Home /News /kolkata /
Biman Basu: 'সীমান্ত পেরিয়ে'র সূচনায় বিমান বসু, বইয়ের ছত্রেছত্রে দেশভাগ আর উদ্বাস্তু-যন্ত্রণা

Biman Basu: 'সীমান্ত পেরিয়ে'র সূচনায় বিমান বসু, বইয়ের ছত্রেছত্রে দেশভাগ আর উদ্বাস্তু-যন্ত্রণা

বই উদ্বোধনে বিমান বসু

বই উদ্বোধনে বিমান বসু

Biman Basu: একদিকে রাস্তায় আন্দোলন অন্যদিকে বিধানসভায় বক্তব্য পেশ। এই দুই দিকে সমান তালে লড়াই করে যেতে হত নেতৃত্বকে। সেই সব লড়াই আন্দোলনের বক্তব্যকে এক জায়গায় করে একটি বইয়ের মাধ্যমে প্রকাশ করা হল।

  • Share this:

#কলকাতা: উদ্বাস্তু আন্দোলনের কথা নিয়ে বই উদ্বোধন করলেন বিমান বসু। দেশ ভাগের মধ্যে দিয়ে স্বাধীনতা এসেছিল। একদিকে যখন স্বাধীনতা পাওয়ার আনন্দ ছিল, অন্যদিকে ছিল বিভাজনের বেদনা। পাঞ্জাবের পাশাপাশি ভাগ হয়েছিল বাংলা। ওপার বাংলা থেকে ভিটেমাটি ছেড়ে এদেশে আশ্রয় নিতে হয়েছিল প্রচুর মানুষকে। এদেশে এসেও বেঁচে থাকার জন্য সংগ্রাম করতে হয়েছিল। এই সব মানুষদের দাবিদাওয়া নিয়ে কথা বলার জন্য তৈরি হয়েছিল সম্মিলিত কেন্দ্রীয় বাস্তুহারা পরিষদ বা ইউসিআরসি।

একদিকে রাস্তায় আন্দোলন অন্যদিকে বিধানসভায় বক্তব্য পেশ। এই দুই দিকে সমান তালে লড়াই করে যেতে হত নেতৃত্বকে। সেই সব লড়াই আন্দোলনের বক্তব্যকে এক জায়গায় করে একটি বইয়ের মাধ্যমে প্রকাশ করা হল। 'সীমান্ত পেরিয়ে' নামের এই বইটির সম্পাদনা করেছেন সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও প্রাক্তন সাংসদ সুজন চক্রবর্তী। মঙ্গলবার কলকাতার প্রেস ক্লাবে বইটির উদ্বোধন করেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু।

আরও পড়ুন: এবার আরও এক পদক্ষেপ, সঙ্গে তৃণমূল বিধায়ক! অর্জুন সিংকে ঘিরে তুঙ্গে শোরগোল

সংগঠনের পক্ষে মধু দত্ত জানিয়েছেন, একটি বইয়ের মধ্যে সবকিছু রাখা সম্ভব নয়। তাই দ্বিতীয় খন্ডও তৈরি করা হবে। বই প্রসঙ্গে সুজন চক্রবর্তী বলেন, "এটা শুধুমাত্র একটা বই বললে ভুল হবে। বরং বলা ভালো এটা একটা দলিল। জীবন্ত দলিল। এই বই তৈরিতে অনেক গবেষকরা যুক্ত থেকেছেন। এই বইতে সব অমূল্য তথ্য রয়েছে। যেগুলো আগামী প্রজন্মের জন্য। আগামী দিনের গবেষকদের কাজে লাগবে। বিশেষ করে সংগঠনের সম্মেলনগুলোতে হওয়া আলোচনা, বিধানসভায় নেতাদের বক্তব্য ইত্যাদি। একদিকে বাংলা, অন্যদিকে পাঞ্জাব দুই রাজ্যেই সব চাইতে বেশি সমস্যায় পড়েছিল। কিন্তু পাঞ্জাবকে যতটা গুরুত্ব দেওয়া হয়েছিল, বাংলা ততটা পায়নি। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কাজ হয়নি। আমাদের রাজ্যে যা উদ্বাস্তু আছেন, সারা দেশে নেই। ২২-২৫ শতাংশ মানুষ যারা বাংলার মানুষ কিন্তু ওপার বাংলার উদ্বাস্তু। ইদানীং ওপার বাংলার অর্থনীতি এপার বাংলার চাইতে কোনও অংশে দুর্বল নয় বরং বহুক্ষেত্রে শক্তিশালী। বাংলা ভাগ ঠিক হয়নি। ধর্মের নাম করে রাজনীতি হয়েছিল। কৃষি শিল্প থেকে শুরু করে সব বিষয়ে বাংলা সব বিষয়ে সারা ভারতের তুলনায় অনেক এগিয়ে ছিল স্বাধীনতার আগে। বাংলা ভাগের চেষ্টা আগেও হয়েছিল ১৯০৫ সালে। কিন্তু সম্ভব হয়নি। এপার বাংলায় যখন মানুষ এসেছিলেন দুর্বিষহ অবস্থা ছিল। শিয়ালদহ স্টেশনে থাকতে হয়েছিল। জবরদখল করে বসতে হয়েছিল। ক্যাম্পে আক্রমণ হয়েছে। উদ্বাস্তু উচ্ছেদ আইন হয়েছিল। যার বিরুদ্ধে বিধানসভায় জ্যোতি বসুর নেতৃত্বে লড়াই হয়েছে।"

আরও পড়ুন: কী কুরুচিকর! তৃণমূলকে বিঁধতে গিয়ে এ কী বললেন দিলীপ ঘোষ! তুমুল বিতর্ক

এ প্রসঙ্গে বিমান বসু বলেন, "পশ্চিমবঙ্গ, ওড়িশা, বিহার, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড়, উত্তরাখণ্ড এই সব এলাকায় যেতে হয়েছিল উদ্বাস্তু মানুষেদের। সেই সময় যারা লড়াই করেছিলেন, তাদের কথা তুলে ধরা হয়েছে এই বইতে। ১৯৫৪ সালে নদীয়ায় স্মারক লিপি দেওয়াকে কেন্দ্র করে হিংসা হয়েছিল। এই বইতে উদ্বাস্তু আন্দোলনের সব তথ্যই তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে।"

Published by:Suman Biswas
First published:

Tags: Biman Basu, Book

পরবর্তী খবর