। আলাদা ঘর পাচ্ছেন শঙ্কুদেব পণ্ডাও।

মুরলীধর লেনে চোখ রাখলেই আভাস মিলবে, সাজো সাজো রব। ঢেলে সাজানো হচ্ছে পুরনো অফিসটিকে। কেন এই তোরজোর? বিজেপি সূত্রের খবর, অমিত শাহ রাজ্যে এসে টার্গেট বেঁধে দিয়েছেন ২০০ সিটের। সেটা বাস্তবায়িত করা সম্ভব কলকাতা সংলগ্ন তিন জেলায় ভালো ফল হলেই। কলকাতার জোনের ৫১টি বিধানসভা আসনের চ্যালেঞ্জ নিতে তাই প্রয়োজন একটি বেসক্যাম্প বা ওয়ার্কস্টেশন যেখানে যোগদান পর্বও সারা যাবে, গোটা প্রক্রিয়াটা একটি কেন্দ্র থেকে পর্যবেক্ষণও করা যাবে। এখানেই নিয়মিত বসবেন পর্যবেক্ষক শোভন চট্টোপাধ্যায়। বসবেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়, শঙ্কুদেব পণ্ডা সহ অন্যান্য দায়িত্বপ্রাপ্তরাও।

গত লোকসভা ভোটে দক্ষিণ ২৪ পরগণার ৩১ টি আসনের মধ্যে কোনও আসনেই বিজেপি দাঁত ফোটাতে পারেনি। কলকাতায় ১১টি বিধানসভার কয়েকটিতে অল্প ব্যবধানে এগিয়ে থাকলেও দমদম লোকসভা কেন্দ্রেও ফল ভালো হয়নি। এই তিনটি এলাকা এবং তৎসলগ্ন বিধাননগর, রাজারহাট, নিউটাউনে ভালো ফল না করতে পারলে কার্যোদ্ধার হবে না তা বুঝতে পেরেই এই ব্যবস্থা, বলছে বিজেপি সূত্র। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, এই হিসেবনিকেশ অনেকটা বদলাবে কারণ বিধাননগর থেকে সব্যসাচী দত্ত, বেহালা পূর্ব থেকে শোভন চট্টোপাধ্যায় দলে এসেছেন। এমত অবস্থায় বিজেপি চাইছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের গড়ে কামড় বসাতে। সব মিলিয়েই এই নতুন এপিসেন্টার।

কলকাতা জোনে ফল ভালো করতে মরিয়া বিজেপি উত্তরপ্রদেশের সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদক সুনীল বনসালকে ইতিমধ্যেই দায়িত্ব দিয়েছে। কাল থেকে নতুন ভাবে কাজে শুরু করবেন শোভন-বৈশাখীও। তৃণমূল অবশ্য সব দেখেশুনে তুলে আনছে আদি বিজেপি নব্য বিজেপি তত্ত্ব। তাঁদের প্রশ্ন, তাহলে কি দলের পুরনো ঘোড়াদের উপর ভরসা নেই গেরুয়া শিবিরের?

Published by:Arka Deb
First published:

লেটেস্ট খবর