Bengal Election : "ভুল করে ফেলেছে ওরা", শ্রাবন্তী, তনুশ্রীদের হয়ে ক্ষমা চাইলেন পার্নো

Bengal Election : "ভুল করে ফেলেছে ওরা", শ্রাবন্তী, তনুশ্রীদের হয়ে ক্ষমা চাইলেন পার্নো

'ছোট্ট ভুল' Photo-Instagram

দোল উৎসবের দিনে গঙ্গাবক্ষে কামারহাটির তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্রের সঙ্গে উৎসব পালন করতে দেখা গিয়েছিল বিজেপির তারকা প্রার্থী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, পায়েল সরকার এবং তনুশ্রী চক্রবর্তীকে।

  • Share this:

    #কলকাতা : দোল উৎসবের দিনে গঙ্গাবক্ষে কামারহাটির তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্রের সঙ্গে উৎসব পালন করতে দেখা গিয়েছিল বিজেপির তারকা প্রার্থী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, পায়েল সরকার এবং তনুশ্রী চক্রবর্তীকে। সোমবার তাঁদের হয়ে ক্ষমা চাইলেন গেরুয়া শিবিরের আর এক তারকা প্রার্থী পার্নো মিত্র। মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে পার্নো বলেন, "আমি ওদের হয়ে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। ওরা রাজনীতির ময়দানে নতুন, তাই ভুল করে ফেলেছে। আমি ২০১৯ সাল থেকে বিজেপি করছি। এই বিষয়গুলো জানি।"

    একুশের বিধানসভা নির্বাচন চলাকালীন ঘাসফুল-পদ্মফুল শিবিরের হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের মাঝে বিরোধী দলের প্রার্থীদের একসঙ্গে গঙ্গাবক্ষে রঙের উৎসবের মেতে ওঠার ঘটনা নিয়ে রীতিমতো তোলপাড় গোটা রাজ্য। বিশেষত এবারের নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, পায়েল সরকার, তনুশ্রী চক্রবর্তীদের তৃণমূলের মদন মিত্রের সঙ্গে সেলফি তোলে সমালোচনায় গলা তোলেন অনেকেই। সেই প্রসঙ্গ তুলে গতকালই একটি ভিডিও বার্তা পোস্ট করেন পায়েল সরকার। কিন্তু তাতেও আসল প্রসঙ্গ কার্যত এড়িয়েই গিয়েছেন পায়েল।

    তবে সতীর্থ পায়েল এড়িয়ে গেলেও স্পষ্ট ভাষায় ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়ে নিলেন অভিনেত্রী পার্নো মিত্র। মঙ্গলবার মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার পর পার্নো বলেন, "শ্রাবন্তীরা একটা অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন। ওদের ছোট্ট ভুল হয়ে গেছে। ওদের হয়ে আমি হাতজোড় করে ক্ষমা চাইছি। এই কারণে কর্মীদের হয়তো মনোবল ভেঙেছে। কিন্তু এটা সাময়িক ভুল।"

    প্রসঙ্গত, এই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসে। ২০১৯ সালে দলে যোগ দিয়েও টিকিট পাননি অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা মিত্র। অন্যদিকে সদ্য যোগ দিয়েই গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রে প্রার্থী হয়েছেন শ্রাবন্তীরা। সেই রাগ থেকেই ঘটনার নিন্দায় সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দেন রূপাঞ্জনা। লেখেন, "এই ছবি থেকে ভাষা হারিয়ে ফেলেছি। এর ফলে কর্মীদের মনোবল ভাঙছে।" শুধু রূপাঞ্জনাই না। টলিপাড়ার অনেকেই বাঁকা হাসি হেসেছেন এই ছবি দেখে। 'বিজেমূল' বলে টিপ্পনি কাটতেও ছাড়েননি কেউ কেউ।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: